মুসলিম জাতির শিক্ষা গ্রহণে বনি ইসরাঈলে উপমা


প্রকাশিত: ০৬:৩১ এএম, ২৩ জানুয়ারি ২০১৭

আল্লাহ তাআলা কুরআনুল কারিমের উম্মাতে মুহাম্মাদির জন্য বনি ইসরাঈল জাতির বর্ণনা ও ইতিহাসকে শিক্ষা গ্রহণের নিমিত্তে তুলে ধরেছেন। আল্লাহ তাআলা কুরআনের এ আয়াতে কারিমায় তা সুস্পষ্টভাবে তুলে ধরেছেন।

জেনে দেখ, ‘আল্লাহ তাআলা বনি ইসরাঈল জাতিকে কি ধরনের সুস্পষ্ট নিদর্শন এবং নিয়ামত দান করেছেন। আবার আল্লাহর নিয়ামত লাভ করার তা কিভাবে অস্বীকার করেছেন এবং ফলশ্রুতিতে কি ধরনের দুর্ভাগ্যে পতিত হয়েছেন, তা এ আয়াতে ওঠে এসেছে।

আল্লাহর নিয়ামত অস্বীকার করার ফলে তারা যে কঠোর শাস্তির মধ্যে পতিত হয়েছেন তাও আল্লাহ তাআলা কুরআনের এ আয়াতে তুলে ধরছেন। যা থেকে উম্মাতে মুহাম্মাদি আল্লাহ তাআলার নিয়ামতের শুকরিয়া আদায় করবে এবং শিক্ষা গ্রহণ করবে।  আল্লাহ তাআলা বলেন-

Quran

আয়াত পরিচিতি ও নাজিলের কারণ
সুরা বাকারার ২১১ নং আয়াতে আল্লাহ তাআলা বনি ইসরাঈলদের যে নিয়ামত দান করেছেন, তার স্মরণ করিয়ে দিয়েছেন। আবার অস্বীকারকারীদের জন্য ভয়াবহ কঠোর শাস্তি পতিত হয়েছিল তাও বর্ণনা করেছেন।

আল্লাহ তাআলা বলেন, ‘তোমরা দেখ, আমি বনি ইসরাঈল জাতিকে বহু মুজিযা দান করেছি। যেমন- হজরত মুসা আলাইহিস সালামের হাতের লাঠি; তাঁর হাতে ঔজ্জ্বল্য, সমুদ্রকে দ্বিখণ্ডিত করে রাস্তা পারাপার, কঠিন গরমের সময় মেঘমালার ছায়া প্রাপ্তি, খাবার জন্য মান্না ও সালওয়া প্রাপ্তি ইত্যাদি নিয়ামত লাভ করেছিলেন।

এ সব কিছুর দ্বারা আল্লাহ তাআলা একচ্ছত্র ক্ষমতার প্রকাশ পায় আবার হজরত মুসা আলাইহিস সালামের নবুয়তের সত্যতা প্রমাণিত হয়। শুধু তাই নয়, বহু বছর পূর্বে ঘটনাগুলো বিশ্বনবি সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের বর্ণনার দ্বারা তাঁর নবুয়তের সত্যতাও প্রমাণিত হয়।

এতো নিয়ামত লাভ করার পরও বনি ইসরাঈল জাতি তাঁর শুকরিয়া আদায় করেনি বরং ঈমানের পরিবর্তে কুফরির ওপর স্থির থেকেছে। যার ফলে তারা কঠোর শাস্তি ভোগ করবে।

আল্লাহ তাআলা এ আয়াতে দুটি প্রশ্নের জন্য বনি ইসরাঈলকে নির্বাচন করেছেন-
১. প্রাচীন ধ্বংসাবশেষের নিষ্প্রাণ স্তুপের তুলনায় একটি জীবিত জাতি অনেক বেশি শিক্ষা ও উপদেশের বাহন হতে পারে।
২. বনি ইসরাঈলকে কিতাব ও নবুয়তের আলোকবর্তিকা দিয়ে বিশ্ববাসীর নেতৃত্বদানের আসনে অধিষ্ঠিত করা হয়েছিল। কিন্তু তারা দুনিয়ার প্রীতি, ভোগবাদ, মুনাফেকী এবং কাজ ও কর্মের ভুলে নিয়োজিত হয়ে এ আল্লাহর নিয়ামত থেকে নিজেদেরকে বঞ্চিত করেছিল।

কাজেই বনি ইসরাঈলে পরে যে জাতিকে বিশ্ব নেতৃত্বের আসনে বসানো হয়েছে, তারা বনি ইসরাঈল জাতির পরিণাম থেকেই সবচেয়ে বেশি কার্যকর শিক্ষা গ্রহণ করতে পারে।

এ আয়াত দ্বারা কুরাইশ ও অবাধ্যদেরকে সতর্ক করা হয়েছে। আবার কুরআনের অন্যত্র এ সংবাদও দেয়া হয়েছে যে, ‘তুমি কি ওই লোকদেরকে দেখনি, যারা আল্লাহর নিয়ামতকে কুফর দ্বারা পরিবর্তন করেছে এবং নিজেদের সম্প্রদায়কে ধ্বংসের দিকে নিক্ষেপ করেছে। অর্থাৎ জাহান্নাম; যা অতি জঘন্য অবস্থান স্থল। (সুরা ইবরাহিম: আয়াত ২৮-২৯)

পড়ুন- সুরা বাকারার ২১০ নং আয়াত

পরিষেশে...
আল্লাহ তাআলা মুসলিম উম্মাহকে বনি ইসরাঈলের ভুল থেকে শিক্ষা গ্রহণ করে সঠিক পথে চলার ইসলামের নিয়ামত গ্রহণ করে শুকরিয়া আদায় করার তাওফিক দান করুন। কুরআনের বিধান পালনে একনিষ্ঠ হওয়ার তাওফিক দান করুন। আমিন।

এমএমএস/পিআর

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]