সৌম্য খুব শিগগিরই দলে ফিরে আসবে : প্রধান নির্বাচক

বিশেষ সংবাদদাতা
বিশেষ সংবাদদাতা বিশেষ সংবাদদাতা বিকেএসপি থেকে
প্রকাশিত: ০৬:৩৭ পিএম, ১৯ অক্টোবর ২০১৮

প্রস্তুতি ম্যাচে বিসিবি একাদশের সামনে দাঁড়াতেই পারেনি জিম্বাবুয়ে। টিম বাংলাদেশের জন্য আশার খবর। চাঙ্গা হবার খোরাক। বাংলাদেশ হেড কোচ স্টিভ রোডস ও প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদীন নান্নুর মুখে তৃপ্তির হাসি। সেই সাথে ওয়ানডে সিরিজে ভালো করা তথা জয়ের আশাটাও আরও প্রবল হওয়া।

বাংলাদেশের যে দলটি ৪৮ ঘন্টা পর ওয়ানডে সিরিজে মাসাকাদজা বাহিনীর বিপক্ষে মাঠে নামবে, সেই দলের ১৫ জনে থাকা মাত্র তিন জনকে (ফজলে রাব্বি মাহমুদ, সাইফউদ্দীন ও আরিফুল) নিয়ে সাজানো বিসিবি একাদশের কাছেই খাবি খায় সফরকারিরা- স্টিভ রোডস আর নান্নু আশাবাদি হতেই পারেন। মোদ্দা কথা, আজ বিকেএসপি মাঠে বিসিবি একাদশের জয় ২১ অক্টোবর মাশরাফি বাহিনীর ভালো খেলার, সহজে জেতার বড় ধরণের রসদ।

আবার পেস বোলিং অলরাউন্ডার হিসেবে দলে ফেরা সাইফউদ্দীন ৩২ রানে ৩ উইকেট দখল করেছেন। শেষ স্পেলে চিগুম্বুরাকে অসাধারণ এক ইয়র্কারে বোল্ড করে জিম্বাবুয়ানদের ১৮০ ‘র নিচে বেঁধে ফেলতে বড় ভূমিকা রাখেন তিনি। সাইফউদ্দীনের বোলিংটাও একটা প্রাপ্তি। সেটা নির্বাচক ও টিম ম্যানেজমেন্টের জন্য আশার খোরাক।

আবার উল্টোটাও আছে। নির্বাচক ও টিম ম্যানেজমেন্ট যাকে ১৫ জনেই রাখেননি, সেই সৌম্য সরকার দারুণ সেঞ্চুরি করে মাঠ মাতিয়েছেন। আজকের ম্যাচে বিসিবি একাদশ তথা ম্যাচের সেরা পারফরমারও সৌম্য। জিম্বাবুয়ান বোলারদের রীতিমত শাসন করেছেন বাঁহাতি এই ওপেনার। তার ম্যাচ জেতানো হার না মানা শতরানেই ধরা দিয়েছে ৮ উইকেটের সহজ জয়।

সৌম্যর এই ভালো খেলা, তার বদলে নির্বাচকদের পছন্দের পারফরমার ফজলে রাব্বি মাহমুদকে স্লান করে ব্যাট হাতে জ্বলে ওঠা কোচ স্টিভ রোডস ও ও প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদীন নান্নর জন্য খানিক বিব্রতকর অবশ্যই। সব মিলে প্রধান নির্বাচকের জন্য আজকের প্রস্তুতি ম্যাচ মিশ্র অনুভূতির।

দিন শেষে অনুভূতি ও প্রতিক্রিয়া জানাতে গিয়ে নান্নু সাংবাদিকদের বলেন, ‘এই জয়টা আমাদের দলের আত্মবিশ্বাস অবশ্যই চাঙ্গা করবে। সৌম্য দুর্দান্ত ব্যাটিং করেছে। সকালে এবাদতের বোলিংটাও ইম্প্রেসিভ ছিল। যথেষ্ট ভালো বল করেছে ইবাদত। ওকে আমরা এইচপিতে গত দুই বছর ধরে নার্সিং করছিলাম। অনেক দিন পর তাকে ওয়ানডেতে নেয়া হয়েছে। আমরা ওকে লঙ্গার ভার্সনের অন্য রেডি করছিলাম। তো ওভারঅল দেখে যথেষ্ট ভালো লেগেছে যে আমাদের এইচপির প্লেয়াররা ভালো একটা অবস্থানে আছে।’

সৌম্যর ব্যাটিং নিয়ে প্রধান নির্বাচক বলেন, ‘লাঞ্চের পর সৌম্য সরকারের ব্যাটিংটা যথেষ্ট ভালো লেগেছে। আমি মনে করি ওর যে ব্যাড প্যাচ ছিল, সেটা থেকে বেরিয়ে আসতে শুরু করেছে সৌম্য। লাস্ট এনসিএল ম্যাচটাও যথেষ্ট ভালো খেলেছে। আমার বিশ্বাস, ফর্মে ফিরে আসলে সৌম্য খুব শিগগিরই আবার টিমে ফিরে আসবে।’

পেসার সাইফুদ্দিনের বোলিংটাও মনে ধরেছে প্রধান নির্বাচকের। তাই তো মুখে এমন কথা, ‘সাইফুদ্দিন আমাদের ওয়ানডে স্কোয়াডে আছে। যথেষ্ট ভালো বল করেছে। ওভারঅল পুরো দল যথেষ্ট ভালো করেছে। সবার পারফরম্যান্স ও সন্মিলিত প্রচেষ্টা দারুণ। আমাদের তরুণরা যদি এভাবে ধারাবাহিক উন্নতির মধ্যে থাকে, তাহলে সবার জন্যই প্লাটফর্ম ওপেন হয়ে যাবে।’

সৌম্যর জন্য ওপেনিংয়ে জায়গা কি খালি আছে? এ প্রশ্নের জবাবে নান্নু বলেন, ‘সৌম্য আমাদের চোখের আড়াল হয়নি। ও তো আমাদের ৩০ জনের পুলের মধ্যেই আছে। আমরা একটা প্রসেসের মধ্যে আছি। এই জিম্বাবুয়ে সিরিজের স্কোয়াডে আমাদের কিছু খেলোয়াড়কে দেখতে হচ্ছে। সৌম্য সরকারকে যদি দরকার হয়, সবসময় বলি দেশের জন্য কাউকে দরকার হলে তাকে সবসময় নেয়া হবে। এটা নিয়ে চিন্তিত হওয়ার কিছু নেই। এমন না যে, আমরা একটা প্লেয়ারকে বাদ দিয়ে দিয়েছি বলে ওকে আর ডাকা হবে না। ৩০ জন প্লেয়ার পুলের মধ্যে আছে, যাকে যখন দরকার হবে তখন দেখবেন তাকেই আমরা সুযোগ দিচ্ছি।’

ফজলে রাব্বির ব্যাটিং নিয়ে কিছু বলতে বলা হলে মিনহাজুল আবেদীন নান্নুর উত্তর, ‘সে প্রথমবারের মত জাতীয় দলকে প্রতিনিধিত্ব করছে। প্রথম ইনিংস খেলছে সে, জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে। একটা টেস্ট খেলুড়ে দেশের বিপক্ষে প্রথম খেলছে সে। সেই হিসেবে মূল্যায়ন করলে হবে না। এটা শুধু একটা অভিজ্ঞতা। সামনে ওর জন্য একটা ক্যারিয়ার পড়ে আছে। আমার বিশ্বাস, ও অবশ্যই ভালো করবে।’

এআরবি/এমএমআর/আরআইপি

আপনার মতামত লিখুন :