আল্লাহর পবিত্রতা ঘোষণার ফজিলত কী?

ধর্ম ডেস্ক
ধর্ম ডেস্ক ধর্ম ডেস্ক
প্রকাশিত: ১২:২৩ পিএম, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২০

আল্লাহ তাআলা সব কিছু থেকে পুতঃপবিত্র। নিয়মিত আল্লাহর পবিত্রতা ঘোষণায় বান্দার জন্য রয়েছে এক হাজার নেকি লাভের পাশাপাশি এক হাজার গোনাহ থেকে মুক্তি সুযোগ। কেননা আল্লাহ পবিত্রতা ঘোষণার মর্যাদা অনেক বেশি। এতে মহান আল্লাহ সন্তুষ্ট হন। এ সম্পর্কে কুরআনুল কারিমে মহান আল্লাহ তাআলা নিজেই ঘোষণা করেন-

قَالُواْ سُبْحَانَكَ لاَ عِلْمَ لَنَا إِلاَّ مَا عَلَّمْتَنَا إِنَّكَ أَنتَ الْعَلِيمُ الْحَكِيمُ
'তারা বলল, তুমি পবিত্র! আমরা কোনো কিছুই জানি না, তবে তুমি যা আমাদের শিখিয়েছ (তা ব্যতিত) নিশ্চয় তুমিই প্রকৃত জ্ঞানসম্পন্ন, প্রজ্ঞাময়।' (সুরা বাকারা : আয়াত ৩২)

আল্লাহর জিকির বা তাকে স্মরণ করতে যে শব্দগুলো ব্যবহারের নির্দেশ দিয়েছেন প্রিয় নবি সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম, তার মধ্যে অন্যতম একটি হলো- سُبْحَانَ الله সুবহানাল্লাহ। আর এটিই হলো মহান আল্লাহ তাআলার পবিত্রতা ঘোষণার জিকির। এ জিকেরের অনেক ফজিলত ও তাৎপর্য রয়েছে। হাদিসে এসেছে-

- হজরত আবদুল্লাহ ইবনে আব্বাস রাদিয়াল্লাহু আনহু বর্ণনা করেন, ‌এ বাক্যটির (سُبْحَانَ الله - সুবহানাল্লাহ) অর্থ হলো- আল্লাহ পবিত্র অর্থাৎ আল্লাহ তাআলা যাবতীয় মন্দ ও সকল প্রকার দোষ-ত্রুটি থেকে সম্পূর্ণ পবিত্র।

- একবার হজরত ওমর রাদিয়াল্লাহু আনহু হজরত আলি রাদিয়াল্লাহু আনহুর কাছে প্রশ্ন করেছিলেন যে, আমরা ‘الَا اِلَهَ اِلَّا الله - লা ইলাহা ইল্লাল্লাহু’র অর্থ জানি। কিন্তু سُبْحَانَ الله - সুবহানাল্লাহ’র তাৎপর্য কি? তখন হজরত আলী রাদিয়াল্লাহু আনহু বললেন-
‘আল্লাহ তাআলা এ বাক্যটি নিজের জন্য পছন্দ করেছেন। তিনি এ বাক্য দ্বারা সন্তুষ্ট হন। এ জিকিরের শব্দটি মহান আল্লাহ তাআলার দরবারে অত্যন্ত পছন্দনীয়।

- হজরত মাইমুন ইবনে মেহরান রহমাতুল্লাহি আলাইহি سُبْحَانَ الله - সুবহানাল্লাহ'র প্রসঙ্গে বলেছেন, এতে আল্লাহ তাআলার তাযিম বা সম্মান রয়েছে এবং তাঁর পবিত্রতার বর্ণনা রয়েছে।

মুমিনের আমল
মুমিন মুসলমানের উচিত, আল্লাহর সন্তুষ্টি অর্জনে سُبْحَانَ الله সুবহানাল্লাহ'র জিকির বেশি বেশি করা। আর এ জিকিরের আমল সম্পর্কে হাদিসে এসেছে-

হজরত সাদ ইবনে আবি ওয়াক্কাস রাদিয়াল্লাহু আনহু বর্ণনা করেন, আমরা রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের কাছে ছিলাম। তিনি বললেন, তোমাদের কোনো ব্যক্তি প্রতি দিন এক হাজার নেকি অর্জন করতে সক্ষম কি? তন্মধ্যে একজন বললেন, আমাদের মধ্যে কোনো ব্যক্তি কীভাবে এক হাজার হাজার নেকি অর্জন করবে? তখন রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বললেন, ১০০ বার سُبْحَانَ اللهِ (সুবহানাল্লাহ) বললে, তার জন্য এক হাজার নেকি লেখা হবে। অথবা তার এক হাজার পাপ ক্ষমা করে দেয়া হবে।' (মুসলিম, মিশকাত)

সুতরাং মুমিন মুসলমানের উচিত, হাদিসে বর্ণিত আল্লাহ তাআলার প্রশংসা বাক্য سُبْحَانَ الله সুবহানাল্লাহ-এর আমল করে তাঁরই সুন্তুষ্টি লাভে সচেষ্ট হওয়া। আল্লাহর জিকিরে নিজেদের জবানকে সিক্ত রাখা।

আল্লাহ তাআলা মুসলিম উম্মাহকে তাঁরই পবিত্রতা বর্ণনায় سُبْحَانَ الله সুবহানাল্লাহ-এর ছোট্ট জিকির বেশি করার তাওফিক দান করুন। হাদিসে ঘোষিত এক হাজার নেকি লাভ এবং এক হাজার গোনাহ থেকে মুক্তি লাভের তাওফিক দান করুন। আমিন।

এমএমএস/পিআর

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]