যে কাজে নিজেকে মুমিন মনে করবেন

ধর্ম ডেস্ক
ধর্ম ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৪:৪৪ পিএম, ২৭ মার্চ ২০১৮ | আপডেট: ০৪:৪৬ পিএম, ২৭ মার্চ ২০১৮

আত্মার প্রশান্তি ও নির্ভীকতাই হলো ঈমানের মূল কথা।। আর ঈমানদার ব্যক্তি মাত্রই অন্তরে প্রশান্তি লাভ করে। আল্লাহ তাআলা সুরা বাকারার শুরুতেই ঈমানের পরিচয় তুলে ধরে বলেন-

‘কুরআন হেদায়েত দান করে সে সব লোকদেরকে যারা মুক্তাকি
যারা গায়েব তথা অদৃশ্যের
ওপর বিশ্বাস স্থাপন করে এবং নামাজ প্রতিষ্ঠা করে
এবং আমি তোমাদেরকে
যে রিজিক দান করেছি তা থেকে ব্যয় করে।
যারা আপনার ওপর অবতীর্ণ কিতাবের প্রতি ঈমান আনে

এবং আপনার পূর্ববর্তী নবিদের ওপর অবতীর্ণ কিতাবসমূহের প্রতি
ঈমান আনে এবং পরকালে বিশ্বাস রাখে।’ (সুরা বাকারা : আয়াত ২-৪)

একজন মুমিন মুসলমান ঈমান গ্রহণের পর নিজেকে মুমিন ভাববে কিভাবে? সে সম্পর্কে প্রিয়নবি সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম একটি সুস্পষ্ট তথ্য প্রদান করেছেন। হাদিসে এসেছে-

হজরত আবু উমামা রাদিয়াল্লাহু আনহু বর্ণনা করেন, এক ব্যক্তি রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু
আলাইহি
ওয়া সাল্রামকে জিজ্ঞাসা করলেন যে, ঈমান কাকে বলে বা উহার নিদর্শন কি?
উত্তরে তিনি বলেছেন, ‘তোমাদের ভালো কাজ যখন তোমাদের আনন্দ দেবে
এবং খারাপ ও অন্যায় কাজ তোমাদের অনুতপ্ত করবে
তখন তুমি বুঝবে যে, তুমি মুমিন।’ (মুসনাদে আহমাদ)

হাদিসের আলোকে বুঝা যায়, মুমিন মাত্রই ভালো কাজে আত্মিক প্রশান্তি উপলব্দি করতে পারে আর মন্দ কাজে অনুতপ্ত ও অনুশোচনার উপলব্দি তৈরি হয়।

আল্লাহ তাআলা মুসলিম উম্মাহকে প্রকৃত ঈমান হওয়ার জন্য কুরআন-সুন্নাহ ভিত্তিক প্রতিটি কাজ করার তাওফিক দান করুন। আমিন।

এমএমএস/এমএস