ভয় পাচ্ছেন কলকাতা নাইট রাইডার্সের ব্যাটসম্যানরা!

স্পোর্টস ডেস্ক
স্পোর্টস ডেস্ক স্পোর্টস ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৫:৫৭ পিএম, ২৩ অক্টোবর ২০২০

হঠাৎ কী হলো কলকাতা নাইট রাইডার্সের? দিনেশ কার্তিককে নেতৃত্ব থেকে সরিয়ে দেয়া হলো, আনা হলো ইয়ন মরগ্যানকে। কিন্তু ইংল্যান্ডের বিশ্বকাপজয়ী অধিনায়কও ভাগ্য বদলাতে পারছেন না কলকাতার। বরং বুধবারের ম্যাচের পর নতুন করে আলোচনা শুরু হয়েছে দলটিকে নিয়ে।

খেলায় হার-জিত থাকবেই। কিন্তু বুধবার রাতে রয়েল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালুরুর কাছে কলকাতা যেভাবে ধরাশায়ী হলো, সেটি প্রশ্নের জন্ম দিতেই পারে। বিরাট কোহলির দলের বিপক্ষে পুরো ২০ ওভার ব্যাটিং করে ৮ উইকেটে মাত্র ৮৪ রান তুলতে পারে মরগ্যানের দল। ম্যাচটি তারা হেরেছে ৮ উইকেটের বড় ব্যবধানে।

১০ ম্যাচের মধ্যে ৫টিতে জিতে পয়েন্ট তালিকায় এখন চার নম্বরে কলকাতা। প্লে-অফের দৌড়ে ভালোভাবেই আছে। কিন্তু ব্যাঙ্গালুরুর বিপক্ষে ব্যাটসম্যানরা যা দেখালেন, তাতে দলের সম্ভাবনা নিয়ে সন্দিহান হয়ে পড়েছেন সমর্থকরা।

এমন এক ম্যাচের পর নিজ দলের ব্যাটসম্যানদের রীতিমত ধুয়ে দিলেন কলকাতার হেড কোচ ব্রেন্ডন ম্যাককালাম। তার পরিষ্কার কথা, উইকেটে কোনো সমস্যা ছিল না। বরং দলের ব্যাটসম্যানরা ভয় পেয়ে এমন করেছে।

ম্যাককালাম বলেন, ‘একবারও মনে হয়নি উইকেটে কোনো জুজু ছিল। সিরাজ খুব ভালো জায়গায় বল রেখেছে ঠিকই। কিন্তু আমাদের আচরণ দেখেই বোঝা যাচ্ছিল, ভয় পেয়ে গিয়েছি। খেলার শুরুতেই বলে দেওয়া হয়েছিল, মাঠে নেমে প্রত্যকে যেন মরিয়া মনোভাব তুলে ধরার চেষ্টা করে। যদিও তা একেবারেই দেখা যায়নি। আসন্ন ম্যাচের আগে সব ভুল শুধরে নিতে হবে।’

কোহলিদের বিপক্ষে বড় হার কলকাতা সমর্থকদের চোখে আঙুল দিয়ে দেখিয়ে দিল, দুই ক্যারিবীয় সুনিল নারিন ও আন্দ্রে রাসেলের ওপর কতটা নির্ভরশীল দল। তারা দুজন ওই ম্যাচে খেলতে পারেননি। কলকাতা শিবির সূত্রে খবর, রাসেলের পায়ের চোট এখনও সারেনি। নারাইনের পায়ের পেশিতে হালকা টান ধরেছিল। যার শুশ্রূষা এখনও চলছে।

অধিনায়ক ইয়ন মরগ্যান মেনে নিচ্ছেন, এই দুজনকে তার দলের খুব দরকার। মরগান বলেন, ‘রাসেল ও নারিন দলে ফিরলে অনেকটাই হয়তো পরিবর্তন ঘটবে। ওদের মতো দুজন দলে না থাকাটা বড় পার্থক্য গড়ে দিয়েছে।’

এমএমআর/এমএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]