ইছামতি নদীতে ডুবে গেল ২৫টি গরু

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি মানিকগঞ্জ
প্রকাশিত: ০৮:১৮ পিএম, ১৯ আগস্ট ২০১৮

মানিকগঞ্জের ঘিওরে ইছামতি নদীতে কোরবানির গরুবোঝাই ট্রলার ডুবির ঘটনা ঘটেছে। ট্রলারে থাকা মোট ৩৩টি গরুর মধ্যে সাতটি জীবিত উদ্ধার করা গেছে। একটি গরুর মরদেহ ভেসে গেলেও বাকি ২৫টি গরুসহ ট্রলারটি ডুবে যায়। রোববার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্র জানায়, টাঙ্গাইলের নাগরপুর ও মানিকগঞ্জের দৌলতপুর উপজেলার চরকাটারি এলাকার কয়েকজন খামারি এবং ব্যাপারী ৩৩টি গরু ট্রলারে নিয়ে ঢাকার মিরপুরে পশুর হাটে যাচ্ছিলেন। ঘিওর সরকারি কলেজ ব্রিজের নিচে স্রোতের কবলে পড়ে ট্রলারটি পিলারের সঙ্গে ধাক্কা লাগে। এতে গরুসহ ট্রলারটি উল্টে যায়। তবে সাতটি গরুসহ ব্যাপারী ও খামারিরা সাঁতরে তীরে ওঠতে সক্ষম হন।

দুর্ঘটনার পর কান্নায় ভেঙে পড়েন খামারিরা। দৌলতপুর উপজেলার চরকাটারি গ্রামের খামারি নবী প্রামাণিক বলেন, ঈদের সময় বিক্রি করবো বলে পরম যত্নে একটি গরু লালন-পালন করেছিলাম। হাটে নেয়ার পথে সেই গরুটি ট্রলার ডুবে মারা গেলো। বর্তমান বাজার দর অনুযায়ী গরুটি ৯০ থেকে ৯৫ হাজার টাকা বিক্রি হতো।

একই এলাকার সফিকুল আলম জানান, ডুবে যাওয়া ট্রলারে করে তিনিও একটি গরু নিয়ে হাটে যাচ্ছিলেন বিক্রি করার জন্য। তার স্ত্রী ও মেয়ে অনেক কষ্ট করে পালন করে গরুটি। গরুটি মারা যাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে তাদের ঈদের আনন্দ মাটি হয়ে গেলো।

ঘিওর থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা রবিউল ইসলাম জানান, ট্রলারডুবির খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসকে জানানো হয়। দুর্ঘটনায় গরু ছাড়া কোনো মানুষ হতাহত নেই।

মানিকগঞ্জ ফায়ার সার্ভিস বিভাগের উপ-সহকারী পরিচালক মিজানুর রহমান জানান, খবর পেয়ে ঘিওর, আরিচা ও মানিকগঞ্জ ফায়ার সার্ভিস বিভাগের কর্মীরা দিনভর উদ্ধার তৎপরতা চালান। ঘটনাস্থলের কাছেই ডুবে যাওয়া ট্রলারটি শনাক্ত করা গেছে। তবে নদীতে অনেক স্রোত। এটি উদ্ধারে বিআইডব্লিউটিএ’র সহযোগিতা চাওয়া হয়েছে।

বি.এম খোরশেদ/আরএআর/জেআইএম

আপনার মতামত লিখুন :