‘১০ লাখ রোহিঙ্গা যদি খেতে পায় তাহলে আমরা কেন পাব না’

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি নারায়ণগঞ্জ
প্রকাশিত: ০৯:৪৬ পিএম, ১৫ জানুয়ারি ২০১৮

‘আমাদের বাংলাদেশে ১০ লাখ রোহিঙ্গা যদি খেতে পায় তাহলে আমরা এ দেশের নাগরিক হয়ে কেন খেতে পাব না। আমরা কী এ দেশের নাগরিক নয়, আমাদের কী কোনো অধিকার নেই। আমাদের পেটে কেন লাথি মারা হচ্ছে।

সোমবার বিকেলে নারায়ণগঞ্জ শহরের হকার উচ্ছেদের প্রতিবাদে আয়োজিত প্রতিবাদ সভায় চাষাড়া জিয়ার হলের সামনে কলা বিক্রেতা ইয়াছমিন বেগম নামে এক নারী হকার তার বক্তব্য এসব কথা বলেন।

ইয়াছমিন বেগম ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, আমার স্বামী হার্ট স্টক করে প্যারালাইসিস হয়ে অচল হয়ে ঘরে বসে আছে। অসুস্থ স্বামীর চিকিৎসার টাকা জোগার আর সংসার চালাতে কলা বিক্রি করতে রাস্তায় বসেছি। কিন্তু সিটি কর্পোরেশন আমাদের কথা চিন্তা না করে আমাদের পেটে লাথি দিয়ে রাস্তা থেকে তুলে দিচ্ছে। বসতে গেলে আমাদের বসতে দেয়া হয় না। পুলিশ দিয়ে তুলে দেয়া হয়। কেন এ অমানবিক আচরণ?

তিনি আরও বলেন, আমরা দীর্ঘ বছর ধরে নারায়ণগঞ্জে বসবাস করছি। এ নারায়ণগঞ্জের ভোটার আমরা। তাহলে মেয়র আইভী আমাদের কথা চিন্তা না করে কেন পুলিশ দিয়ে রাস্তা থেকে তাড়াচ্ছে। আমরা যদি কাজ করতে না পারি তাহলে ছেলে-মেয়েদের পেটে কীভাবে খাবার দিব। আমাদেরকে রাস্তা থেকে তুলে দেয়ার পর এখন বাসা ভাড়া দিতে পারছি না। ছেলে-মেয়েদের স্কুলে ভর্তি করতে পারছি না।

প্রতিবাদ সভায় নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের এমপি শামীম ওসমানও বক্তব্য দেন। তিনি আগামীকাল থেকে নারায়ণগঞ্জ শহরের ফুটপাতে পুনরায় হকারদের বসার নির্দেশ দিয়েছেন।

উল্লেখ্য, নারায়ণগঞ্জ শহর ফুটপাত দখলমুক্ত রাখতে নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশন ২৫ ডিসেম্বর হকার উচ্ছেদ অভিযান কার্যক্রম শুরু করে। হকারদের উচ্ছেদের পর তারা নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের এমপি শামীম ওসমানের কাছে ছুটে যান। তখন শামীম ওসমান হকারদের বলেছিলেন- এটা সিটি কর্পোরেশনের কাজ। এ বিষয়ে সিটি কর্পোরেশনের মেয়র সেলিনা হায়াৎ আইভীর সঙ্গে যোগাযোগ করতে হবে। তার নির্দেশেই পুলিশ হকারদের উচ্ছেদ করেছে।

তবে শামীম ওসমান হকারদের পাশে থাকার ঘোষণা দিয়েছিলেন। কিন্তু এমন ঘোষণা দিলেও তিনি প্রকাশ্যে মাঠে নামেননি।

শহরের দেওভোগে একটি অনুষ্ঠানে শামীম ওসমান ছেলের বিয়ের অনুষ্ঠানে ২৫ কোটি টাকা ব্যয় করেছেন- বলে মন্তব্য করেন মেয়র আইভী। তিনি বলেন, যে ব্যক্তি ছেলের বিয়েতে ২৫ কোটি টাকা ব্যয় করতে পারেন সেই ব্যক্তি হকারদের জন্য একটি জায়গা করে দিতে পারেন। মেয়র আইভীর এমন বক্তব্যে শামীম ওসমানও একটি অনুষ্ঠানে আইভীর বক্তব্যের জবাব দেন। সোমবার হকারদের জন্য প্রকাশ্যে মাঠে নেমে হকারদের বসার নির্দেশ দিয়েছেন।

এদিকে হকার ইস্যুতে গত শনিবার বিকেলে নারায়ণগঞ্জ রাইফেল ক্লাবে বক্তব্য দেন নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনের সংসদ সদস্য ও ব্যবসায়ী সেলিম ওসমান। ওই সময় হকাররা বিকেল ৫টা হতে রাত ১০টা পর্যন্ত শহরে বসার অনুরোধ করেন। তখন সেলিম ওসমান ২৮ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত এ বিষয়টিকে মেনে নিয়ে সিটি কর্পোরেশনের মেয়রকে চিঠি দিয়ে অবহিত করবেন প্রতিশ্রুতি দেন।

রোববার মেয়রকে দেয়া চিঠিতে এমপি সেলিম ওসমান বিকেল ৫টা হতে রাত ১০টা পর্যন্ত ফুটপাতে হকারদের বসতে দেয়ার অনুরোধ করেন। তবে চিঠির জবাব যেটা সেলিম ওসমানকে দেয়া হয়েছে সেখানে প্রেরক ছিলেন সিটি কর্পোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা এহতেশামুল হক।

শাহাদাত হোসেন/আরএআর/আরআইপি