ঘের শ্রমিককে তুলে নিয়ে একের পর এক গুলি করলো দুর্বৃত্তরা

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি কক্সবাজার
প্রকাশিত: ০৪:৩৮ পিএম, ০৬ ফেব্রুয়ারি ২০১৮ | আপডেট: ০৪:৪৩ পিএম, ০৬ ফেব্রুয়ারি ২০১৮

কক্সবাজারের মহেশখালীতে চিংড়ি ঘের থেকে তুলে নিয়ে এক শ্রমিককে হাত-পা ও শরীরের বিভিন্নস্থানে গুলি করেছে দুর্বৃত্তরা। মঙ্গলবার ভোররাত তিনটার দিকে কালারমারছড়ার ওসমানগণি চেয়ারম্যানের ঘের থেকে তাকে তুলে নিয়ে যায় দুর্বৃত্তরা। গুলিবিদ্ধ শ্রমিককে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ (চমেক) হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

গুলিবিদ্ধ শ্রমিকের নাম দেলোয়ার হোসেন (৩৮)। তিনি কালারমারছরার মো. শাহঘোনার মৃত আবদুর রহিমের ছেলে ও ইউপি চেয়ারম্যান তারেক শরীফের বাবার নামীয় ঘের ওসমান চেয়ারম্যানের প্রজেক্ট'র পানি নিষ্কাশন কর্মচারী হিসেবে কাজ করতেন।

গুলিবিদ্ধ দেলোয়ার হাসপাতালে সাংবাদিকদের জানান, এখন লবণ মৌসুম হওয়ায় ঘেরে পরিমাপ মতো পানি ঢুকাতে হয়। মঙ্গলবার ভোরে জোয়ারের পানি ঢুকাতে স্লুইচগেট খুলতে যাওয়ার পর স্থানীয় একদল দুর্বৃত্ত তাকে অস্ত্রের মুখে তুলে নিয়ে যায়। নোনাছড়ি এলাকায় নিয়ে তাকে অমানবিকভাবে মারধরের পর শরীরের বিভিন্নস্থানে গুলি করে।

যারা গুলি করেছে তারা স্থানীয় সেলিম ও জিয়া বাহিনীর সদস্য। এদের মধ্যে জয়নাল, রফিক, এরফান, সাহাব উদ্দিন, শাহজাহান, মীর কাশেম,জিহাদ, রফিক, রাসেল, শওকত, মিজান, কিলার মিজান,জাফর, শফিউল আলম ও নাজু ডাকাতকে তিনি চিনতে পেরেছেন বলে উল্লেখ করেন তিনি। এ দলে আরও বেশ কয়েকজন ছিলেন যাদের তিনি চিনতে পারেননি।

কালারমারছরা ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) চেয়ারম্যান তারেক শরীফ জানান, তাকে উঠিয়ে নেয়ার খবর পেয়ে পুলিশের সঙ্গে যোগাযোগ করা হয়। পুলিশ গিয়ে দেলোয়ারকে রক্তাক্ত অবস্থায় সেলিমদের আস্তানা থেকে উদ্ধার করে হাসপাতালে পাঠায়।

তিনি আরও জানান, ইউপি নির্বাচনে আমার কাছে হারার পর সেলিম তার বাহিনী নিয়ে আমাদের পরিবারের ওপর একের পর এক হামলা করছে।

মহেশখালী থানা পুলিশের ওসি জানান, একজন গুলিবিদ্ধ অবস্থায় পড়ে আছে এমন খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল নোনাছড়ি থেকে তাকে মুমূর্ষু অবস্থায় উদ্ধার করে মহেশখালী হাসপাতালে নিয়ে যায়। বর্তমানে দেলোয়ারের অবস্থা আশঙ্কাজনক বলে দাবি করেছেন তার পরিবার।

সায়ীদ আলমগীর/এমএএস/আইআই