পাকিস্তান নিরাপদ: এক যোগে ক্রিকেটারদের বার্তা

স্পোর্টস ডেস্ক
স্পোর্টস ডেস্ক স্পোর্টস ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৯:২০ এএম, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২১

প্রথমে শোনা গিয়েছিল, নিউজিল্যান্ড ক্রিকেট দলের তিন ক্রিকেটার আক্রান্ত হয়েছেন করোনাভাইরাসে। যে কারণে যথাসময়ে হচ্ছে না, পাকিস্তান-নিউজিল্যান্ড সিরিজের প্রথম ওয়ানডের টস। কিন্তু খানিকবাদেই জানা গেলো আসল কারণ। নিরাপত্তাজনিত কারণ দেখিয়ে শুধু প্রথম ওয়ানডে নয়, পুরো সফরই স্থগিত করে দিয়েছে নিউজিল্যান্ড।

ম্যাচ মাঠে গড়ানোর ঠিক আগে নিউজিল্যান্ডের এমন সিদ্ধান্তে হতবাক ক্রিকেট বিশ্ব আর হতাশ পাকিস্তানের সাবেক-বর্তমান ক্রিকেটাররা। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম টুইটারে পাকিস্তানের ক্রিকেটাররা নিজেদের প্রতিক্রিয়ায় জানাচ্ছেন, তাদের দেশ ক্রিকেট খেলার জন্য নিরাপদ।

অধিনায়ক বাবর আজম লিখেছেন, ‘এমনভাবে সিরিজটি স্থগিত হয়ে যাওয়ায় অনেক বেশি হতাশ। এ সিরিজটি পাকিস্তান ক্রিকেটের লাখো সমর্থকের মুখে হাসি ফোটাতে পারতো। আমাদের নিরাপত্তা এজেন্সির সামর্থ্য ও সক্ষমতায় আমার পূর্ণ আস্থা রয়েছে। তারা আমাদের গর্ব, সবসময় তা-ই থাকবে।’

নিজেদের দেশকে নিরাপদ জানিয়ে বাঁহাতি ওপেনার ইমাম উল হকের বার্তা, ‘আমাদের দেশ নিরাপদ। ক্রিকেট খেলার জন্য নিরাপদ আমাদের দেশ। আমাদের সব সমর্থক ও দলের সবার জন্য এটা হৃদয় বিদারক। আমরা আমাদের চেষ্টা চালিয়ে যাবো।’

দলের লেগস্পিনার শাদাব খান লিখেছেন, ‘এটা হৃদয়বিদারক। পাকিস্তানিরা ক্রিকেট অনেক ভালোবাসে। এখানে ক্রিকেট ফেরত আনার জন্য আমরা কঠোর পরিশ্রম করেছি। পিএসএল এবং সফর করা অন্যান্য দলগুলো আমাদের আতিথেয়তা ও নিরাপত্তা ব্যবস্থার সাক্ষ্য দেয়। আমরা চেষ্টা চালিয়ে যাবো।’

প্রায় একই সুরে ডানহাতি পেসার হাসান আলি বলেছেন, ‘দর্শকদের কথা ভেবে আমার আরও খারাপ লাগছে। এই খবরটি শুনে তাদের না জানি কী অবস্থা। বিশ্বের কাছে আমি আবারও বলতে চাই, ক্রিকেট খেলার জন্য নিরাপদ আমাদের দেশ। সমর্থকদের কাছে আমি ওয়াদা করছি, পাকিস্তান দল আপনাদের মুখে হাসি ফোটাবে।’

বাঁহাতি পেসার ওয়াহাব রিয়াজ লিখেছেন, ‘এখন আমি অনুভূতিশূন্য, পুরোপুরি হতাশ। গত কয়েকবছর ধরেই আমরা প্রমাণ করে এসেছি যে, পাকিস্তান ক্রিকেটের জন্য নিরাপদ। শুরু হওয়ার আগেই সফরটা এভাবে শেষ হয়ে যাওয়া দুঃখজনক।’

ইংল্যান্ডের নাগরিকত্ব নেয়া পাকিস্তানের সাবেক পেস বোলিং অলরাউন্ডার আজহার মাহমুদের মন্তব্য, ‘পাকিস্তান একটি নিরাপদ দেশ। যখন আন্তর্জাতিক খেলা থাকে, তখন আমরা প্রাদেশিক পর্যায়ের নিরাপত্তা দিয়ে থাকি। যাই হোক, পেছনে যা কারণই ছিলো, আমি আশা করবো স্বচ্ছতা রাখা হবে। যাতে করে পাকিস্তানে ক্রিকেটে টিকে থাকতে পারে।’

এসএএস/এএসএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]