‘নির্বাচিত শাসকের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ বৈধ’ : গ্র্যান্ড মুফতির ফতোয়া!

ধর্ম ডেস্ক
ধর্ম ডেস্ক ধর্ম ডেস্ক
প্রকাশিত: ১০:৩২ এএম, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯

শায়খুল আজহার ও মিসরের গ্র্যান্ড মুফতি নির্বাচিত শাসকের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ বা গণসমাবেশকে বৈধ বলে ফতোয়া দিয়েছেন। তবে শর্ত হলো, তা হতে হবে শান্তিপূর্ণ। এ বিক্ষোভ ও গণসমাবেশ কোনোভাবেই আক্রমণাত্মক কিংবা হিংসাত্মক হতে পারবে না।

শায়খে আজহার ও গ্র্যান্ড মুফতি শায়খ ড. আহমাদ তাইয়্যিব বলেন, ‘নির্বাচিত শাসকের বিরুদ্ধে দেশের সাধারণ জনগণের শা‌ন্তিপূর্ণ বিক্ষোভ কর্মসূ‌চি পালন করা শরিয়তে বৈধ।

সাধারণ জনগণের এ কর্মসূচি পালনের সঙ্গে ঈমান বা কুফরের কোনো সম্পর্ক নেই বলেও ফতোয়া দিয়েছেন তিনি। মিসরভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল-আহরাম গত বুধবার শায়খুল আজহারের এ ফতোয়া প্রকাশ করে।

শায়খুল আজহার এক বিবৃ‌তিতে বলেন, ‘নির্বাচিত শাসকের বিরুদ্ধে দেশের সাধারণ মানুষ শা‌ন্তিপূর্ণ বিক্ষোভ কর্মসূ‌চি পালন করতে পারবে। ইসলামি শরিয়তের দৃষ্টিতে এর বৈধতা রয়েছে। কেননা এর সঙ্গে ঈমান বা কুফরের কোনো সম্পর্ক নেই।

তিনি আরও বলেন, ‘যারা শাসকদের বিরুদ্ধে শান্তিপূর্ণভাবে বিক্ষোভ প্রদর্শনকারীদের ‘কাফের’ বলে বরং তারা ইসলাম থেকে দূরে সরে পড়েছে। তারা ইসলামের সঠিক ব্যাখ্যা থেকে বিচ্যুত হয়েছে। কেননা খোলাফায়ে রাশেদিনের বিরুদ্ধে যারা সশস্ত্র অবস্থান করেছিল তাদেরকেও কাফের ব‌লা হয়নি।

এ ফতোয়ার ব্যাপারে মিসরের গ্র্যান্ড মুফতি বলেন, আল-আজহার সব সময় সবার কথা বিবেচনা করেই কাজ করে এবং আমাদের শক্তি-সামর্থ্য ও আহ্বান বিভেদ এবং বিভাজন থেকে দূরে থাকে।

উল্লেখ্য যে, সম্প্রতি মিসরের প্রেসিডেন্ট ও সাবেক সেনাপ্রধান আব্দেল ফাত্তাহ আল-সিসির পদত্যাগের দাবিতে মিসরের তাহরির স্কয়ারে বিক্ষোভ সমাবেশ শুরু হয়েছে। বিক্ষোভকারীদের ছত্রভঙ্গ করতে পুলিশ টিয়ার গ্যাস ও আগুনের গোলা নিক্ষেপ করেছে। আর এতে পরিস্থিতি দিন দিন নিয়ন্ত্রণহীন হয়ে পড়ছে।

এর আগেও ২০১১ সালে দেশটির দীর্ঘদিনের স্বৈরশাসক হোসনি মুবারকও তাহরির স্কয়ারে সাধারণ জনগণের বিক্ষোভ ও সংগ্রামে পদত্যাগ করতে বাধ্য হয়।

তারপর গণতান্ত্রিক বৈধ প্রেসিডেন্ট মুহাম্মদ মুরসিকে হটিয়ে পুনরায় ক্ষমতা গ্রহণ করে আরেক স্বৈরশাসক ও সেনা প্রধান আব্দেল ফাত্তাহ আল-সিসি। সম্প্রতি সেই তাহরির স্কয়ারেই সিসির বিরুদ্ধে বিক্ষোভ ও সংগ্রামে অবস্থান নিয়েছে সাধারণ জনগণ।

তাহরির স্কয়ারে সাধারণ জনগণের আন্দোলনের এ সময়টিতেই মিসরের গ্র্যান্ড মুফতি ফতোয়া দিলেন- ‘নির্বাচিত শাসকের বিরুদ্ধে শান্তিপূর্ণ বিক্ষোভ-কর্মসূচি ইসলামি শরিয়তে বৈধ। এত ঈমান ও কুফরির সঙ্গে কোনো সম্পর্ক নেই।’

এমএমএস/পিআর