‘দেশে বিচারহীনতার সংস্কৃতির কারণেই তুহিন হত্যাকাণ্ড’

বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক
বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়
প্রকাশিত: ০৬:০৯ পিএম, ১৫ অক্টোবর ২০১৯

সুনামগঞ্জের দিরাইয়ে পাঁচ বছর বয়সী শিশু তুহিন মিয়াকে নির্মমভাবে হত্যার প্রতিবাদে এবং দোষীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিতে মানববন্ধন করেছে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা।

মঙ্গলবার দুপুরে বিশ্ববিদ্যালয়ের ‘অমর একুশে’ ভাস্কর্যের পাদদেশে বিভিন্ন বিভাগের অর্ধশতাধিক শিক্ষার্থীর অংশগ্রহণে এ মানববন্ধন কর্মসূচি পালিত হয়।

মানববন্ধনে শিক্ষার্থীরা দাবি করেন, দেশে বিচারহীনতার সংস্কৃতির কারণেই শিশু তুহিনের মতো হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ঘটছে। তারা বলেন, শুধু বিচারের মধ্যে সীমাবদ্ধ থাকলেই হবে না, সমাজকে পরিবর্তনের জন্য কাজ করতে হবে। যাতে আর কোনো আবরার অথবা তুহিনকে হারাতে না হয়।

মানববন্ধনে ছাত্র ইউনিয়ন জাবি সংসদের সদস্য রাকিবুল রনি বলেন, ‘এ সমাজ, শিক্ষাব্যবস্থা এবং সরকার একের পর এক খুনি তৈরি করে যাচ্ছে। দেশে বিচারহীনতার সংস্কৃতি এসব হত্যাকাণ্ডে উৎসাহিত করছে। সবাইকে এসব হত্যাকাণ্ডের বিরুদ্ধে দাঁড়াতে হবে।’

বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের যুগ্ম আহ্বায়ক জয়নাল আবেদীন শিশির বলেন, ‘হত্যা, ধর্ষণ আর দুর্নীতি এখন টক অব দ্য কান্ট্রিতে পরিণত হয়েছে। আমরা বরাবরই দেখি খুনিরা খুন করে উল্লাস করছে। এভাবে সমাজ চলতে পারে না।’

সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্টের সাংগঠনিক সম্পাদক শোভন রহমানের সঞ্চালনায় এ সময় অন্যদের মধ্যে আরও বক্তব্য রাখেন ৪২তম ব্যাচের শিক্ষার্থী আবু সাঈদ, দর্শন বিভাগের ৪৫তম ব্যাচের রিয়াজুল ইসলাম রিহান প্রমুখ।

উল্লেখ্য, সোমবার সকাল ১০টার দিকে সুনামগঞ্জের দিরাই উপজেলার রাজানগর ইউনিয়নের গচিয়া কেজাউড়া গ্রাম থেকে তুহিনের মরদেহ উদ্ধার করা হয়। এ ঘটনায় নিহতের মা বাদী হয়ে সোমবার রাতে কয়েকজনকে আসামি করে একটি হত্যা মামলা করেছেন। এরই মধ্যে এ ঘটনায় তুহিনের বাবা আব্দুল বাছিরসহ পাঁচজনকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য থানায় নিয়েছে পুলিশ। অন্যরা হলেন তুহিনের চাচা আব্দুল মুছাব্বির, ইয়াছির উদ্দিন, প্রতিবেশী আজিজুল ইসলাম, চাচি খাইরুল নেছা ও চাচাতো বোন তানিয়া।

ফারুক হোসেন/এমবিআর/জেআইএম

বিনোদন, লাইফস্টাইল, তথ্যপ্রযুক্তি, ভ্রমণ, তারুণ্য, ক্যাম্পাস নিয়ে লিখতে পারেন আপনিও - jagofeature@gmail.com