জবিতে অনলাইনে সেমিস্টার ফাইনাল নিতে প্রস্তুতি, কমিটি গঠন

বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক
বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক জগন্নাত বিশ্ববিদ্যালয়
প্রকাশিত: ১১:৩৮ এএম, ৩০ জুলাই ২০২১

সেশনজট কমাতে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ে (জবি) স্থগিত হয়ে যাওয়া সকল বিভাগের সেমিস্টার ফাইনাল পরীক্ষা অনলাইনে নেয়ার কথা ভাবছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। অনলাইনে পরীক্ষা নেয়ার ব্যাপারে বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের অভিজ্ঞতা অনুসন্ধান এবং কীভাবে অনলাইন প্ল্যাটফর্মের মাধ্যমে পরীক্ষা নেয়া যায় তার সুপারিশ তেরির জন্য ছয় সদস্য বিশিষ্ট্য একটি আহ্বায়ক কমিটি গঠন করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (২৯ জুলাই) রাতে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. ইমদাদুল হক এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, বিশ্ববিদ্যালয়ের বিজনেস স্টাডিজ অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. এ. কে. এম. মনিরুজ্জামানকে আহ্বায়ক এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের নেটওয়ার্কিং অ্যান্ড আইটি দফতরের পরিচালক অধ্যাপক ড. উজ্জল কুমার আচার্য্যকে সদস্য সচিব করে একটি টেকনিক্যাল কমিটি গঠন করা হয়েছে। এ ছাড়া কমিটিতে আইন অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. সরকার আলী আককাস, ছাত্রকল্যাণ পরিচালক অধ্যাপক ড. আব্দুল্লাহ আল বাকী, শিক্ষা ও গবেষণা ইনিস্টিটিউটের পরিচালক অধ্যাপক ড. মনিরা জাহান এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ড. নাসির উদ্দিনকে সদস্য করা হয়েছে। দ্রুততম সময়ের মধ্যে অনলাইনে পরীক্ষা নেয়া যায় কিনা এবং কীভাবে নেয়া যাবে তার প্রতিবেদন জমা দিতে বলা হয়েছে কমিটিকে।

কমিটি সূত্রে জানা গেছে, গত ২৫ জুলাই কমিটির একটি সভা অনুষ্ঠিত হয়েছ। সেখানে সবাই একটি সিদ্ধান্তে একমত যে, আগামী দুই মাসের মধ্যে সশীরে পরীক্ষা নেয়া না গেলে অনলাইনে পরীক্ষা নেয়া হবে। সে অনুযায়ী বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের অনলাইনের পরীক্ষা নেয়ার ডাটা কালেক্ট করা হচ্ছে।

এ বিষয়ে অনলাইনে পরীক্ষা গ্রহণে টেকনিক্যাল কমিটির আহ্বায়ক অধ্যাপক ড. এ. কে. এম. মনিরুজ্জামান বলেন, ‘আমাদের ছয় সদস্য বিশিষ্ট একটি কমিটি হয়েছে। অনলাইনে পরীক্ষা নেয়া যায় কিনা সেটার কাজ চলছে। করোনা পরিস্থিতির কারণে সশরীরে পরীক্ষা নেয়া না গেলে অবশ্যই আমরা অনলাইনে পরীক্ষা নেব যেন দ্রুতই শিক্ষার্থীদের সেশনজট কমানো যায়। এজন্য বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয় থেকে তথ্য সংগ্রহ করা হচ্ছে।’

পরীক্ষার বিষয়ে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. ইমদাদুল হক বলেন, ‘আমরা ইতোমধ্যে বিজনেস স্টাডিজের ডিনের নেতৃত্বে একটি কমিটি গঠন করেছি। কমিটিকে অনলাইনে পরীক্ষা নেয়ার ব্যাপারে অনুসন্ধান করতে এবং কীভাবে আমরা অনলাইন প্ল্যাটফর্মের মাধ্যমে পরীক্ষাগুলো নিতে পারি তার সুপারিশ তৈরি করতে বলা হয়েছে।’

তিনি আরও বলেন, ‘আমি আমার ছাত্রদের উন্নতির জন্য যথাসাধ্য চেষ্টা করবো। এ ব্যাপারে সকলের সহযোগিতা দরকার ‘

রায়হান আহমেদ/ইএ/জিকেএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]