নড়াইলে জমি সংক্রান্ত বিরোধে ছররা গুলিতে আহত ১৪

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি নড়াইল
প্রকাশিত: ১১:১১ এএম, ২০ জানুয়ারি ২০১৮

জমিজমা সংক্রান্ত বিরোধে নড়াইলের কালিয়া উপজেলার পানিপাড়া অরুনিমা রিসোর্ট গলফ ক্লাবে ১৪ জন গুলিবিদ্ধ হয়েছেন। আহত কয়েকজনকে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়া হয়েছে।

এলাকাবাসী জানায়, আদালতে মামলাধীন অরুনিমা রিসোর্টের একটি জমিতে প্রতিপক্ষ পার্শ্ববর্তী খাশিয়াল গ্রামের মিজানুর বিশ্বাস স্যালোমেশিনের পাইপ (বোরিং) বসাচ্ছিলেন। এ ঘটনায় অরুনিমা রিসোর্ট কর্তৃপক্ষ বাধা দিলে দুইপক্ষের মধ্যে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে।

অরুনিমা রিসোর্ট গলফ ক্লাবের চেয়ারম্যান খবির উদ্দিন আহম্মেদ বলেন, অরুনিমা রিসোর্টের একটি জমি নিয়ে আদালতে মামলা চলছে। মামলার রায়ও তার (খবির উদ্দিন) পক্ষে রয়েছে। কিন্তু আদালতের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে পার্শ্ববর্তী খাশিয়াল গ্রামের মিজানুর ওই জমিতে স্যালো মেশিনের পাইপ বোরিং করছিলেন। এসময় আমাদের লোকজন বাধা দিলে তারা উত্তেজিত হয়ে আমাদের লোকজনের ওপর হামলা করে। আত্মরক্ষার্থে আমাদের পার্কের লাইসেন্সকৃত বন্দুক দিয়ে গুলি ছোড়া হয়। ছররা গুলির ভয়ে তারা পালিয়ে যায়। তবে আহত হয়েছে কিনা জানা নেই।

তিনি আরও বলেন, ‘এর আগেও মিজানুর রহমানের সন্ত্রাসী বাহিনী হামলা চালিয়ে আমার ছেলে ইরফানসহ কয়েকজনকে গুরুতর আহত করে। ওই ঘটনায় আদালতে মামলাও রয়েছে। পর্যটন কেন্দ্রটিকে ধ্বংস করতে ষড়যন্ত্র অব্যাহত রেখেছে চক্রটি।’

এদিকে ওই জমির মালিকানা দাবি করে মিজানুর রহমান সাংবাদিকদের কাছে বলেন, ‘১৮ বিঘা জমি নিয়ে বিরোধ চলে আসছিল। ওই জমিতে স্যালো মেশিন বসানোর সময় খবির উদ্দিনের লোকজন হামলা চালিয়ে আমাদের লোকজনের ওপর গুলি চালায়। এতে ১২ জন আহত হয়েছে। আহতদের খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।’

কালিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. বেলায়েত হোসেন বলেন, ঘটনা শোনার পর পুলিশ দ্রুত ঘটনাস্থলে ছুটে যায়। তবে ঘটনাস্থলে আহত বা গুলিবিদ্ধ কাউকে পাওয়া যায়নি। কয়েকজন আহত হওয়ার কথা শুনেছি। এলাকায় পুলিশ মোতায়েন রয়েছে।

হাফিজুল নিলু/এফএ/এমএস

আপনার মতামত লিখুন :