শ্রীলঙ্কায় নারীদের যে পোশাক নিষিদ্ধ নয়

ধর্ম ডেস্ক
ধর্ম ডেস্ক ধর্ম ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৩:০৪ পিএম, ৩০ এপ্রিল ২০১৯

শ্রীলঙ্কায় বোরকা নিষিদ্ধ। সম্প্রতি সংবাদ মাধ্যমগুলোতে ব্যাপকভাবে এ খবর প্রচারিত হয়। এতে গত ২৪ এপ্রিল সোমবার থেকে বোরকা নিষিদ্ধের এক নির্দেশনা জারি করা হয় বলে উল্লেখ করা হয়। প্রশ্ন হলো- শ্রীলঙ্কা সরকারের সে নির্দেশনাটিতে কী ছিল? বোরকা পরা নাকি মুখ ঢাকা?

বোরকা হলো একটি ঢিলেঢালা পোশাক; যা দিয়ে প্রাপ্তবয়স্ক মুসলিম নারীরা তাদের পুরো শরীর ঢেকে রাখে; কেবল দেখার জন্য মুখমণ্ডলের সম্মুখভাগ খোলা রাখে।

যদি মুখ ঢাকা নিষিদ্ধ করা হয় তবে, শ্রীলঙ্কার নারীদের পর্দা পালনে কিংবা বোরকা পরায় কোনো অসুবিধা নেই। কারণ হিজাব কিংবা চাদর ব্যবহারে বিরুদ্ধে তাদের কোনো নিষেধাজ্ঞামূলক নির্দেশনা নেই। শুধু মুখ ঢাকা যাবে না বলে শ্রীলঙ্কা নির্দেশনা জারি করে।

২৪ এপ্রিল সোমবার শ্রীলঙ্কার প্রেসিডেন্ট মাইথ্রিপলা সিরিসেনা বিশেষ ক্ষমতা বলে এক নির্দেশনা জারি করেন। তাহলো-
‘চেহারা ঢেকে যায় এমন পোশাক পরা যাবে না।’ এ নির্দেশনা সোমবার থেকেই কার্যকর হবে বলে জানানো হয়।

উল্লেখ্য যে, গত ২৪ এপ্রিল দেশটির একজন এমপি মুখ ঢেকে রাখা হয় এমন যে কোনো ধর্মীয় পোশাক নিষিদ্ধ করার প্রস্তাব তোলেন।

সে এমপি তার প্রস্তাবের পক্ষে যুক্তি তুলে ধরে বলেছেন, ‘মুখ ঢেখে রাখার ব্যাপারটা জাতীয় নিরাপত্তার জন্য হুমকি স্বরূপ। মুখ ঢেকে রাখার কারণে কাউকে চিহ্নিত করা খুব কঠিন হয়ে পড়ে।’

এমপি অশু মারাসিংঘে আরো বলেন, বোরকা শ্রীলঙ্কার মুসলিম নারীদের সনাতন পোশাক নয়। ইস্টার সানডের ওই হামলার পর থেকে দেশটিতে অনেক মুসলিমকেই বিভিন্ন স্থানে আক্রমণের মুখে পড়তে হয়েছে ৷ অনেকে আবার বাধ্য হয়েই বোরকা পরা বন্ধ করে দিয়েছেন ৷

এমএমএস/পিআর

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]