রোমানের দিকে তাকিয়ে দেশ, আবার তীর হাতে নামছেন মঙ্গলবার

বিশেষ সংবাদদাতা
বিশেষ সংবাদদাতা বিশেষ সংবাদদাতা
প্রকাশিত: ০৭:৩৭ পিএম, ২৬ জুলাই ২০২১

টোকিও অলিম্পিক গেমস ভিলেজের সামনে সারিসারি উড়ছে বিভিন্ন দেশের জাতীয় পতাকা। নানা রঙ, নানা ডিজাইন; পতাকার মেলায় বাহারী এক পরিবেশ। পতাকার সেই সারির মধ্যে রোমান সানার ক্যামেরা খুঁজে বের করেছে লাল-সবুজটি। বাংলাদেশের জাতীয় পতাকা।

ভিলেজের বিশাল ভবনগুলোর সামনের রাস্তায় উড়তে থাকা লাল-সবুজ পতাকার ছবি তুলে সঙ্গেসঙ্গেই পোস্ট করেছেন নিজের ফেসবুক ওয়ালে। লিখেছেন, ‘আমার সোনার বাংলা, আমি তোমায় ভালোবাসি’। লেখার আগে-পরে সবুজ ও লালের ইমোজি।

টোকিও অলিম্পিকে বাংলাদেশের যে ৬ ক্রীড়াবিদ অংশ নিচ্ছেন তাদের মধ্যে রোমান সানাই কেবল কোয়ালিফাই করে টিকিট পেয়েছেন। বাকিরা গেছেন বিশেষ বিবেচনায় ‘ওয়াইল্ডকার্ড’ পেয়ে। এই প্রথম অলিম্পিক গেমস ঘিরে বাংলাদেশের প্রত্যাশার একটা বলয় তৈরি হয়েছে। সেটা রোমানকে ঘিরেই। অলিম্পিকে পদক পাওয়ার স্বপ্ন না দেখলেও রোমান ভালো কিছু করে অতীতের সব পারফরম্যান্স ছাড়িয়ে যাবেন- সেই আশা করা বাড়াবাড়ি নয়।

এরইমধ্যে টোকিও অলিম্পিকে দুটি পরীক্ষা দিয়েছেন রোমান। দুটিতেই তার পারফরম্যান্স আশা জাগানিয়া। ব্যক্তিগত ইভেন্টের র‌্যাংকিং রাউন্ডে ৬৬২ স্কোর করে হয়েছেন সতেরতম। রোমানের পারফরম্যান্সের কারণেই বাংলদেশ খেলার সুযোগ পেয়েছিল মিশ্র দলগত ইভেন্টে। মিশ্র দলগত ইভেন্টের প্রথম রাউন্ডে গেমস আরচারির সবচেয়ে কঠিন প্রতিপক্ষ কোরিয়া পড়েছিল রোমান-দিয়ার সামনে। যে কারণে সামনে আর এগুনো হয়নি।

রোমানের আসল ইভেন্ট তো সামনে। তবে বেশি দূরে নয়, মঙ্গলবার বাংলাদেশ সময় সকাল ১০টা ১৮ মিনিটে রিকার্ভ এককের ইলিমিনেশন রাউন্ডে ব্রিটেনের টম হলের মুখোমুখি হবে বাংলাদেশের সেরা আরচার।

গ্রেট ব্রিটেনের আরচার বলে ভয়ের কিছু নেই। কারণ, র‌্যাংকিং রাউন্ডে টম হলের চেয়ে রোমান অনেক বেশি স্কোর করেছিলেন। ৬৬২ স্কোর করে রোমান হয়েছিলেন ১৭তম, টম ৫৪৯ স্কোর করে হয়েছিলেন ৪৮তম। ৩১ ধাপ পেছনে থাকা আরচারের বিপক্ষে বাংলাদেশের রোমান সানাই তো ফেবারিট।

তবে নিশানার খেলা আরচারি। আর পর্বটা নকআউট। তাই সময়টা যার ভালো যাবে, সাফল্যের দরজা খুলবে তার। রোমান কতদূর যেতে পারেন তা দেখার অপেক্ষায় দেশ।

ব্যক্তিগ ইভেন্টে আরেক আরচার দিয়া সিদ্দিকী খেলতে নামবেন বৃহস্পতিবার। তার প্রতিপক্ষ বেলারুশ।

আরআই/আইএইচএস/

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]