প্রবীণ আলেম প্রিন্সিপাল মাওলানা শফিকুল্লাহর ইন্তেকাল ও দাফন

ধর্ম ডেস্ক
ধর্ম ডেস্ক ধর্ম ডেস্ক
প্রকাশিত: ১১:৫৬ এএম, ১৪ জানুয়ারি ২০২১

দেশের শীর্ষস্থানীয় আলেমে দ্বীন, উত্তরার মারকাযুল কুরআন মাদরাসার প্রিন্সিপাল মাওলানা শফিকুল্লাহ (৭৩) টঙ্গীর আহসানিয়া হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বুধবার বিকাল সাড়ে ৪টায় ইন্তেকাল করেন। ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন।

অসংখ্য আলেম গড়ার কারিগর মাওলানা শফিকুল্লাহ লক্ষ্মীপুর জেলার কমলনগর থানায় জন্ম গ্রহণ করেন। তিনি ছিলেন একজন সুযোগ্য সাধক ও আলেমে দ্বীন। দেশ-বিদেশে ছড়িয়ে থাকা অসংখ্য আলেমের ওস্তাদ ছিলেন মাওলানা শফিকুল্লাহ।

তিনি হাফেজী হুজুর রাহমাতুল্লাহি আলাইহির জীবদ্দশায় তারই প্রতিষ্ঠিত কামরাঙ্গীরচর নূরীয়া মাদ্রাসায় শিক্ষকতার মাধ্যমে তার কর্মজীবন শুরু করেন। সেখানে তিনি দীর্ঘ ১৪ বছর শিক্ষকতা করেন।

তারপর তিনি আরবি ভাষার আধুনিক প্রতিষ্ঠান মাওলানা আবু তাহের মিসবাহ প্রবর্তিত সিলেবাসের প্রতিষ্ঠান মাদরাসাতুল মদিনায় একটানা ২৪ বছর ইলমে দ্বীনের খেদমতে নিয়োজিত ছিলেন।

কর্মজীবনের প্রায় ৪০ বছর অতিবাহিত করে রাজধানী ঢাকার উত্তরখানে নিজেই প্রতিষ্ঠা করেন ঐতিহ্যবাহী দ্বীনি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান মারকাযুল কুরআন মাদরাসা। মৃত্যুর আগ পর্যন্ত তিনি এ মাদরাসার প্রধান হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন।

এ প্রবীণ আলেম অনেকদিন ধরে ক্যান্সারে আক্রান্ত ছিলেন। প্রায় এক বছর ধরে ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়ে তিনি হাসপাতালেই চিকিৎসাধীন ছিলেন। হাজারো আলেমের ওস্তাদ মাওলানা শফিকুল্লাহ মৃত্যুকালে ৪ ছেলে এক মেয়ে ও অসংখ্য গুণগ্রাহী ছাত্র-শিক্ষক রেখে গেছেন।

বৃহস্পতিবার সকাল ১০টায় নিজ প্রতিষ্ঠিত উত্তরার মারকাযুল কুরআন মাদরাসায় পার্শ্ববর্তী ময়দানে তার জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। জানাজা শেষে এ প্রবীণ আলেমকে বিমানবন্দর অবস্থিত জামিয়া ইসলামিয়া জামুন মাদরাসার কবরস্থানে দাফন করা হয়।

আল্লাহ তাআলা ইলমে দ্বীনের এ প্রবীণ খাদেমকে জান্নাতের সর্বোচ্চ মাকাম দান করুন। আমিন।

এমএমএস/এমকেএইচ

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]