শিলা-মাবিয়া-শাকিলদের ফ্ল্যাট পরিদর্শন করলেন গণপূর্তমন্ত্রী

বিশেষ সংবাদদাতা
বিশেষ সংবাদদাতা বিশেষ সংবাদদাতা
প্রকাশিত: ০৯:৫২ পিএম, ২৭ অক্টোবর ২০১৯

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বৃহস্পতিবার গত এসএ গেমসে স্বর্ণজয়ী তিন ক্রীড়াবিদ সাঁতারু মাহফুজা খাতুন শিলা, ভারোত্তোলক মাবিয়া আক্তার সীমান্ত ও শ্যুটার শাকিল আহমেদের পুরস্কারের ফ্ল্যাট বুঝিয়ে দিয়েছেন।

পরের দিন সকালেই সেই মিরপুর-১৫ এ সেই ফ্ল্যাট পরিদর্শন করেছেন গৃহায়ন ও গনপূর্তমন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম এবং সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের সচিবসহ উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা।

এই তিন ক্রীড়াবিদের জন্য প্রধানমন্ত্রী ঘোষিত ফ্ল্যাট তৈরি করা হয়েছিল উত্তরা-১৮ নম্বরে রাজউকের প্লটে। কিন্তু সেখান থেকে ক্রীড়াবিদদের অনুশীলন করতে মিরপুর, গুলশান আর গুলিস্তান আশা-যাওয়া করা কস্টসাধ্য বলে প্রধানমন্ত্রী তাদের জন্য মিরপুরে ফ্ল্যাটের ব্যবস্থা করেন।

তিন ক্রীড়াবিদের ফ্ল্যাট কতটা প্রস্তুত তা দেখতেই গৃহায়ন ও গনপূর্তমন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম পরিদর্শনে গিয়েছিলেন। এ সময় সাঁতারু মাহফুজা খাতুন শিলা, শ্যুটার শাকিল আহমেদ ও ভারোত্তোলক মাবিয়া আক্তার সীমান্তের বাবা হারুনুর রশীদ উপস্থিত ছিলেন। মাবিয়া একটি প্রতিযোগিতায় অংশ নিতে উত্তর কোরিয়ায় আছেন।

‘মন্ত্রী মহোদয় আমাদের ফ্ল্যাটের অবস্থা দেখতে গিয়েছিলেন। সবই প্রস্তুত। সামান্য যে কাজগুলো আছে তা কয়েকদিন লাগবে। আমরা ডিসেম্বরের প্রথম সপ্তাহে তিনজন এক সাথে উঠে যাবো। এর আগে ফ্ল্যাট রেজিষ্ট্রেশনের প্রয়োজন আছে। সেটাও হয়ে যাবে। এর খরচ মন্ত্রণালয়ে দেবে বলে প্রধানমন্ত্রী বলে দিয়েছেন’- জানিয়েছেন শ্যুটার শাকিল আহমেদ।

২০১৬ সালে ভারতের শিলং ও গুয়াহাটিতে অনুষ্ঠিত এসএ গেমসে সাঁতারু মাহফুজা খাতুন শিলা ৫০ ও ১০০ মিটার ব্রেস্ট স্ট্রোকে, ভারোত্তোলক মাবিয়া আক্তার সীমান্ত ৬৩ কেজি ওজন শ্রেনীতে এবং শ্যুটার শাকিল আহমেদ ৫০ মিটার এয়ার পিস্তলে স্বর্ণ পদক জেতেন।

তারপরই প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সাফল্যের পুরস্কার হিসেবে তাদের প্রত্যেককে ফ্ল্যাট দেয়ার ঘোষণা দিয়েছিলেন। প্রধানমন্ত্রীর উপহারের সেই ফ্ল্যাটে ওঠার অপেক্ষায় দেশের মুখ উজ্জ্বল করা এই তিন ক্রীড়াবিদ।

আরআই/এসএএস/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]