নারায়ণগঞ্জের সংঘর্ষে অস্ত্র ব্যবহারকারীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি নারায়ণগঞ্জ
প্রকাশিত: ১০:২১ এএম, ১৯ জানুয়ারি ২০১৮

হকার ইস্যু নিয়ে নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের মেয়র ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভী ও এমপি শামীম ওসমান সমর্থকদের মধ্যে গোলাগুলি ও সংঘর্ষের দিন যে সমস্ত বৈধ অবৈধ অস্ত্র ব্যবহার ও প্রদর্শন হয়েছে তা সনাক্ত করে ব্যবহারকারীদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানিয়েছেন জেলা পুলিশ সুপার (এসপি) মঈনুল হক।

তিনি আরো জানান, সহিংসতার ঘটনায় এখন পর্যন্ত মেয়র আইভী বা সাংসদ শামীম ওসমান সমর্থকদের পক্ষ থেকে কোনো মামলা হয়নি। তবে একটি জিডি হয়েছে। বিষয়টি নিয়ে জেলা প্রশাসন, পুলিশ প্রশাসন ও র্যাবের সমন্বয়ে গঠিত তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি তাদের তদন্ত কাজ চালিয়ে যাচ্ছেন।

তবে হামলার দিন পুলিশ পক্ষপাতিত্ব করেছে বলে উভয়পক্ষের পাল্টাপাল্টি অভিযোগ অস্বীকার করে পুলিশ সুপার বলেন, পুলিশ সম্পূর্ণ নিরপেক্ষভাবেই দায়িত্ব পালন করে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে এনেছে।

হকারদের ব্যাপারে পুলিশ সুপার জানান, নারায়ণগঞ্জ নগরীর প্রধান সড়ক বঙ্গবন্ধু সড়ক ব্যতীত অন্যান্য কয়েকটি সড়কে নির্দিষ্ট সময়ের জন্য তাদরেকে বসতে দেয়ার অনুমতি দেয়া হয়েছে। পরবর্তীতে তাদের স্থায়ী পুনর্বাসনের ব্যাপারে মেয়র ও সাংসদের সম্মিলিত সিদ্ধান্তের প্রেক্ষিতে ব্যবস্থা নেয়া হবে। চলমান শীত মৌসুম হকারদের মজুদকৃত পোশাক ও মামালামাল বিক্রি করে তারা যেন পুঁজি তুলে আনতে পারে সেদিক বিবেচনা করে এই সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

প্রসঙ্গত মঙ্গলবার বিকেলে হকার ইস্যু নিয়ে নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের মেয়র ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভী ও শামীম ওসমান সমর্থকদের মধ্যে দফায় দফায় ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে। এসময় একে অপরকে ঘায়েল করতে উভয় পক্ষ ইটপাটকেল নিক্ষেপসহ গুলি বর্ষণ করে। সংঘর্ষে মেয়র আইভী ও সাংবাদিকসহ প্রায় অর্ধশতাধিক লোক আহত হন।

শাহাদাত হোসেন/এফএ/এমএস

আপনার মতামত লিখুন :