রোজাদারের জন্য নির্ধারিত জান্নাতের ‘রাইয়ান’ নামক দরজা


প্রকাশিত: ০২:২৯ এএম, ০২ জুন ২০১৭

রহমত মাগফেরাত ও নাজাতের আশায় মুসলিম উম্মাহ পালন করছে পবিত্র রমজান মাসের রোজা। এ মাসটি আল্লাহর হুকুম পালনার্থে রোজা রেখে তার সন্তুষ্টি অর্জনে ব্যস্তঅ আর এ মাসটি উম্মতে মুহাম্মাদির নিকট ইবাদতের বসন্তকাল হিসেবে পরিচিত।

এ মাসের ইবাদত বন্দেগির সাওয়াব ও ফজিলত অন্যান্য মাসের চেয়ে অনেক বেশি। এ মাসের একটি নফল ইবাদত অন্য মাসের ফরজ ইবাদতের সাওয়াবের সমান।

তাই যারা পবিত্র রমজান মাসব্যাপী রোজা পালনে সফলতা লাভ করবে; তাদের জন্য জান্নাতের রাইয়ান নামক দরজার সুসংবাদ দিয়েছেন বিশ্বনবি সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম। হাদিসে এসেছে-

হজরত সাহল রাদিয়াল্লাহু আনহু থেকে বর্ণিত, রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেন, জান্নাতের মধ্যে রাইয়ান নামক একটি দরজা রয়েছে। কেয়ামতের দিন এ দরজা দিয়ে শুধুমাত্র রোজাদার লোকেরাই প্রবেশ করবে। তাদের (রোজাদার) ব্যতিত এ দরজা দিয়ে অন্য কাউকে (জান্নাতে) প্রবেশ করতে দেয়া হবে না।

Vision

ঘোষণা দেয়া হবে যে-
‘রোজাদার লোকেরা কোথায়! তখন তারা (সব রোজাদার) দাঁড়াবে। তাদের ছাড়া আর কেউ এ দরজা দিয়ে প্রবেশ করবে না। তাদের প্রবেশের পরই দরজা বন্ধ করে দেয়া হবে। যাতে এ দরজা দিয়ে আর কেউ প্রবেশ করনে না পারে।’ (বুখারি)

পরিশেষে…
প্রিয়নবি সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের উল্লেখিত ঘোষণায় এ কথা নিঃসন্দেহে বলা যায় যে, রোজাদারদের মধ্যে যারা রোজা পালনের মাধ্যমে আল্লাহর ভয় এবং ভালোবাসা অর্জন করতে পারবে। অর্থাৎ যে ভয় অন্যায় কাজ করা থেকে বিরত রাখবে আর যে ভালোবাসা পূণ্যেরে কাজের আকর্ষণ বাড়াবে। সে ভয় এবং ভালোবাসা এ রমজান মাসের রোজা পালনের মাধ্যমেই অর্জন করতে হবে।

আল্লাহ তাআলা মুসলিম উম্মাহর সব রোজাদারদেরকে পবিত্র রমজান মাসে রোজা পালনের মাধ্যমে তাঁর ভয় এবং ভালোবাসা লাভ করে রাইয়ান নামক দরজা দিয়ে জান্নাতে প্রবেশ করার তাওফিক দান করুন। আমিন।

এমএমএস/এমএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]