আজকের জোকস : স্বামী-স্ত্রীর কথপোকথন

জাগো নিউজ ডেস্ক
জাগো নিউজ ডেস্ক জাগো নিউজ ডেস্ক
প্রকাশিত: ১১:২২ এএম, ০৫ মার্চ ২০১৯

২০তম বিবাহ বার্ষিকী

২০তম বিবাহ বার্ষিকীর রাতে স্ত্রী ঘুম থেকে জেগে উঠে দেখেন পাশে স্বামী নেই। তাকে পাওয়া গেল ডাইনিং টেবিলে এক কাপ কফি নিয়ে ক্যালেন্ডারের দিকে স্থির তাকিয়ে আছেন।কফিতে একবার চুমুক দিচ্ছেন আর চোখের পানি মুছছেন। স্ত্রী কাছে গিয়ে জিজ্ঞেস করলেন, ‘কী হয়েছে তোমার?’ ক্যালেন্ডার থেকে চোখ ফিরিয়ে স্ত্রীর দিকে তাকিয়ে স্বামী বললেন, ‘আজ থেকে ২০ বছর আগের সেই দিনের কথা তোমার মনে আছে?’
স্ত্রী বললেন, ‘হ্যাঁ।’

স্বামী বললেন, ‘সেদিন তোমার বাবা বলেছিলেন, হয় আমার মেয়েকে বিয়ে করবে, নয়তো ২০ বছরের জন্য জেল খাটতে হবে মনে আছে?’
স্ত্রী বললেন, ‘হ্যাঁ, তাও মনে আছে।’
স্বামী চোখ মুছে বললেন, ‘সেদিন যদি তোমাকে বিয়ে না করে জেলে যেতাম, তাহলে আজ মুক্তি পেতাম!’

****

সোনিয়া কে?

স্ত্রী তার স্বামী কে মেসেজ করলো:
অফিস থেকে আসার সময় এক কেজি আটা, এক কেজি আলু আর এক কেজি চিনি নিয়ে আসবে। আর সোনিয়া তোমাকে দেখা করতে বলেছে।
স্বামী: সোনিয়া কে?
স্ত্রী: কেউ না। তুমি মেসেজটা পড়লে কিনা নিশ্চিত হয়ে নিলাম ।
স্বামী: কিন্তু আমি তো সোনিয়ার সাথেই আছি, তুমি কোন সোনিয়ার কথা বলছো?
স্ত্রী: তুমি কোথায় ?
স্বামী: সবজি বাজারের কাছাকাছি।
স্ত্রী: তুমি ওখানেই অপেক্ষা করো, আমি আসছি ।
দশ মিনিট পর স্ত্রী সবজি বাজারে পৌঁছে তার স্বামীকে মেসেজ পাঠালো, ‘কোথায় আছো তুমি?’
স্বামী: আমি অফিসে আছি, এখন তোমার যা বাজার দরকার, সেটা কিনে নাও।

****

পাগল হওয়ার কারণ

স্ত্রী: ভাবছি চুলটা ছোট করে কেটে ফেলি। কী বলো?
স্বামী: কেটে ফেলো।
স্ত্রী: এত কষ্ট করে বড় করলাম!
স্বামী: তাহলে কেটো না।
স্ত্রী: কিন্তু আজকাল ছোট চুলই তো ফ্যাশন!
স্বামী: তাহলে কেটে ফেলো।
স্ত্রী: আমার বন্ধুরা বলে যে আমার যে মুখের কাটিং তাতে বড় চুলই মানায়।
স্বামী: তাহলে কেটো না।
স্ত্রী: কিন্তু ইচ্ছে তো করে।
স্বামী: তাহলে কেটে ফেলো।
স্ত্রী: ছোট চুলে তো বিনুনি হবে না।
স্বামী: তাহলে কেটো না।
স্ত্রী: ভাবছি এক্সপেরিমেন্ট করেই ফেলি, নাকি!
স্বামী: তাহলে কেটে ফেলো।
স্ত্রী: বাজে করে কেটে দিলে?
স্বামী: তাহলে কেটো না।
স্ত্রী: না। কেটেই দেখি না একবার।
স্বামী: তাহলে কেটে ফেলো।
স্ত্রী: যদি আমাকে স্যুট না করে তাহলে কিন্তু তুমি দায়ী!
স্বামী: তাহলে কেটো না।
স্ত্রী: আসলে ছোট চুল সামলাতে সুবিধা।
স্বামী: তাহলে কেটে ফেলো।
স্ত্রী: ভয় করে, যদি খারাপ লাগে।
স্বামী: তাহলে কেটো না।
স্ত্রী: না, একবার কেটেই দেখি।
স্বামী: তাহলে কেটে ফেলো।
স্ত্রী: তাহলে কবে যাবে?
স্বামী: তাহলে কেটো না।
স্ত্রী: আমি মায়ের কাছে যাবার কথা বলছি।
স্বামী: তাহলে কেটে ফেলো!
স্ত্রী: কি আবোল তাবোল বলছো! শরীর খারাপ নাকি?
স্বামী: তাহলে কেটো না!
স্বামী এখন পাবনাতে ভর্তি আছে, মাঝে মাঝেই হঠাৎ করে বলে ওঠে ‘তাহলে কেটো না, তাহলে কেটে ফেলো! তাহলে কেটো না, তাহলে কেটে ফেলো।’

এইচএন/এমকেএইচ

আপনার মতামত লিখুন :