প্রশ্নের মুখে ‘হ্যাটট্রিক ম্যান’ আলিসের বোলিং অ্যাকশন

বিশেষ সংবাদদাতা
বিশেষ সংবাদদাতা বিশেষ সংবাদদাতা
প্রকাশিত: ১২:৫৪ এএম, ১২ জানুয়ারি ২০১৯

আম্পায়াররা মাঠে তার বোলিং নিয়ে প্রশ্ন তোলেননি। রংপুর রাইডার্সের অধিনায়ক মাশরাফি আর ক্রিকেটাররাও খেলার সময় ঢাকার অফস্পিনার আলিস আল ইসলামের বোলিং অ্যাকশন নিয়ে কোনও তির্যক মন্তব্য করেননি। তবে, ঢাকার এ অফস্পিনারের বোলিং অ্যাকশন নিয়ে কারো কারো মনে আছে সন্দেহ।

জানা গেছে, প্রথম বিভাগে খেলার সময়ও নাকি আলিস আল ইসলামের বোলিং অ্যাকশন প্রশ্নবিদ্ধ হয়েছিল। পরে বোলিং অ্যাকশন শুধরেও দেয়া হয়।

তবে এটা ঠিক, বিপিএল অভিষেকে হ্যাটট্রিক করে হৈচৈ ফেলে দেয়া সাভারের বলিয়ারপুরের এ ২৩ বছর বয়সী অফস্পিনারের অ্যাকশন নিয়ে আজ রাত অবধি শেরেবাংলায় গুঞ্জন- অনেকের মুখেই প্রশ্ন, আচ্ছা আলিসের বোলিং অ্যাকশন ঠিক আছে তো?

এদিকে আলিস আল ইসলামের বোলিং অ্যাকশন নিয়ে বিপিএল আয়োজক কমিটির মনোযোগ ও দৃষ্টি আকর্ষণ করেছে রংপুর রাইডার্স টিম ম্যানেজমেন্ট।

alis al islam

রাতে এক বিজ্ঞপ্তিতে রংপুর রাইডার্স কর্তৃপক্ষ বিপিএল গভর্নিং বডির কাছে আলিসের বোলিং অ্যাকশনটা পাখির চোখে পরখ করার আবেদন জানিয়েছে। রংপুর টিম ম্যানেজমেন্টের মূল কথা হলো, আমরা শুনেছি, আলিসের বোলিং অ্যাকশনটা রিভিউ করা হয়েছে। প্রথম বিভাগে খেলার সময় তার বোলিং নাকি শুধরে দেয়া হয়েছিল। তবে আমাদের মনে হয়, তার বোলিং অ্যাকশন এখনও পুরোপুুর সংশোধিত হয়নি। আমাদের ধারণা, ডেলিভারির সময় তার হাত ১৫ ড্রিগ্রির বেশি বেঁকে যায়। বিশেষ করে তিনি যখন দুসরা করেন, তখন।’

প্লেয়ার্স ড্রাফটে তার নাম ছিল না। তাহলে আলিস আল ইসলাম হুট করে কিভাবে বিপিএলে খেললেন? এ প্রশ্নও উঠেছে। রংপুর রাইডার্স শিবির এ প্রসঙ্গেরও অবতারণা ঘটিয়েছে।

তারা জানিয়েছে, আমরা চারদিন আগে জেনেছি যে, প্লেয়ার্স ড্রাফটের বাইরে একজন করে ক্রিকেটার খেলানো যাবে। সেই কোটায় আল ইসলাম ঢাকায় দলভুক্ত হয়েছেন। তবে আমরা তার দলভুক্তি নিয়ে কোনও প্রশ্ন তুলিনি। এটা বলতেই হচ্ছে যে, তার নাম প্রশ্নবিদ্ধ বোলিং অ্যাকশনের তালিকায় ছিল।

এআরবি/এসএএস/জেডএ

আপনার মতামত লিখুন :