অ্যান্ড্রয়েডের সেরা ৫ ক্লিনার অ্যাপ

তথ্যপ্রযুক্তি ডেস্ক
তথ্যপ্রযুক্তি ডেস্ক তথ্যপ্রযুক্তি ডেস্ক
প্রকাশিত: ০১:১০ পিএম, ২৭ জানুয়ারি ২০২২

দিনের বেশির ভাগ সময়ই এখন কাটছে ফোনের স্ক্রিনে দিকে চেয়ে থেকে। কোনো একটি অ্যাপে ঢুকলেন কিংবা কোথাও ব্রাউজ করার পর নানান এড আসতে থাকে। ক্লিক করলেন তো বিপদ ঘরে নিয়ে এলেন। এসব এড কিংবা লিংকে থাকে ভাইরাস এবং ম্যালওয়্যার।

এরপর আপনার ফোনের দফারফা অবস্থা করে ছাড়বে ভাইরাসগুলো। ফোনের তথ্য হ্যাক থেকে শুরু করেন নানান ধরনের ঝামেলায় পড়তে পারেন। এজন্য নিয়মিত আপনার অ্যান্ড্রয়েড ফোনটি ক্লিন করুন।

তবে এ ব্যাপারে বেশিরভাগ মানুষই উদাসীন। বড় কোনো সমস্যায় না পড়া পর্যন্ত ফোনের স্টোরেজ ক্লিন করাকে তেমন একটা গুরুত্ব দেন না। নিয়মিত স্টোরেজ ম্যানেজমেন্ট আপনার সাধের ফোনটির আয়ু বাড়াবে অনেকবেশি। চলুন জেনে নেওয়া যাক কিছু অ্যাপ সম্পর্কে। যা আপনার অ্যান্ড্রয়েড ফোনের জন্য খুবই উপকারী-

ফাইলস বাই গুগল
বিনামূল্যে ফোনের অদরকারি ফাইল মুছে ফেলে ফোনের স্টোরেজ ক্লিন করতে সেরা একটি ক্লিনার অ্যাপ ফাইলস বাই গুগল। ফাইলস বাই গুগল (Files by Google) অ্যাপটির ক্লিন ট্যাব ব্যবহার করে অ্যান্ড্রয়েড ফোনের অপ্রয়োজনীয় ফাইল ডিলিট করা যায়। এতে উল্লেখযোগ্য হারে স্টোরেজ খালি করা যায়।

অপ্রয়োজনে ফোনের স্টোরেজ দখল করে আছে ফোনে থাকা এমন ফাইল ও অ্যাপ সম্পর্কে ক্লিন ট্যাব থেকে জানতে পারবেন। জাংক ফাইলস, ডুপ্লিকেটস, ব্যাকাপ নেওয়া ফটো বা অব্যবহৃত অ্যাপ, ইত্যাদি এই ট্যাবে দেখতে পাবেন। প্রতিটি অপশনে প্রবেশ করে উক্ত ক্যাটাগরির কোন ফাইলসমূহ স্টোরেজ দখল করে আছে তা দেখতে পাবেন।

এরপর যেসব ফাইল দরকার নেই, সেগুলো সিলেক্ট করে ডিলিট করা যাবে। আবার ফাইল বাই গুগল অ্যাপের ব্রাউজ ট্যাব থেকে ফোনের স্টোরেজ ম্যানুয়ালি ম্যানেজ করার অপশন রয়েছে। এছাড়াও ফাইলস বা গুগল অ্যাপ ব্যবহার করে শেয়ারইট এর মত অ্যাপ, ছবি, ভিডিও, ইত্যাদি অ্যান্ড্রয়েড ডিভাইসসমূহের মধ্যে অফলাইনে শেয়ার করা যায়।

ড্রয়েড অপটিমাইজার
অ্যান্ড্রয়েড ক্লিনার টুল হিসেবে ড্রয়েড অপটিমাইজার (Droid Optimizer) বেশ পরিচিত একটি অ্যাপ। এটি ব্যবহার করাও বেশ সহজ। ড্রয়েড অপটিমাইজার অ্যাপটিতে রয়েছে র্যাংকিং সিস্টেম, যা মূলত ব্যবহারকারীকে ডিভাইস রেগুলার চেক করতে উদ্ধুদ্ধ করে। অ্যাপটি ব্যবহার করে বেশ সহজে এক ক্লিকে ক্লিন করা যাবে যে কোনো অ্যান্ড্রয়েড স্মার্টফোন। প্রতি ক্লিন-আপ এর জন্য পয়েন্ট প্রদান করা হয়। স্ক্রিনের টপে ফ্রি স্পেস ও র্যাম প্রদর্শিত হয়।

সিক্লিনার
এটি জনপ্রিয় একটি ক্লিনার অ্যাপ। যেটি কম্পিউটার এন্টিভাইরাস সফটওয়্যার এভাস্ট এর মোবাইল স্টোরেজ ম্যানেজমেন্ট অ্যাপ। সিক্লিনার (CCleaner) অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপটি পারফেক্ট না হলেও অন্যসব স্প্যামি অ্যান্ড্রয়েড ক্লিনার অ্যাপ থেকে অনেক ভালো।

সিক্লিনার মূলত একাধিক ফিচারসমৃদ্ধ অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপ যা ফোনের স্টোরেজ এনালাইজ করে ও অপ্রয়োজনীয় ফাইল খুঁজে বের করে ক্লিন করতে সাহায্য করে। অ্যাপটির ক্লিনার ব্যবহার করে অ্যাপের ডাটা ক্লিয়ার করা যায়, খালি ফোল্ডার মুছে ফেলা যায় ও বিভিন্ন ধরনের হিস্টোরি ডিলিট করা যায়।

অল-ইন-ওয়ান টুলবক্স
অপ্রয়োজনীয় ফাইল মুছে ফেলে ফোনের স্টোরেজ খালি করা একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। তবে এর পাশাপাশি একই অ্যাপের মাধ্যমে ব্যাটারি হেলথ, সিপিইউ টেম্পারেচার, ইত্যাদি গুরুত্বপূর্ণ বিষয় জানতেপারবেন।

অল-ইন-ওয়ান টুলবক্স (All-in-One Toolbox) অ্যাপটি ব্যবহার করে অ্যান্ড্রয়েড ডিভাইসের টেম্পরারি ফাইলসমূহ ক্লিন করা যাবে, ক্যাশ ডাটা ডিলিট করা যাবে, অব্যবহৃত ফাইলসমূহ ও এম্পটি ফোল্ডার মুছে ফেলা যাবে। অ্যাপটি ব্যবহার করে মাত্র এক ক্লিকে ডিভাইসে থাকা সকল ফাইল এনালাইজ করতে পারবেন।

এসডি মেইড
এসডি মেইড (SD Maid) একটি সিম্পল স্টোরেজ ক্লিনার অ্যাপ। অ্যাপটি ওপেন করে কয়েকটি সহজ ধাপে ক্লিন করা যাবে অ্যান্ড্রয়েড ফোনের স্টোরেজ। অ্যাপটিতে থাকা ক্রোপস ফাইন্ডার ফিচারটি ব্যবহার করে অপ্রয়োজনীয় ফাইল ও ফোল্ডার মুছে ফেলা যাবে। সিস্টেম ক্লিনার ফিচারটি ব্যবহার করে স্টোরেজে থাকা কমন ফাইল ও রিমুভ করলে সমস্যা হবেনা এমন ফাইল খুঁজে বের করা যাবে ও ডিলিট করা যাবে।

এসডি মেইড অ্যাপটিতে দেখা মিলবে স্টোরেজ এনালাইসিস ফিচার এর, যা ব্যবহার করে বড় ফাইলসমূহ ডিলিট করা যাবে। এছাড়াও একাধিক অ্যাপ একইসাথে রিমুভ করার ফিচার রয়েছে এই অ্যাপটিতে।

নর্টন ক্লিন
সিমেনটেক এর নর্টন এন্টিভাইরাস এর নাম অনেকেই শুনে থাকবেন। নর্টন এন্টিভাইরাস এর ডেভলপার দ্বারা তৈরি অ্যাপ হলো নর্টন ক্লিন (Norton Clean)। ফোনে থাকা অপ্রয়োজনীয় ফাইলসমূহকে বাদ দিয়ে স্টোরেজ খালি করতে সাহায্য করে নর্টন ক্লিন অ্যাপটি।

ফোনের স্টোরেজে সার্চ করে ও ক্যাশ মুছে ফেলে, জাংক ফাইল ডিলেট করে দেয় ও অব্যবহৃত অ্যাপ ডিলেট করতে সাহায্য করে। ম্যানেজ অ্যাপস সেকশনে ফোনে থাকা সকল অ্যাপ লিস্ট করা থাকে, যা ব্যবহার, ইন্সটলেশন ডেট, স্টোরেজ ইউসেস, ইত্যাদির মাধ্যমে সর্ট করা যাবে। এর মাধ্যমে খুব সহজে অপ্রয়োজনীয় ও অব্যবহৃত অ্যাপ সম্পর্কে ধারণা পাওয়া যাবে।

সূত্র: মেকইউজঅব ডটকম

কেএসকে/জিকেএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - jago[email protected]