গণধর্ষণের পর হত্যা : তৃতীয় দফায় রিমান্ডে ছাত্রলীগ নেতা

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি বরগুনা
প্রকাশিত: ১০:৫৯ এএম, ২৯ নভেম্বর ২০১৭
গণধর্ষণের পর হত্যা : তৃতীয় দফায় রিমান্ডে ছাত্রলীগ নেতা

বরগুনার পাথরঘাটায় তরুণীকে গণধর্ষণ ও হত্যার পর মরদেহ লুকানোর ঘটনায় গ্রেফতার পাথরঘাটা ডিগ্রি কলেজ ছাত্রলীগের সদ্য বহিষ্কৃত সাংগঠনিক সম্পাদক মো. মহিদুল ইসলাম রায়হানের তৃতীয় দফায় রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত।

বুধবার বেলা ২টায় রায়হানকে পাথরঘাটা সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের হাজির করে সাতদিনের রিমান্ডের আবেদন করে পুলিশ। শুনানি শেষে আদালতের বিচারক মো. মঞ্জুরুল ইসলাম তিনদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

এ বিষয়ে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ও পাথরঘাটা থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এসএম জিয়াউল হক বলেন, অধিকতর জিজ্ঞাসাবাদের জন্য রায়হানকে আবারও রিমান্ডে নেয়া হয়েছে। প্রয়োজন হলে অন্য অভিযুক্তদেরও আবারও রিমান্ডের আবেদন করা হবে।

প্রসঙ্গত, চলতি বছরের ১০ আগস্ট দুপুরে পাথরঘাটা ডিগ্রি কলেজের পশ্চিম পাশের পুকুর থেকে অজ্ঞাতনামা এক তরুণীর গলিত মরদেহ উদ্ধার করা হয়।

ঘটনার পর থেকে এ হত্যাকাণ্ডের রহস্য উদঘাটনে দীর্ঘ সময় ধরে লেগে থাকে বরগুনা থানা পুলিশ। পরে তথ্য পেয়ে গত ১০ নভেম্বর শুক্রবার পাথরঘাটা কলেজের নৈশপ্রহরী জাহাঙ্গীরকে গ্রেফতার করে জিজ্ঞাসাবাদ করে ডিবি পুলিশ।

তার দেয়া স্বীকারোক্তি অনুযায়ী গত ১১ নভেম্বর শনিবার রাতে ছাত্রলীগ নেতা মাহমুদ ও রায়হানকে গ্রেফতার করে জিজ্ঞাসাবাদ করে পুলিশ।

গত ১২ নভেম্বর বিকেলে পাথরঘাটার আদালতে মাহমুদ ও রায়হানের ১৬৪ ধারায় দেয়া স্বীকারোক্তি অনুযায়ী গ্রেফতার করা হয় কলেজ ছাত্রলীগ সভাপতি রুহি আনাল দানিয়েল ও সাধারণ সম্পাদক সাদ্দাম হোসেন ছোট্টকে।

গ্রেফতার পাঁচজনের মধ্যে ১২ নভেম্বর উপজেলা ছাত্রলীগের সহ-সম্পাদক মো. মাহমুদ ও কলেজের নৈশপ্রহরী জাহাঙ্গীর ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেন আদালতে।

মোঃ সাইফুল ইসলাম মিরাজ/এএম/জেআইএম