শেখ জামালকে সেমিতে তুললেন দুই গাম্বিয়ান

বিশেষ সংবাদদাতা
বিশেষ সংবাদদাতা বিশেষ সংবাদদাতা
প্রকাশিত: ০৮:০২ পিএম, ০৯ নভেম্বর ২০১৮

দুই গাম্বিয়ান ফরোয়ার্ড সাইনে বোজাং ও সলোমন কিং ক্যানফরমের দুর্দান্ত বোঝাপড়ায় ফেডারেশন কাপ ফুটবলের সেমিফাইনালে উঠেছে শেখ জামাল ধানমন্ডি ক্লাব। শুক্রবার বঙ্গবন্ধু স্টেডিয়ামে টুর্নামেন্টের দ্বিতীয় কোয়ার্টার ফাইনালে শেখ জামাল ২-১ গোলে হারিয়েছে সাইফ স্পোর্টিং ক্লাবকে। সাবেক চ্যাম্পিয়ন জামালের হয়ে জোড়া গোল করেছেন সাইনে বোজাং। দুটি গোলের উৎসই ছিলেন তার স্বদেশী সলোমন কিং ক্যানফরম।

গত মৌসুমে শীর্ষে লিগে ওঠার পর সাইফ দল গড়েছিল তারকাদের সমন্বয়ে। কিন্তু তারা মৌসুম শেষ করেছিল শূন্য হাতে। মৌসুমসূচক টুর্নামেন্ট ফেডারেশন কাপের গ্রুপ পর্ব থেকেই বিদায় নিয়েছিল তারা। এবার দল গড়তে তারকার পিছে না ছুটে তারুণ্যে গুরুত্ব দিয়েছিল ক্লাবটি। এবার তারা বিদায় নিলো ফেডারেশন কাপের কোয়ার্টার ফাইনাল থেকে।

দুই গাম্বিয়ান বোজাং ও সলোমন কিং দিন দিন অপ্রতিরোধ্য জুটিতে পরিণত হচ্ছেন। আক্রমণভাগের এ দুই বিদেশি রীতিমতো ত্রাস সৃষ্টি করেছেন সাইফের রক্ষণভাগে। মাঝ মাঠ থেকে যখনই তাদের পায়ে বল এসেছে তখনই তৈরি হয়েছে আক্রমণ। দলের আর্জেন্টাইন ফরোয়ার্ড লুসিয়ানো পেরেজ সহজ সুযোগুলো নষ্ট না করলে শেখ জামাল আরো বড় ব্যবধানের জয় নিয়ে মাঠ ছাড়তে পারতো।

শেখ জামালের নাইজেরিয়ান কোচ যোসেফ আফুসি অধিনায়কের দায়িত্ব দিয়েছেন গাম্বিয়ান সলোমন কিংকে। আর্মব্যান্ড পড়ার জন্যই পড়েননি সলোমন, কিভাবে দলকে নেতৃত্ব দিতে হয় তাও দেখাচ্ছেন মাঠে। সামনে থেকে নেতৃত্ব দিচ্ছেন শেখ জামালকে। দলের প্রায় সব আক্রমণেই ছিলো তার অবদান। স্বদেশীকে দিয়ে দুটি গোল করিয়েছেন। তবে গোল করাতে পারেননি কেবল লুসিয়ানোকে দিয়ে। অমার্জনীয় মিস করেছেন এ আর্জেন্টাইন। দুই গজ দূর থেকেও তিনি যখন পোস্টে শট নিতে পারেননি তখন বিশ্বাসই হচ্ছিল না তিনি ম্যারাডোনা-মেসির দেশের ফুটবলার।

৩০ মিনিটে সলোমনের ক্রস থেকে প্রথম গোল করেন বোজাং। সামনে ড্রপ খাওয়া বল বুক দিয়ে নামিয়ে গোলরক্ষকের মাথার উপর দিয়ে পাঠিয়ে দেন জালে। সাইফ ৭১ মিনিটে ম্যাচে ফিরেছিল কলোম্বিয়ান করডোবার দুর্দান্ত এক গোলে। প্রায় ৩০ গজ দূর থেকে তার জোড়ালো শট আটকানোর কোনো সুযোগই পাননি জামালের গোলরক্ষক। তবে শেষ রক্ষা হয়নি সাইফের। ৭৬ মিনিটে ডান দিক থেকে সলোমন কিংয়ের ক্রসে হেডে নিজের দ্বিতীয় গোল করেন বোজাং।

আরআই/এমএমআর/পিআর

আপনার মতামত লিখুন :