নেইমার-কাভানির গোলে পিএসজির জয়

স্পোর্টস ডেস্ক
স্পোর্টস ডেস্ক স্পোর্টস ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৪:১৭ এএম, ২৭ নভেম্বর ২০১৭

দুর্দান্ত খেললেন নেইমার, গোলও করলেন। সঙ্গে কাভানির গোলে বর্তমান চ্যাম্পিয়ন মোনাকো ২-১ গোলে হারিয়ে শীর্ষস্থান আরও সংহত করলো পিএসজি। গোলের সুযোগগুলো নষ্ট না হলে লিগে জয়ের ব্যবধান আরও বড় হতে পারতো গত মৌসুমের রানার্সআপদের।

মোনাকোর মাঠে ম্যাচের দ্বিতীয় মিনিটেই এগিয়ে যেতে পারত পিএসজি। নেইমারের বাড়ানো বল ধরে গোলরক্ষককে কাটিয়েও ফাঁকা জালে পাঠাতে পারেননি মোনাকো থেকে চলতি মৌসুমে ধারে পিএসজিতে যোগ দেওয়া কিলিয়ান এমবাপে। কোনাকুনি শটে বল যায় সাইড নেটে।

ম্যাচের অষ্টম মিনিটে আরেকটি সুযোগ নষ্ট করেন ইউলিয়ান ড্রাক্সলার। ডান দিক থেকে এমবাপের নিচু ক্রসে পা লাগিয়েছিলেন জার্মানির এই তারকা; তবে এবারও বল জড়ায় সাইড নেটে।

তবে সুযোগ নষ্ট করেননি চলতি মৌসুমে দুর্দান্ত ফর্মে থাকা কাভানি। ম্যাচের ১৯ মিনিটে ড্রাক্সলারের কাছ থেকে বল পেয়ে ডান পায়ের টোকায় জালে পাঠান উরুগুয়ের এই স্ট্রাইকার। এ মৌসুমে লিগ ওয়ানে এই স্ট্রাইকারের গোলদাতার গোল হলো ১৬টি।

বিরতির ঠিক আগে ব্যবধান বাড়ানোর সহজ সুযোগ নষ্ট করে জার্মান উইঙ্গার ড্রাক্সলার। গোলরক্ষককে একা পেয়েও ব্যবধান বাড়াতে ব্যর্থ হন এই তারকা।

neimar-2

বিরতি থেকে ফিরেই গোলের সুযোগ পেয়েছিলেন নেইমার। তবে কাভানির বাড়ানো বলে ব্রাজিলিয়ান ফরোয়ার্ডের শট লাগে পোস্টে। পরের মিনিটেই নেইমারের বাড়ানো বল ধরে সামনে থাকা গোলরক্ষকের মাথার উপর দিয়ে পাঠাতে চেয়েছিলেন এমবাপে। শেষ মুহুর্তে সুবাসিচ বলে হাত ছোঁয়ানোর পর জেমারসন হেডে বিপদমুক্ত করেন।

ম্যাচের ৫২ মিনিটে গোলের দেখা পান পুরো ম্যাচে দুর্দান্ত খেলা নেইমার। ডি-বক্সে তুরে তাকে ধাক্কা দিয়ে ফেলে দেওয়ায় পেনাল্টি কিকের বাঁশি বাজিয়েছিলেন রেফারি। স্পট কিক থেকে ব্যবধান বাড়ান নেইমার। পিএসজিতে যোগ দেওয়ার পর নেইমারের এটি অষ্টম গোল।

ম্যাচের ৭৩ মিনিটে আবারও গোল মিস করে এমবাপে। নেইমারের বাড়ানো বল ধরে এগিয়ে আসা গোলরক্ষককে ফাঁকি দিতে পারেননি ফরাসি এই তারকা। দুই মিনিট পর বাঁ দিক থেকে কাভানির ক্রস বিপদমুক্ত করতে গিয়ে নিজের জালেই পাঠাচ্ছিলেন জেমারসন। বল পোস্টে লাগায় বেঁচে যায় মোনাকো।
একটু পরই ম্যাচের সবচেয়ে সহজ সুযোগটি নষ্ট করেন কাভানি। নেইমারের ক্রসে একেবারে ফাঁকায় দাঁড়িয়ে থেকেও হেড করেন পোস্টের বাইরে।

এদিকে ম্যাচের ৮১ মিনিটে গোলের দেখা পায় মোনাকো। জোয়াও মোওতিনিয়োর ফ্রি-কিক সামনে দাঁড়িয়ে থাকা এমবাপের গায়ে লেগে দিক পাল্টে জালে জড়ায়। বাকি সময়ে আর কোন গোল না হলে জয়ের আনন্দ নিয়ে মাঠ ছাড়ে পিএসজি। এ জয়ে ১৪ ম্যাচে পিএসজির পয়েন্ট ৩৮। আর ২৯ পয়েন্ট নিয়ে গোল ব্যবধানে অলিম্পিক লিওঁর চেয়ে পিছিয়ে তৃতীয় স্থানে আছে মোনাকো।

এমআর/এমএস

আপনার মতামত লিখুন :