বাবরি মসজিদের জায়গায় মন্দির নয় : অল-ইন্ডিয়া মুসলিম ল’ বোর্ড

ধর্ম ডেস্ক
ধর্ম ডেস্ক ধর্ম ডেস্ক
প্রকাশিত: ০১:০৫ পিএম, ১৭ ডিসেম্বর ২০১৮

বাবরি মসজিদ-এর জায়গায় রাম মন্দির নির্মাণে আদালতের নির্দেশনা অমান্য করে একের পর এক চেষ্টা অব্যাহত রেখেছে হিন্দুত্ববাদী সংগঠন শিবসেনা। আদালতে বিচারাধীন বাবরি মসজিদের জায়গায় রাম মন্দির নির্মাণ নিয়ে হিন্দুত্ববাদী সংগঠন ও মসলিমদের মধ্যে চলছে উত্তেজনা।

অল-ইন্ডিয়া মসুলিম পার্সোনাল ল’ বোর্ড-এর দাবি, ভারতীয় আদালতের ফয়সালা ব্যতিত যেন কোনোভাবেই বাবরি মসজিদের জায়গায় রাম মন্দির নির্মাণ নয়। ভারতের উত্তর প্রদেশের রাজধানী লক্ষ্ণৌতে অবস্থিত নদওয়াতুল ওলামায় রোববার (১৬ ডিসেম্বর) অল-ইন্ডিয়া পার্সোনাল ল বোর্ড ওয়ার্কিং কমিটির কনফারেন্স অনুষ্ঠিত হয়।

বাবরি মসজিদের জায়গার বিষয়টি ভারতের উচ্চ আদালতে বিচারাধীন। আদালতের চূড়ান্ত সিদ্ধান্তের আগে কোনোভাবেই যেন বাবরি মসজিদের জায়গায় রাম মন্দির নির্মাণ করা না হয় সে বিষয়টি গুরুত্বসহকারে ঘোষণা করা হয়।

কনফারেন্স শেষে অল-ইন্ডিয়া মুসলিম পার্সোনাল ল বোর্ড কমিটির সম্মিলিত সিদ্ধান্ত ঘোষণা করা হয় যে-
‘বাবরি মসজিদ ইস্যুতে অল ইন্ডিয়া মুসলিম পার্সোনাল ল’ বোর্ড আদালতের ফায়সালা চায়৷ আদালতের ফায়সালা ব্যতিত কেউই যেনো কোনো পদক্ষেপ না নেয় এ বিষয়ে হুশিয়ারি দেয় অল-ইন্ডিয়া মুসলিম পার্সোনাল ল’ বোর্ড।

বাবরি মসজিদের জায়গায় রাম মন্দির নির্মাণ আন্দোলন শুরু হওয়ায় ভারতীয় মুসলমানরাও বাবরি মসজিদের জায়গা রক্ষায় নতুন উদ্যমে চিন্তা-ভাবনা, ধারাবাহিক কনফারেন্স আয়োজন শুরু করেছে।

ইতিমধ্যে ভারতের অনেকেই মনে করেন যে, বাবরি মসজিদের জায়গা রাম মন্দির নির্মাণ শোভনীয় বরং এর কিছু দূরে চাইলে মন্দির নির্মাণ করা যায়। সহিংসতা এড়াতে ভারতের শীর্ষস্থানীয় নেতৃবৃন্দও কাজ করে যাচ্ছে।

নদওয়াতুল ওলামার মহাপরিচালক মাওলানা হাসান নদভির সভাপতিত্বে অল-ইন্ডিয়া মুসলিম পার্সোনাল ল’ বোর্ডের এ কনফারেন্স অনুষ্ঠিত হয়।

কনফারেন্সে ওয়ার্কিং কমিটির আরো যারা উপস্থিত ছিলেন তারা হলেন, মুসলিম পার্সোনাল বোর্ডের জেনারেল সেক্রেটারি মাওলানা সাজ্জাদ নোমানী, জমিয়তে ওলামায়ে হিন্দের সভাপতি মাওলানা আরশাদ মাদানী, আল-মা’হাদু আ’লী হায়দারাদ-এর প্রিন্সিপ্যাল মুফতী খালেদ সাইফুল্লাহ রাহমানি, নদওয়াতুল ওলামার সিনিয়র উস্তাদ মুফতী আতিক আহমাদ কাসেমী।

এমএমএস/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]