নিউজিল্যান্ড সফরের ওয়ানডে দলে ফিরছেন সাব্বির!

বিশেষ সংবাদদাতা
বিশেষ সংবাদদাতা বিশেষ সংবাদদাতা
প্রকাশিত: ০৬:১৮ পিএম, ২২ জানুয়ারি ২০১৯

স্টেডিয়াম দর্শকে ঠাসা হয়নি এখনো। তবে সমর্থক, ভক্ত ও অনুরাগীরা খেলা দেখে মজা পেতে শুরু করেছেন। বিপিএল মোটামুটি জমে উঠেছে। মানে টি-টোয়েন্টি ফরম্যাটের সত্যিকার আস্বাদন চার-ছক্কার অবাধ প্রদর্শনীও শুরু হয়ে গেছে। ঢাকা ও সিলেটে প্রথম এক দুই দিন রান কম হলেও সময়ের প্রবাহতায় বিপিএলের রান খরা কেটে গেছে অনেকটাই।

চার ও ছক্কা হাঁকানো যার এক হাতের খেল, সেই ক্রিস গেইলও খরা কাটিয়ে রানে ফিরেছেন। পরে যোগ দেয়া এবি ডি ভিলিয়ার্স প্রথম ম্যাচ থেকেই ভয়ংকর। আর রাইলি রুশো, রবি ফ্রাইলিঙ্করাও নিয়মিতই রান করে যাচ্ছেন। সব মিলে মাঝামাঝি সময়ে ঠিক জমে উঠতে শুরু করেছে বিপিএল।

সবার চোখ ও মনোযোগ তাই মাঠের লড়াইয়ের দিকে। কিন্তু এদিকে যে নিউজিল্যান্ড সফরের সময়ও ঘনিয়ে এসেছে। আগামী ১৩ ফেব্রুয়ারি থেকে নিউজিল্যান্ডের সাথে তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজ। ঐ সিরিজে অংশ নিতে বিপিএল শেষ হবার আগেই জাতীয় দলের একটা বহর চলে যাবে নিউজিল্যান্ড।

আগেই জানানো হয়েছে, সব কিছু ঠিক থাকলে বিপিএল শেষ হবার আগে (৮ ফেব্রুয়ারি রাতে) এক গ্রুপ দেশ ত্যাগ করবে। যাদের দল ফাইনালে থাকবে না, তারা চলে যাবেন আগে। আর ৮ ফেব্রুয়ারি বিপিএলে যাদের দল ফাইনাল খেলবে, তারা নিউজিল্যান্ড যাবেন ৯ ফেব্রুয়ারি।

এদিকে বিপিএলের ভিতরে চলছিল দল সাজানোর কাজ। যতদূর জানা গেছে, দল নির্বাচনের কাজ শেষ। ক্রিকেট অপারেশন্স কমিটি চেয়ারম্যান আকরাম খান জানিয়েছেন, নিউজিল্যান্ড সফরের দল ঘোষণা হবে কাল বুধবার।

আর প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদিন নান্নু বলেছেন, ‘ওয়ানডে স্কোয়াড হয়ে গেছে। আমরা ওয়ানডে স্কোয়াড চূড়ান্ত করে বোর্ডে জমাও দিয়ে ফেলেছি। বোর্ড প্রধান নাজমুল হাসান পাপন ভাইয়ের অনুমোদনের জন্য।’

নান্নু জানিয়েছেন, দল হবে ১৫ সদস্যের। দলে কি নতুন কেউ আছেন? প্রধান নির্বাচকের জবাব, ‘নাহ। আমরা পরীক্ষিত পারফরমারদের দিয়েই দল সাজানোর চেষ্টা করেছি।’ জানা গেছে, পুরনোদের মধ্যে যারা ফর্মে আছেন, তাদেরই প্রাধান্য থাকছে নিউজিল্যান্ড সফরে।

এদিকে শেরে বাংলার আশপাশে জোর গুঞ্জন, সাব্বির রহমান রুম্মন ও তাসকিন আহমেদ আছেন বিশেষ বিবেচনায়। তাদের নিউজিল্যান্ডগামী দলে দেখা গেলে অবাক হবার কিছু থাকবে না।

এর মধ্যে সাব্বিরের সম্ভাবনা খুব বেশি বলে জানা গেছে। সাব্বির ইস্যুতে সরাসরি কোন মন্তব্য না করলেও প্রধান নির্বাচক জাগো নিউজকে জানিয়েছেন, সাব্বির বিবেচনায় আছে। এবং অধিনায়ক মাশরাফি তার ব্যাপারে উৎসাহী। সাব্বিরের বিষয়টি ভাবনার মধ্যে আছে।

আগেই জানা, মাশরাফির বিশ্বকাপ স্কোয়াড একরকম চূড়ান্ত হয়েই আছে। তামিম, লিটন, সৌম্য, ইমরুল, মুশফিক, সাকিব, মাহমুদউল্লাহ, মিরাজ, মোস্তাফিজ, রুবেল মোটামুটি নিশ্চিত।

মিডল অর্ডারে একটি পজিশন এখনো সে অর্থে স্থির নয়। সেখানে মোহাম্মদ মিঠুন, আরিফুল হক আর মোসাদ্দেক ছিলেন।
কিন্তু তাদের কারোর সাম্প্রতিক ফর্ম ভাল না। বিশেষ করে আরিফুলের অবস্থা বেশ খারাপ। হেড কোচ স্টিভ রোডস অবশ্য বলেছেন, আমরা বিপিএল দেখে দল তৈরি করবো না। আগের পারফরমেন্সই অগ্রাধিকার পাবে।

তারপরও বিপিএলেই বোঝা যাচ্ছে, আারিফুল ও মোসাদ্দেক একদমই অঅউট অফ ফর্ম। তাদের অনুজ্জ্ব¦ল ও নিষ্প্রভ পারফরমেন্স দেখেও নিউজিল্যান্ড নেয়া তাই প্রশ্ন সাপেক্ষ। সেখানে বিপিএলে খুব ভাল না খেললেও শেষ দিকে এসে সাব্বির জ্বলে উঠেছেন। তার ব্যাট কথা বলেছে। এরই মধ্যে মাশরাফির দল রংপুর রাইডার্সের বিপক্ষে ৫১ বলে ৮৫ রানের ঝড়ো ইনিংস উপহার দিয়ে আবারও আালোচনায় তিনি। জানা গেছে, সাব্বিরের ব্যাপারে অধিনায়ক মাশরাফি বরাবরই উৎসাহী।

মাশরাফি সব সময় মনে করেন, ফিনিশিংয়ে সাব্বিরই সেরা অপশন। এবং বিশ্বকাপ স্কোয়াডে সাব্বিরকে পেতে মুখিয়ে ছিলেন বাংলাদেশ ওয়ানডে ক্যাপ্টেন। মাঝে শৃঙ্খলা ভঙ্গ এবং দুই দুইবার নিষিদ্ধ হবার কারণে সাব্বির ছয় মাস দলের বাইরে। এবার বিপিএলে ভাল খেলার কারণে তার আবার দলে ফেরার ক্ষেত্র তৈরী হয়েছে।

শুধু অধিনায়ক মাশরাফিই নন, অনেকেরই মত- ইনফর্ম সাব্বির অবশ্যই মিঠুন, আরিফুল ও মোসাদ্দেকের চেয়ে অনেক বেটার অপশন। তাই তার ফর্ম যদি ভাল থাকে, তাহলে তাকে বিশ্বকাপ দলে নেয়া যেতেই পারে।

কিন্তু প্রথমে ছয় মাস ঘরোয়া ক্রিকেটে নিষিদ্ধর পর শেষ ছয় মাস সাব্বির জাতীয় দলের ব্যানারে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটেরও বাইরে ছিলেন। যে কারণে শেষ কটি সিরিজে তাকে দেখা যায়নি। আগামী মার্চে সাব্বিরের জাতীয় দলের হয়ে খেলার নিষেধাজ্ঞা শেষ হবার কথা। কিন্তু নিউজিল্যান্ডে ওয়ানডে সিরিজ তো তারও প্রায় মাস খানেক আগে। তবে কি তার নিষেধাজ্ঞা তুলে নেয়া হবে?

সম্ভবত তাই হতে যাচ্ছে। কারণ একদম ছয় মাস জাতীয় দলের বাইরে থেকে সরাসরি বিশ্বকাপ খেলায় থাকবে একটা অন্যরকম ঝুঁকি। ম্যাচ প্র্যাকটিসে ঘাটতি থাকবে। সেই ঘাটতি কাটাতে তাকে নিউজিল্যান্ড সফরে ফেরানোর কথাই ভাবা হচ্ছে।

টিম ম্যানেজমেন্ট এবং নির্বাচকদের মধ্যে কথা বার্তা, আলোচনা-পর্যালোচনা চলছে। জানা গেছে অধিনায়ক মাশরাফির অনুভব, সাব্বিরের আন্তর্জাতিক ম্যাচ প্র্যাকটিসটাও জরুরী। সেই বিবেচনায় তাকে নিউজিল্যান্ডে ওয়ানডে দলে ফেরানোর চিন্তা ভাবনাও হয়েছে প্রবল। এই অবস্থায় সাব্বিরকে নিউজিল্যান্ড সফরে ১৫ জনের ওয়ানডে দলে দেখা গেলে অবাক হবার কিছু থাকবে না!

এআরবি/এমএমআর/এমকেএইচ