ইতিহাস গড়তে পাকিস্তানের প্রয়োজন ২২৮

স্পোর্টস ডেস্ক
স্পোর্টস ডেস্ক স্পোর্টস ডেস্ক
প্রকাশিত: ১০:৪৪ এএম, ১৪ জানুয়ারি ২০১৯

লক্ষ্যটা পাহাড়সম, প্রথম দুই ম্যাচ হেরে সিরিজ খোয়ানো পাকিস্তানকে স্বান্ত্বনার জয় পেতে করতে হবে ৩৮১ রান। অতীত ইতিহাস-পরিসংখ্যান বলছে টেস্ট ক্রিকেটে ৩৮০ রানের বেশি তাড়া করে জয়ের সংখ্যা মাত্র ৭টি। একমাত্র ভারতব্যতীত আর কেউই একবারের বেশি করতে পারেনি এ অর্জন।

ওয়েস্ট ইন্ডিজ, দক্ষিণ আফ্রিকা, পাকিস্তান, অস্ট্রেলিয়া ও শ্রীলঙ্কা একবার করে জিতেছে ৩৮০’র বেশি রান তাড়া করে। ভারতই একমাত্র দল হিসেবে দুইবার তাড়া করেছে ৩৮০ রানের বেশি লক্ষ্য। এবার পাকিস্তানের সামনে রয়েছে সে সুযোগ।

জোহানেসবার্গ টেস্টে ৩৮১ রান তাড়া করে জিততে পারলে স্বান্ত্বনার জয়ের পাশাপাশি ইতিহাসও গড়ে ফেলবে সরফরাজ আহমেদের দল। সে লক্ষ্যে ম্যাচের শেষ দুই দিনে পাকিস্তানের প্রয়োজন আরো ২২৮ রান, হাতে রয়েছে ৭ উইকেট। তৃতীয় দিন শেষে তাদের সংগ্রহ ৩ উইকেটে ১৫৩ রান।

রান তাড়া করতে নেমে শুরুটা ভালো করেন দুই ওপেনার ইমাম উল হক এবং শান মাসুদ। দলীয় ৬৭ রানের মাথায় ইমাম উল হক ডেল স্টেইনের বলে উইকেটের পেছনে ক্যাচ দিয়ে সাজঘরে ফিরলে ভাঙে উদ্বোধনী জুটি। ইমামের ব্যাট থেকে আসে ৩৫ রান।

খানিক বাদে ৩৭ রান করে ফিরে যান শান মাসুদও। দলীয় ১০৪ রানের মাথায় ব্যর্থতার ধারা বজায় রেখে ব্যক্তিগত ১৫ রানে আউট হন আজহার আলী। তবে শেষ বিকেলে আর কোনো বিপদ হতে দেননি বাবর আজম এবং আসাদ শফিক।

বলের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে ৫৫ বলে ৪৯ রান যোগ করেছেন এ দুজন। ৪৭ বলে ৪৮ রান নিয়ে অপরাজিত রয়েছেন শফিক। বাবরের সংগ্রহ ২১ বলে ১৭ রান।

এর আগে ম্যাচের তৃতীয় দিনে দক্ষিণ আফ্রিকাকে ৩০৩ রানে অলআউট করে পাকিস্তান। এর সাথে প্রথম ইনিংসে পাওয়া ৭৭ রানের লিডের কল্যাণে পাকিস্তানকে ৩৮১ রানের চ্যালেঞ্জ জানাতে পেরেছে স্বাগতিকরা। এ লক্ষ্য ছুঁতে পাকিস্তানের সামনে বাকি ছিলো পুরো ২২৪ ওভার।

আগের দিনে ৫ উইকেটে ১৩৫ রান করতে পেরেছিল স্বাগতিকরা। তৃতীয় দিন সকালে দুই অপরাজিত ব্যাটসম্যান অবিচ্ছিন্ন থাকেন ১৯৫ রান পর্যন্ত। হাশিম আমলা ৭১ রান করে আউট হওয়ার পরে পুরো দায়িত্বটা নিজের কাঁধে নিয়ে নেন উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান কুইন্টন ডি কক।

প্রায় দুই বছর পরে সেঞ্চুরির দেখা পান কক। ক্যারিয়ারের চতুর্থ টেস্ট সেঞ্চুরিতে তার ব্যাট থেকে আসে ১২৯ রানের সংগ্রহ। শেষের ৪ ব্যাটসম্যানকে নিয়েই ১০৮ রান যোগ করেন কক। দক্ষিণ আফ্রিকা অলআউট হয় ৩০৩ রানে।

এসএএস/জেআইএম