চাহিদার কথা চিন্তা করে জারবেরা চাষ

জাগো নিউজ ডেস্ক
জাগো নিউজ ডেস্ক জাগো নিউজ ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৪:০৯ পিএম, ০৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৮

জারবেরা ফুলটি বহুবর্ষজীবী। বিদেশি ফুল হলেও বাংলাদেশে এর ব্যাপক চাহিদা রয়েছে। প্রথম সারির ১০টি ফুলের মধ্যে জারবেরা অন্যতম। এছাড়া ফুলটি বেশিদিন ফুলদানিতে সতেজ থাকে। তাই জেনে নিন জারবেরা চাষের নিয়ম-কানুন।

পরিচিতি
জারবেরা অ্যাসটারেসি পরিবারভুক্ত গুরুত্বপূর্ণ বাণিজ্যিক ফুল। জার্মান পরিবেশবিদ ট্রগোট জারবারের নামানুসারে এর নামকরণ করা হয়। এটি আন্তর্জাতিক ফুল বাজারে কাট ফ্লাওয়ার হিসেবে উল্লেখযোগ্য।

jarbera-in

আকৃতি
এটি দেখতে সূর্যমুখী ফুলের মতো। এর পাতা অনেকটা পালং শাকের পাতার মতো। বিশ্বে ৩০ ধরনের জারবেরা ফুল পাওয়া যায়। এরমধ্যে রয়েছে- লাল, হলুদ, কমলা, সাদা, গোলাপি, বেগুনি রঙের আকর্ষণীয় ফুল।

পুঁজি
জারবেরা চাষ করতে হলে প্রাথমিকভাবেই ১৫-২০ লাখ টাকা পর্যন্ত পুঁজি দরকার হয়।

jarbera-in

মাটি
সুনিষ্কাশিত, উর্বর দো-আঁশ বা বেলে দো-আঁশ মাটি জারবেরা চাষের জন্য উত্তম। মাটির পিএইচ মান ৫.৫-৭.০ এর মধ্যে থাকা উচিত। জারবেরার জমিতে প্রচুর জৈব সার থাকা দরকার। এজন্য পরিমিত পরিমাণে গোবর সার, পাতাপচা সার, কোকোডাস্ট ইত্যাদি প্রয়োগ করতে হবে।

প্রস্তুত প্রণালি
চাষের জন্য জমি প্রস্তুত করে নিতে হয়। একটু উঁচু জমি জারবেরা চাষের জন্য ভালো। নিয়ম করে গাছ পরিষ্কার, পানি ও সার দিতে হয়। একটি গাছ ৫-৬ বছর বেঁচে থাকে।

jarbera-in

বাজার
বিয়ে, গায়ে হলুদ, নববর্ষসহ যেকোনো বড় বড় অনুষ্ঠানে এ ফুলের কদর বাড়ছে। দেশের ফুলের বাজারে জারবেরার যথেষ্ট চাহিদা রয়েছে।

লাভ
একটি গাছ থেকে প্রায় ৬০ থেকে ৭০টি ফুল পাওয়া যায়। প্রতিটি ফুলের দাম ৩০ থেকে ৫০ টাকা। মাসে প্রায় ৬০ থেকে ৭০ হাজার টাকা আয় করা সম্ভব।

এসইউ/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]