‘প্রথম ম্যাচ, তাই ভয়ে ভয়ে ছিলাম’

রফিকুল ইসলাম
রফিকুল ইসলাম রফিকুল ইসলাম , বিশেষ সংবাদদাতা
প্রকাশিত: ০৫:০৩ পিএম, ১৭ আগস্ট ২০২১

ঘরোয়া ফুটবলের সর্বোচ্চ আসর বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগে সহকারি রেফারির দায়িত্ব পালনের মধ্যে দিয়ে ইতিহাসের অংশ হয়ে গেছেন সালাম আক্তার মনি। প্রিমিয়ার লিগ পরিচালনার অভিজ্ঞতা নিয়ে কথা বলেছেন এই নারী রেফারি।

জাগো নিউজ : দেশের প্রথম নারী রেফারি হিসেবে ছেলেদের প্রিমিয়ার লিগের ম্যাচ পরিচালনা করেছেন। কেমন ছিল প্রথম দিনের অভিজ্ঞতা?

সালমা মনি : আমি খুব ভয়ে ভয়ে ছিলাম। অনেক টেনশন কাজ করছিল। তবে শেষ পর্যন্ত সবকিছু ভালোভাবেই হয়েছে। আমি খুবই খুশি যে, দায়িত্ব সঠিকভাবে পালন করতে পেরেছি।

জাগো নিউজ : আগে কখনো ছেলেদের ম্যাচ চালিয়েছেন?
সালমা মনি : ২০১৫ সালে পাইওনিয়ারের ম্যাচ চালিয়েছি। আউটার স্টেডিয়ামে এবং লালবাগ মাঠে ৫-৬ টি ম্যাচ চালিয়েছিলাম।

জাগো নিউজ : আপনি ফিফা রেফারি। তো প্রিমিয়ার লিগ চালাতে নামার আগে ভয়ে ছিলেন কেন?

সালমা মনি : আসলে আমি অনেকদিন সহকারি রেফারি হিসেবে খেলা চালাইনি। কিছুদিন আগে শেষ হওয়া নারী লিগে যে কয়টি ম্যাচ চালিয়েছি তা বাঁশি হাতে। অনেক দিন পর সহকারি রেফারি এবং তাও ছেলেদের প্রিমিয়ার লিগ। কেমন করবো সেই টেনশনে ছিলাম।

জাগো নিউজ : প্রিমিয়ার লিগের ম্যাচে দায়িত্ব পালন করবেন সেটা কয়দিন আগে জেনেছিলেন?
সালমা মনি : রেফারিদের সাধারণত একদিন আগে জানানো হয়। আমাকেও আজাদ রহমান (সাবেক ফিফা রেফারি) স্যার আগেরদিন জানিয়েছিলেন।

জাগো নিউজ : ম্যাচ চালানোর সুযোগ পাবেন এমন প্রত্যাশা ছিল?
সালমা মনি : আমার খুব ইচ্ছা ছিল। তাছাড়া প্রয়োজনও ছিল। এই ম্যাচের ভিডিও ফিফায় পাঠাবে আমার পারফরম্যান্স মূল্যায়নের জন্য।

জাগো নিউজ : গত বছর ফিফার সহকারি রেফারি হিসেবে পাশ করেছিলেন। ২০২২ সালের জন্য পরীক্ষা কবে?
সালমা মনি : এ মাসেই হওয়ার কথা আছে। না হলে আশা করি, সেপ্টেম্বরে হবে।

জাগো নিউজ : ধন্যবাদ আপনাকে।
সালমা মনি : আপনাকেও ধন্যবাদ

আরআই/আইএইচএস/এএসএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]