হাজারবার কুরআন খতমকারী আলীর ইন্তেকাল

ধর্ম ডেস্ক
ধর্ম ডেস্ক ধর্ম ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৫:১৫ পিএম, ০২ মার্চ ২০২১

গত ২০ বছরে এক হাজারবারেরও বেশি কুরআন খতমকারী আলী তাশানকীর (৮৫) তুরস্কের সাকারিয়া রাজ্যের একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ইন্তেকাল করেছেন। খবর তুর্কি এজেন্সি।

তুর্কি বংশোদ্ভূত বৃদ্ধ আলী তাশানকীরকে গত এক মাস আগে অন্ত্রের ব্যাধিজনিত কারণে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। তার অন্ত্রে অস্ত্রোপাচার করা হয়েছিল। পরে তার শরীরিক অবস্থার অবনতি হলে গত ২৮ ফেব্রুয়ারি তিনি মারা যান।

২০ বছর ধরে তার নিয়মিত রুটিন ছিল কুরআনুল কারিম তেলাওয়াত করা। প্রতিদিন পাঁচ ওয়াক্ত নামাজের পর তিনি এক পারা কুরআন তেলাওয়াত করতেন। সে হিসেবে তিনি দৈনিক পাঁচ পারা কুরআন তেলাওয়াত করতেন। তবে হাজারবারেরও বেশি কুরআন খতমের বিষয়টি তার মৃত্যুর আগে কারো জানা ছিল না।

আলী তাশানকীরের মৃত্যুর পর তার ছেলে আব্দুল মতিন এ তথ্য জানান। তিনি তার বাবার কুরআন তেলাওয়াতের দৈনন্দিন রুটিন থেকে এ তথ্য জানতে পারেন।

বৃদ্ধ আলী তাশানকীরের ছেলে মতিন বলেন, ‘বাবার মৃত্যুর পর তিনি যে ২০ বছরে এক হাজারবারেরও বেশি কুরআন খতম করেছেন। আমার বাবার মৃত্যুর পর আমি তেলাওয়াত করার জন্য একটি কুরআন শরিফ খুলেছিলাম। হঠাৎ তার মধ্যে একটি চিরকুট চোখে পড়ে। যেখানে তিনি নিয়মিত পবিত্র কুরআন তেলাওয়াতের রুটিন লিখে রেখেছেন।

মতিন জানান, তার বাবা পাঁচ ওয়াক্ত নামাজের পরে এক পারা করে দিনে মোট পাঁচ পারা তেলাওয়াত করতেন। এভাবে ২০ বছরে এক হাজারবারের অধিক কুরআন খতম করেছেন তিনি।

উল্লেখ্য, বৃদ্ধ আলী তাশানকীর মৃত্যুর আগে তার কবরের জন্য নামফলক নিজেই বানিয়ে রেখে গেছেন বলেও জানান ছেলে আব্দুল মতিন। বৃদ্ধ আলী তাশানকীরের রেখে যাওয়া নামফলকই তার কবরে লাগানো হয়েছে।

বৃদ্ধ আলী তাশানকীরের কুরআন তেলাওয়াতের চমৎকার এ রুটিন হতে পারে সব মুমিন মুসলমানের জন্য অনুকরণীয় আদর্শ। তাতে কুরআনের প্রতি মনোযোগী হবে প্রত্যেক ঈমানদার মুসলমান।

আল্লাহ তাআলা কুরআনের তেলাওয়াতকারী আলী তাশানকীরকে জান্নাতের সর্বোচ্চ মাকাম দান করুন। আমিন।

এমএমএস/এমএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]