বিশ্বকাপ ফাইনালে চোখ মরেনোর

স্পোর্টস ডেস্ক
স্পোর্টস ডেস্ক স্পোর্টস ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৪:৩১ পিএম, ২০ মে ২০১৮

বিশ্বকাপে বরাবরই নিয়মিত মুখ মেক্সিকো। এবারো তার ব্যাতিক্রম নয়। বাছাইপর্বে বেশ ভালোভাবেই উতরে রাশিয়ার টিকিট পেয়েছে উত্তর আমেরিকার এ দেশটি। এবারের বিশ্বকাপে মোটামুটি কঠিন এক গ্রুপেই পড়েছে মেক্সিকো। জার্মানি, সুইডেন, দক্ষিণ কোরিয়া এবং মেক্সিকোকে নিয়ে গড়া এ গ্রুপ থেকে নকআউট রাউন্ডে যেতে বেশ কঠিন পরীক্ষার মুখোমুখিই হতে হবে মেক্সিকানদের। স্বাভাবিকভাবেই অন্যান্যবারের মতো এবারো মেক্সিকোকে নিয়ে সমর্থকদের আশা আকাশচুম্বী। একজন মেক্সিকান খেলোয়াড় হিসেবে হেক্টর মরেনোও এর ব্যাতিক্রম নন।

৩০ বছর বয়সী এ রিয়াল সোসিয়েদাদ ডিফেন্ডার ইতোমধ্যেই খেলে ফেলেছেন দুটি বিশ্বকাপ। নিজের তৃতীয় বিশ্বকাপের দোরগোড়ায় এসে বিশ্বকাপে চোখ রাখছেন মরেনো। সম্প্রতি বিশ্বকাপে নিজেদের প্রত্যাশা, সম্ভাবনা, সমর্থকদের প্রত্যাশা এবং চাপ সবকিছু নিয়েই ফিফ ডটকমকে এক সাক্ষাৎকারে জানিয়েছেন...

প্রশ্ন : বিশ্বকাপে এবার আপনাদের লক্ষ্য কি নির্ধারণ করেছেন?

মরেনো : সত্যি কথা বলতে আমার প্রথম লক্ষ্য হচ্ছে একজন বিশ্বকাপজয়ী সদস্য হওয়া। আপনি অন্য যে কোন খেলোয়াড়কে এই কথা জিজ্ঞেস করলে তারাও একই উত্তর দেবে। আর আমি জানি আমার সতীর্থরাও এই মানসিকতা নিয়েই প্রস্তুত আছে। আমরা রাশিয়ায় জিততেই যাচ্ছি।

অবশ্যই আমরা জানি যে আমাদের কাঙ্ক্ষিত লক্ষ্য অর্জনে অনেক বাঁধা আসতে পারে। যেমনঃ ভাগ্য, রেফারি, প্রতিপক্ষ। তবে আমি অন্তত এতটুকু নিশ্চিত করতে চাই, যখন আমি রাশিয়া থেকে বাড়ি ফিরে আসবো তখন যেন আমার পরিবার আমার জন্যে গর্ববোধ করে; তখন যেন আমি বলতে পারি আমি দেশকে কিছু দিতে পেরেছি।

প্রশ্ন : বিশ্বকাপকে সামনে রেখে আপনাদের প্রস্তুতি কতটুকু হয়েছে বলে মনে করছেন?

মরেনো : হুয়ান কার্লোস অজোরিও দায়িত্ব নেবার পর থেকে আমরা এমনভাবে প্রস্তুত হয়েছি যা আগে কখনো হইনি এবং আমি ব্যক্তিগতভাবেও অনেক উন্নতি করেছি। তিনি শুধু আমাদের আমাদের করণীয় সম্পর্কে অবগতই করেন না এর পাশাপাশি তিনি আমাদের সিদ্ধান্ত নেবার সুযোগও দেন। তিনি আমাদের উন্নতি করতে সব ধরণের কাজই করছেন।

যখন আপনি খেলতে বাইরে যান আপনার পরিষ্কার পরিকল্পনা থাকে। মাঝেমাঝে এটা কাজ করে, মাঝেমাঝে করে না। এইভাবে আমরা দুটি প্রস্তুতি ম্যাচ হেরেছি। এটা আসলে আমাদের শেখারই একটি অংশ। আপনার শুধু এখান থেকে শিখতে হবে এবং পরবর্তী ম্যাচের জন্যে প্রস্তুত হতে হবে। আর সেক্ষেত্রে আমাদের সর্বোচ্চ সম্ভাব্য ব্যাকআপ রয়েছে। আমাদের একজন নতুন ডাক্তার এবং মনোবিদ রয়েছে। তারা আমাদের বিশ্বকাপ চ্যাম্পিয়ন করবে না কিন্ত তারা নিশ্চিতভাবেই আমাদেরকে আমাদের লক্ষ্যের কাছাকাছি পৌঁছাতে সাহায্য করবে।

প্রশ্ন : আপনাদের নিয়ে সমর্থকদের প্রত্যাশা কেমন?

মরেনো : মেক্সিকান সমর্থকেরা খুবই আবেগী এবং তারা তাদের জাতীয় দল নিয়ে আশাবাদী। আমরা তা জানি ও বুঝি। যেসব লোকজন আমার আশেপাশে থাকে তারা আমার সাথে ইতিবাচক কথা বলে এবং শুভকামনা জানায়। রাস্তায় কিংবা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোতে তারা সবসময় আমাদের সমর্থন জানায় বিশ্বকাপের জন্যে।

অবশ্যই সমালোচকরাও রয়েছে কিন্ত আপনাকে তা নিয়ে মাথা ঘামালে চলবে না এবং সহজভাবেই তা নিতে হবে। কিন্ত সাধারণত জনগণ সবসময়ই আমাদের ভালো চায়। আমরাও তাদের খুশি করতে চাই কারণ ফুটবলের অন্যতম শর্তই এটি।

প্রশ্ন : এবার আপনার দল নিয়ে কিছু বলুন।

মরেনো : আমি আমার অধিকাংশ সতীর্থদেরই অনেক আগে থেকে চিনি। এবং এটা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। ২০১৪ বিশ্বকাপের ভিত্তিটা এখনো রয়েছে। এ চার বছরে আমরা আরো অভিজ্ঞতা এবং পেশাদারিত্ব অর্জন করেছি। আমার এখন একটি পরিবার রয়েছে এবং আমার প্রাত্যহিক কাজকর্মে আমি অভ্যস্ত যা আমাকে আমার কাজে মনযোগ দিতে সহায়তা করে। আমাদের সবার বেলায়ই এরকম। সৌভাগ্যজনকভাবে আমাদের সবারই একটি সুন্দর এবং নিয়মতান্ত্রিক ব্যক্তি জীবন রয়েছে।

আমরা প্রতিটি সম্ভাব্য পরিস্থিতির মধ্যে বিগত কয়েক বছরে পড়েছি। আর এটাই আমাদের শিখতে, উন্নতি করতে এবং একতাবদ্ধ করতে সাহায্য করছে। আমরা এখন আগের চেয়ে অনেক একতাবদ্ধ এবং আমদের দুর্দান্ত খেলোয়াড়েরা রয়েছে। এতে কোন প্রশ্ন নেই যে এটা রাশিয়াতে একটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখতে চলেছে।

ডিকেটি/আরআর/এমএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]