মাথা থেঁতলে আওয়ামী লীগ নেতাদের রগ কাটল দুর্বৃত্তরা

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি ঝিনাইদহ
প্রকাশিত: ০৯:১৩ পিএম, ২০ জানুয়ারি ২০১৮

ঝিনাইদহের শৈলকুপা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি আসাদুজ্জামান নান্নুসহ পাঁচ আওয়ামী লীগ নেতা-কর্মীর ওপর হামলা চালিয়ে মাথা থেঁতলে দেয়াসহ পায়ের রগ কেটে দিয়েছে দুর্বৃত্তরা।

আহতদের অবস্থার অবনতি হওয়ায় ফরিদপুর মেডিকেল থেকে শনিবার দুপুরে ঢাকা মেডিকেল ও পঙ্গু হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। আহত অপর চারজন হলেন- আবু বকর কনক, সেলিম মন্ডল, শরিফুল ইসলাম ও কালাম মন্ডল।

শুক্রবার রাত ৯টার দিকে বাড়ি ফেরার পথে শৈলকুপা উপজেলার বন্দেখালী মাঠের রাস্তায় এ হামলার ঘটনা ঘটে। এ ঘটনার সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে পুলিশ শনিবার আটজনকে গ্রেফতার করেছে। এ ঘটনায় থানায় হত্যাচেষ্টা মামলা হয়েছে। এলাকায় পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

স্থানীয়রা জানায়, বন্দেখালী গ্রামের ইউপি সদস্য আবুল হোসেন ও আওয়ামী লীগ নেতা আসাদুজ্জামান নান্নু গ্রুপের মধ্যে দীর্ঘদিন বিরোধ চলছিল।

বিরোধের জেরে আবুল হোসেন ও ১৪ বছরের সাজাপ্রাপ্ত ডাকাত আয়ুবের নেতৃত্বে হামলার ঘটনা ঘটে। ঘটনার পর আবুল হোসেন ও তার গ্রুপের নেতা-কর্মী পালিয়েছেন।

প্রত্যক্ষদর্শী ভানচালক শরিফুল ইসলাম, পথচারী ও গ্রামের অনেকে জানায়, লাঙ্গলবাধ থেকে তার ভ্যানযোগে বাড়ি ফিরছিল নান্নুসহ তাদের নেতা-কর্মী।

এ সময় বন্দেখালী মাঠের ভেতর পৌঁছালে ইউপি সদস্য আবুল হোসেন, কুখ্যাত ডাকাত ১৪ বছরের সাজা খেটে আসা আয়ুব, আয়ুবের ছেলে রাজু, নায়েব, বিপ্লব, মামুন, মেহেদী, ইশারত, চঞ্চল, তারুফ, মতিয়ার, সায়েদ, পাপ্পু, রেজাউলসহ একদল শসস্ত্র লোক তাদের ওপর হামলা চালায়।

এ সময় তরবারি, ডেগার, রামদা, হাসুয়াসহ নানা ধারাল অস্ত্র দিয়ে তাদের পায়ের রগ কাটা হয়। কেনালের মধ্যে ফেলে মাথা থেঁতলে দেয়াসহ হাত-পা ভেঙে দেয়া হয়।

গুরুতর অবস্থায় তাদের উদ্ধার করে স্থানীয় লাঙ্গলবাধ ক্লিনিক ও পরে ফরিদপুর মেডিকেলে পাঠানো হয়। অবস্থার অবনতি হওয়ায় আওয়ামী লীগ নেতা আসাদুজ্জামান নান্নু ও আবুবক্কর কনককে ঢাকা মেডিকেল ও ঢাকা পঙ্গু হাসপাতালে পাঠানো হয়।

বিষয়টি নিশ্চিত করে শৈলকুপার লাঙ্গলবাধ পুলিশ ক্যাম্পের ইনচার্জ সমিরন সাহা জানান, ৮ নং ধলহরাচন্দ্র ইউনিয়নে সামাজিকভাবে বিরোধ আছে ইউপি সদস্য আবুল হোসেন ও আওয়ামী লীগ নেতা নান্নু গ্রুপের মধ্যে। এসবের জেরে হামলা হয়েছে। মামলার পর আসামিদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে বলে তিনি জানান।

আহমেদ নাসিম আনসারী/এএম/আরআইপি

আপনার মতামত লিখুন :