বিশ্বকাপই অনিশ্চিত হয়ে গেলো স্মিথের!

স্পোর্টস ডেস্ক
স্পোর্টস ডেস্ক স্পোর্টস ডেস্ক
প্রকাশিত: ০২:০৪ পিএম, ১৩ জানুয়ারি ২০১৯

দুর্ভাগ্য বুঝি একেই বলে! বল টেম্পারিং কেলেঙ্কারির কারণে এক বছর নিষিদ্ধ। অস্ট্রেলিয়ার হয়ে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট তো খেলতেই পারছেন না, সঙ্গে খেলতে পারছেন না নিজ দেশে অনুষ্ঠিত ঘরোয়া ক্রিকেট লিগ বিগ ব্যাশে। তবে সিপিএল, বিপিএলে খেলতে পারছেন স্মিথ এবং ওয়ার্নার।

সে হিসেবে বিপিএল খেলতে এলেন অস্ট্রেলিয়ার নিষিদ্ধ এই দুই ক্রিকেটার। কিন্তু বিপিএলে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের হয়ে খেলতে এসে মহা বিপদে পড়ে গেলেন স্মিথ। পড়েছেন কনুইয়ের ইনজুরিতে। যার ফলে, আগামী মার্চে নিষেধাজ্ঞার মেয়াদ শেষ হলেও সময়মত জাতীয় দলে ফিরতে পারবেন কি না তিনি, সেটাই পড়ে গেলো কঠিন পরীক্ষার সামনে।

ভারতের বিপক্ষে হোমে ইতিহাসে প্রথমবারেরমত টেস্ট সিরিজ হেরেছে অস্ট্রেলিয়া। পুরো অস্ট্রেলিয়া দলটিরই যেন তথৈবচ অবস্থা। এই অবস্থায় স্মিথ-ওয়ার্নারকে ফেরানোর দাবি জোরালোভাবেই উঠেছিল। কিন্তু ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া তাদের দলে ফেরায়নি।

যদিও সবার ধারণা বিশ্বকাপে স্মিথ-ওয়ার্নারের দলে ফেরাটা একপ্রকার নিশ্চিতই। তবে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে দূরে থাকলেও সিপিএল এবং বিপিএলে খেলে নিজেদের পারফরম্যান্স ধরে রাখার সর্বোচ্চ চেষ্টা করে যাচ্ছেন এই দুই ক্রিকেটার।

কিন্তু ইনজুরির ভয়াল থাবায় এখন স্মিথের ফেরা-না ফেরাটা পড়ে গেলো কঠিন সংশয়ের মধ্যে। কারণ, মার্চের মধ্যে নিষেধাজ্ঞার মেয়াদ শেষ হলেও ইনজুরির কারণে যথাসময়ে তার ফেরা হচ্ছে না। যথাসময়ে ফিরতে না পারলে বিশ্বকাপের জন্য প্রস্তুতিও নিতে পারবে না তিনি।

বিপিএলে খেলতে গিয়েই কনুইয়ে আঘাত পান স্মিথ। তড়িঘড়ি করেই দেশে ফিরে যান তিনি চিকিৎসার জন্য। সেখানে আঘাত পরীক্ষার পর জানা গেলো গুরুতর ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে কনুইয়ের লিগামেন্ট। চোটের গতিপ্রকৃতি অনুধাবন করার পর ডাক্তাররা অস্ত্রোপচারেরই পরামর্শ দিয়েছেন স্মিথকে।

ডাক্তাররা এটাও জানিয়ে দিয়েছেন, অস্ত্রোপচারের পর তার ৬ সপ্তাহ সময় লাগবে রিহ্যাবে ফেরার জন্য। সুতরাং, বিপিএল তো পুরোই শেষ হয়ে গেলো তার জন্য। একই সঙ্গে পাকিস্তান সুপার লিগেও (পিএসএল) খেলতে পারছেন না তিনি। শুধু তাই নয়, মার্চে পাকিস্তানের বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজে ফেরার কথা ছিল তার এবং ওয়ার্নারের। সেখানেও স্মিথ খেলতে পারবেন কি না তা পড়ে গেছে গভীর সংশয়ে।

সর্বশেষ মার্চের ২৩ তারিখ থেকে শুরু হতে যাওয়া ভারতের ফ্রাঞ্চাইজি লিগ আইপিএলেও তার খেলা নিয়ে সংশয় তৈরি হয়েছে। অর্থ্যাৎ বিশ্বকাপের আগে নিজেকে প্রস্তুত করার যতগুলো সুযোগ ছিল, সবগুলোই একে একে হারাচ্ছেন স্মিথ, শুধুমাত্র কনুইয়ের ইনজুরির কারণে।

বিশ্বকাপের কথা মাথায় রেখে অযথা সময় নষ্ট করতে রাজি নন স্মিথ। অসি ক্রিকেট বোর্ডও ঝুঁকি নিতে রাজি হয়নি তাকে নিয়ে। রোববার সিডনিতে ফিরে আসার পর অস্ট্রেলিয়া দলের ডাক্তার তাকে পরীক্ষা-নীরিক্ষা করে দেখেছেন।

ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার মুখপাত্র জানিয়ে দিয়েছেন, ‘১৫ জানুয়ারি স্মিথের কনুইয়ে অস্ত্রোপচার হবে। এরপর অন্তত ছয় সপ্তাহ হাত স্লিংয়ে ঝুলিয়ে রাখতে হবে তাকে। সবশেষে শুরু হবে মাঠে ফেরার প্রক্রিয়া। এরপরই বলা যাবে, কবে মাঠে ফিরতে পারবেন তিনি।’

বিশ্বকাপের আগে সম্পূর্ণ ফিট হয়ে স্মিথ মাঠে ফিরতে পারবেন কি না তা এখনই বলা সম্ভব না হলেও এটা স্পষ্ট যে নির্বাসন উঠে যাওয়ার পরেও বেশ কিছুদিন মাঠের বাইরেই থাকতে হবে তাকে।

আইএইচএস/পিআর

আপনার মতামত লিখুন :