মক্কা-মদিনায় কুরবানি করার সুবর্ণ সুযোগ!

ধর্ম ডেস্ক
ধর্ম ডেস্ক ধর্ম ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৪:৩২ পিএম, ১২ জুন ২০২১ | আপডেট: ০৪:৩৪ পিএম, ১২ জুন ২০২১

‘হারামাইন উইথ কুরবানি’ শিরোনামে পবিত্র নগরী মক্কা ও মদিনায় কুরবানি করার সুর্বণ সুযোগ নিয়ে এসেছে qurbani.haramain.com কুরবানি ডট হারামাইন ডটকম। মক্কা-মদিনায় না গিয়েও এ সংস্থার সাহায্যে সহজে কুরবানি সম্পাদনের সুযোগ পাচ্ছেন মুসলিম উম্মাহ। দীর্ঘ ১১ বছরের অভিজ্ঞতা সম্পন্ন এ প্রতিষ্ঠানটি নিজেদের ওয়েবসাইটে কুরবানির যাবতীয় নিয়ম-কানুন তুলে ধরেছে।

মুসলিম বিশ্বের যেসব লোক নিজ নিজ দেশে অবস্থান করে পবিত্র নগরী মক্কা ও মদিনায় পশু কুরবানি করাতে চায়, তাদের জন্য এ সংস্থাটি একদল দক্ষ কর্মীর তত্ত্বাবধানে কুরবানির যাবতীয় প্রক্রিয়াগুলো সম্পাদন করে থাকেন।

২০২১ সাল তথা ১৪৪২ হিজরি কুরবানি কার্যক্রম শুরু করেছে সংস্থাটি। ৩ ক্যাটাগরিতে কুরবানি সুযোগ দিচ্ছে এ সংস্থা। কুরবানি দাতা চাহিদামতো ক্যাটাগরিতে ২৫৯ ইউএস ডলার খরচে কুরবানি সম্পন্ন করতে পরবেন।

মক্কা-মদিনায় কুরবানি সম্পাদন করাতে চাইলে qurbani.haramain.com-এর মাধ্যমে কুরবানি সম্পাদন করতে পারবেন।

jagonews24

উল্লেখ্য পবিত্র নগরী মক্কার ঐতিহাসিক কুরবানির স্থান মিনা প্রান্তরে অনেকেরই কুরবানি সম্পাদন করার স্বপ্ন থাকে। সে স্বপ্ন পূরণে এ সংস্থাটি কাজ করে যাচ্ছে। কুরবানির জন্য বুকিং দেওয়ার সময় কুরবানি থেকে শুরু করে কুরবানি সম্পন্ন হওয়া এবং কুরবানির গোশত বণ্টনসহ কার্যক্রম ও ব্যবস্থাপনা সম্পন্ন করার যাবতীয় সুযোগ রয়েছে।

আত্মত্যাগের অনন্য ইবাদত কুরবানির বিধান সর্বপ্রথম পবিত্র নগরী মক্কার মিনা প্রান্তরেই বাস্তবায়ন করেন হজরত ইবরাহিম আলাইহিস সালাম। তিনি নিজ ছেলে হজরত ইসমাইল আলাইহিস সালামকে কুরবানি করার এ নির্দেশ পালন করেন। আল্লাহ তাআলা হজরত ইবরাহিম আলাইহিস সালামের আত্মত্যাগের বিধান বাস্তবায়নে এ কুরবানি কবুল করেন।

মুসলিম উম্মাহ প্রতি বছর হজের মাস জিলহজের ১০ তারিখ আল্লাহর জন্য পশু জবাইয়ের মাধ্যমে এ কুরবানি সম্পাদন করেন।

মুসলিম উম্মাহর সেই আবেগ ও দরদ থেকেই কুরবানির শহর 'মিনা' প্রান্তর তথা মক্কা এবং পবিত্র নগরী মদিনায় কুরবানি সম্পন্ন করার স্বপ্ন পূরণ করে যাচ্ছে qurbani.haramain.com সংস্থাটি।

বিশ্বব্যাপী মুসলিম উম্মাহর আবেদনের প্রেক্ষিতে নির্ধারিত ফি গ্রহণের মাধ্যমে এ কুরবানি সম্পন্ন করার পর পশুর গোশত স্থানীয় ও বিশ্বের অনেক গরিব-অসহায় ও দারিদ্র প্রতিষ্ঠানে দান করে থাকেন।

এমএমএস/জিকেএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]