আজকের কৌতুক : শরীরে যে কৃপণের রক্ত

জাগো নিউজ ডেস্ক
জাগো নিউজ ডেস্ক জাগো নিউজ ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৫:৪০ এএম, ২১ ডিসেম্বর ২০১৭

কৌতুক- এক : শরীরে যে কৃপণের রক্ত
এক কৃপণ কোনো এক পত্রিকায় বিজ্ঞাপন দেখল যে, এক মুমূর্ষু রোগীর জন্য রক্তের প্রয়োজন। তার গ্রুপের সঙ্গে মিল থাকায় সে পত্রিকায় দেওয়া ঠিকানা মতো ওই রোগীর সঙ্গে যোগাযোগ করল। তো ওই কৃপণ লোক সেই রোগীকে ১ ব্যাগ রক্ত দিলো। রোগী ভদ্রলোক সুস্থ হয়ে কৃপণ লোকটিকে ১ লাখ টাকা দিলো।

এর কয়েক মাস পর ওই রোগীর আবার রক্তের প্রয়োজন হওয়ায় সে সেই কৃপণ লোকটিকে খবর দিল। কৃপণ লোকটি আরো ১ লাখ টাকার লোভে আবার ১ ব্যাগ রক্ত দিল। রক্ত দেওয়ার পরে রোগী ভদ্রলোক তাকে ১শ’ টাকার ১টি নোট দিল। কৃপণ লোকটি তাকে বলল-
কৃপণ : ভাই, এর আগে রক্ত দেওয়ার পর আমাকে ১ লাখ টাকা দিয়েছিলেন। আজ ১শ’ টাকা কেন?
ভদ্রলোক : কী করবো ভাই? আমার শরীরে যে কৃপণের রক্ত ঢুকে গেছে।

****

কৌতুক- দুই : বের হয়ে আবার ঢুকি
হঠাৎ করেই স্টার্ট বন্ধ হয়ে গেল চলন্ত গাড়ির। ভেতরে বসা মেকানিক্যাল ইঞ্জিনিয়ার, কেমিক্যাল ইঞ্জিনিয়ার ও প্রোগ্রামার।

মেকানিক্যাল ইঞ্জিনিয়ার গাড়ির কলকবজা পরীক্ষা করে ত্রুটিগুলো দূর করলেন। গাড়ি স্টার্ট নিলো না তবু।
পেট্রল আর মবিলের মান যথাযথ নয় বলে জানালেন কেমিক্যাল ইঞ্জিনিয়ার। বদল করা হলো। গাড়ি তবু নীরব। প্রোগ্রামার প্রস্তাব দিলো, আমরা সবাই গাড়ি থেকে বের হয়ে আবার ঢুকি। কাজ হতে পারে।

****

কৌতুক- তিন : তোমাকে বরখাস্ত করলাম
অনেক দিন পর দুই বন্ধুর দেখা। বিভিন্ন বিষয় নিয়ে গল্পের এক ফাঁকে একজন আরেকজনকে বর্তমানে চাকরি কার কেমন চলছে জিজ্ঞেস করতেই-
প্রথম বন্ধু : আজই চাকরিতে ইস্তফা দিয়ে এলাম।
দ্বিতীয় বন্ধু : কেন? এ কী বলিস তুই? কী হয়েছিল মালিকের সঙ্গে?
প্রথম বন্ধু : আর বলিস না, কোম্পানির এমডি ডেকে নিয়ে যা বললেন, তাতে আর ওই অফিসে কাজ করা যায় না।
দ্বিতীয় বন্ধু : অত সেন্টিমেন্টাল হোস কেন রে? চাকরি করতে গেলে বসদের একটু-আধটু কথা শুনতেই হয়। বল তো এমডি তোকে কী বলেছেন?
প্রথম বন্ধু : একটি পত্র হাতে ধরিয়ে দিয়ে বললেন, এ মুহূর্তে তোমাকে বরখাস্ত করলাম।

এসইউ/পিআর

আপনার মতামত লিখুন :