হাজারিখিল অভয়ারণ্যে একদিন

ভ্রমণ ডেস্ক
ভ্রমণ ডেস্ক ভ্রমণ ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৪:৫৭ পিএম, ১৬ মে ২০১৮

চট্টগ্রামের ফটিকছড়ি উপজেলায় প্রায় ৩ হাজার একর জায়গার ওপর গড়ে উঠেছে হাজারিখিল অভয়ারণ্য। অনায়াসেই পর্যটকের চোখ জুড়াবে এ অভয়ারণ্য দেখে। সুযোগ পেলে আপনিও ঘুরে আসুন একদিন-

শুরু
২০১৪ সালে ফটিকছড়ি উপজেলার ভুজপুর থানার হারুয়ালছড়ি ইউনিয়নের হাজারিখিল বনাঞ্চলকে বন্যপ্রাণী অভয়ারণ্য হিসেবে ঘোষণা করা হয়।

tour-in

যা আছে
এখানে প্রায় ২৫ প্রজাতির স্তন্যপায়ী প্রাণি, ১২৩ প্রজাতির পাখি, আট প্রজাতির উভচর, ২৫ প্রজাতির সরীসৃপ ও বিলুপ্ত প্রজাতিসহ ২৫০ প্রজাতির উদ্ভিদ রয়েছে। আছে সর্বোচ্চ উচ্চতার বৈলাম বৃক্ষ ও বন ছাগল। অভয়ারণ্য এলাকায় ঢুকেই দেখবেন হাতের বামপাশে বিশাল চা বাগান। আর ডানপাশে সিঁড়ি বেয়ে উঠেই বন্যপ্রাণির অভয়ারণ্য। মাঝে মাঝে বিশ্রাম নেওয়ার জন্য ছাউনি। এখানে হারিয়ে যাবেন চা বাগানের বাতাস আর মাঝের দৃষ্টিনন্দন সড়কের মায়ায়।

চা বাগান
অভয়ারণ্যে প্রবেশ গেটের ডানপাশেই চমকপ্রদ রোমান্স। যার জন্য আপনাকে সাহসী হতে হবে। এখানে ট্রি অ্যাক্টিভিটিস। গেটে ঢুকেই নাম এন্ট্রি করে জনপ্রতি ১০০ টাকা দিতে হবে। এরপর আপনাকে জ্যাকেট, হেলমেট সব পরিয়ে দিবে। এবার আপনার সাহসের পালা।

tour-in

যেভাবে যাবেন
যে কোনো স্থান থেকে আপনাকে যেতে হবে অক্সিজেন। অক্সিজেন থেকে ফটিকছড়ির বাস পাবেন। নামতে হবে বিবিরহাট। বিবিরহাট নেমে রোডের উল্টা দিকে সিএনজিতে হাজারিখিল বাজার পর্যন্ত যাবেন। বাজার থেকে অভয়ারণ্য ১০ মিনিটের পথ।

খাবার
দুপুরের খাবারের জন্য একটি ভাতঘর আছে। সেখানে জনপ্রতি ১৩০ টাকা প্যাকেজ। তবে বিবিরহাট গিয়েও খেয়ে নিতে পারেন।

এসইউ/পিআর

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]