মদিনায় মৃত্যু : ওমরা করা হলো না অসুস্থ যুবকের


প্রকাশিত: ০৯:১১ এএম, ২৮ জানুয়ারি ২০১৭

মালয়েশিয়ান এক যুবক মোহাম্মদ রামাদান আলী মরণব্যাধি লিউকেমিয়ায় আক্রান্ত। ডাক্তাররা যার ব্যাপারে চিকিৎসা নেই বলে জানিয়ে দিয়েছেন। যুবকের শেষ ইচ্ছা ছিল মক্কায় উমরা পালন করা এবং মদিনা যিয়ারত করা। শেষ পর্যন্ত মদিনা যিয়ারত করতে পারলেও মক্কায় গিয়ে তাঁর ওমরা পালন করা হলো না। তাকে জান্নাতুল বাকিতে দাফন করা হয়। খবর ইলমফিড ডটকম।

২০ বছর বয়সী মোহাম্মদ রামাধান আলী। মরণব্যাধি লিউকেমিয়ায় (leukemia) চূড়ান্ত পর্যায়ে আক্রান্ত। ডাক্তার তার বেঁচে থাকার ব্যাপারে কোনো আশ্বাস দেয়নি। বরং এক মাসের মধ্যেই তার মৃত্যু হবে বলে জানায়।

মোহাম্মদ রামাধান আলীর শেষ ইচ্ছা হলো দুই পবিত্র ভূমি মক্কায় ওমরা পালন এবং মদিনা মুনাওয়ারা যিয়ারত করা।

শেষ ইচ্ছা মোতাবেক সে প্রথমেই পবিত্র নগরী মদিনা মুনাওয়ারায় যায়। সেখান থেকেই পবিত্র নগরী মক্কায় ওমরা পালনে যাওয়ার কথা।

যাই হোক, অপ্রত্যাশিতভাবে সে মদিনার আল-আনসার হসপিটালে ভর্তি অবস্থায় ইন্তেকাল করেন। (ইনা লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন) তাঁকে মসজিদে নববির পাশে জান্নাতুল বাকিতে দাফন করা হয়।

মোহাম্মদ রামাধানের মৃত্যু প্রতিক্রিয়ায় তাঁর বোন মালয়েশিয়ার ‘দ্যা স্টার’কে জানায়, ‘তার পরিবার ভাইয়ের মৃত্যু সংবাদ শুনে মনোক্ষুন্ন হয়েছে। কিন্তু এ কথা ভেবে খুশি যে, তার ভাই পবিত্র নগরী মদিনার মসজিদে নববির পাশে জান্নাতুল বাকিতে সমাহিত হয়েছেন।

আরো জানা যায়, মোহাম্মাদ রামাধান আলীর পিতা পবিত্র মক্কায় ছেলের ওমরা আদায় করতে যাবেন এবং মদিনা মুনাওয়ারার জান্নাতুল বাকিতে সমাহিত সন্তানের কবর জিয়ারত করবেন।

এ এক অসাধারণ মৃত্যু। নিশ্চিত মৃত্যু জেনেও মোহাম্মাদ রামাধান ওমরা পালন এবং মদিনা যিয়ারতে উদগ্রীব ছিলেন। আল্লাহ তাআলা তাঁকে জান্নাতের সর্বোচ্চ মাকাম দান করুন।

আল্লাহ তাআলা মুসলিম উম্মাহকে হজ-ওমরা ও মদিনা যিয়ারত করার তাওফিক দান করুন। উত্তম মৃত্যু দান করুন। আমিন।

এমএমএস/এমএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]