সবার দৃষ্টি সুলতান মনসুরের আসনে

রিপন দে
রিপন দে রিপন দে মৌলভীবাজার
প্রকাশিত: ০৯:৩৪ এএম, ১২ নভেম্বর ২০১৮

প্রায় ১৭ বছর পর আবারও ভোটের মাঠে নামছেন সিলেটের জনপ্রিয় নেতা ‘সিলেটের ম্যারাডোনা’ খ্যাত সুলতান মনসুর। কোন আসন থেকে নির্বাচন করবেন সুলতান মনসুর তা নিয়ে ইতোমধ্যে অনেক কৌতুহল শুরু হয়েছে সাধারণ ভোটারের মধ্যে।

সব দলই আগ্রহী সুলতানের নির্বাচনী আসন নিয়ে। তিনিই একমাত্র প্রার্থী যিনি সব দল থেকেই ভোট টানবেন। নিজের ব্যক্তি ইমেজের পাশাপাশি তার বাক্সে পড়বে সরকার দলীয় এবং সরকারবিরোধী ভোটও। তাই একাদশ সংসদ নির্বাচনে সুলতান যে চমক দেখাবেন তা আর বলার অপেক্ষা রাখে না।

তবে জাগো নিউজের সঙ্গে আলাপকালে সুলতান মনসুর জানান, তিনটি আসন তার পছন্দে রয়েছে। একটি তার জন্মস্থান এবং যে আসন থেকে তিনি বারবার নির্বাচন করেছেন মৌলভীবাজার-২ আসন, সিলেট -১ এবং ঢাকার আরও একটি আসন। তবে জোটের র্শীষ নেতারা ঠিক করবেন কে কোথায় নির্বাচন করবেন এবং কোন আসন কে পাবেন।

জানা যায়, সর্বশেষ ২০০১ সালের নিবার্চনে মৌলভীবাজার-২ আসন থেকে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন সুলতান মনসুর। আওয়ামী লীগের প্রভাবশালী নেতা ছিলেন তিনি। একসময় সুরঞ্জিত-সামাদের পর সিলেট থেকে কেন্দ্রে আওয়ামী লীগের ভবিষ্যৎ জাতীয় নেতা হিসেবে ভাবা হতো সুলতান মনসুরকে। কিন্তু ১/১১’র রাজনৈতিক পট পরিবর্তনে দল থেকে অনেকটা বিচ্ছিন্ন হয়ে যান সুলতান মনসুর।

দীর্ঘদিন নীরব ছিলেন রাজনীতি থেকে। তবে দূরে থাকলেও আবারও সক্রিয় হয়েছেন আওয়ামী লীগের আরেক সাবেক নেতা সংবিধান প্রণেতা ড. কামাল হোসেনের নেতৃত্বে ঐক্যফ্রন্টের ব্যানারে। ব্যক্তি হিসেবে সরকারবিরোধী শিবিরে যোগ দিলেও বদলাননি নিজের রাজনৈতিক আদর্শ। যেটা ভোটের মাঠে তার জন্য আশির্বাদ হয়ে দেখা দেবে।

তবে এরই মধ্যে সিলেটজুড়ে আলোচনা সৃষ্টি হয়েছে কোন আসন থেকে নির্বাচন করবেন সুলতান মনসুর। আর এ আলোচনার কেন্দ্রবিন্দুতে এসেছে মর্যাদাপূর্ণ সিলেট-১ আসন। এই আসন নিয়ে একটি প্রচলিত ধারণা আছে ‘যে জিতবে সেই সরকার গঠন করবে’। এই ধারণা বারবার সত্য প্রমাণিত হয়েছে স্বাধীন বাংলাদেশে। যখন যে দলের প্রার্থী এই আসন থেকে জয়ী হয়েছেন সেই দলই সরকার গঠন করেছে। তাই রাজনৈতিক দলগুলোও এ আসনে সব দিক বিবেচনায় নিয়ে হেভিওয়েট প্রার্থী দিয়ে থাকেন।

এর আগেও সাবেক অর্থমন্ত্রী সাইফুর রহমানকে হেভিওয়েট প্রার্থী হিসেবে মৌলভীবাজার থেকে সিলেট নিয়ে আসে বিএনপি জোট। কারণ এই আসনকে কোনোভাবেই হাতছাড়া করতে চায় না কোনো দল বা জোট। তাই হেভিওয়েট প্রার্থী হিসেবে সুলতান মনসুর এই আসন থেকে ঐক্যফ্রন্টের মনোনয়ন পাবেন সেটা অনেকটাই নিশ্চিত বলে মনে করছেন এক্যফ্রন্টের নেতা কর্মীরা।

সুলতান মনসুর সিলেট-১ আসন থেকে নির্বাচন করলে সেটা সিলেটের মাঠে একটি চমক হিসেবেই থাকবে, বদলে যাবে ভোটের হিসাব। কারণ এক সময়ের আওয়ামী লীগের ডাকসাইটে এই নেতার সিলেটজুড়ে ‘ক্লিন ইমেজের নেতা’ হিসেবে ব্যাপক জনপ্রিতা রয়েছে। সেইসঙ্গে একাদশ নির্বাচনে ঐক্যফ্রন্টের প্রার্থী হিসেবে বিএনপি জোটের ভোট ব্যংকের শতভাগ জমা হবে তার বাক্সে।

এমনকি ছাত্রলীগ নেতা হিসেবেও সিলেটের বর্তমান নেতাদের সঙ্গে রয়েছে সুলতান মনসুরের অন্তরঙ্গ সর্ম্পক যা ভোটের মাঠে সুলতানকে এগিয়ে নেবে।

অন্যদিকে গত সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনের পর সরকারের উচ্চ পর্যায় থেকে অসন্তোষ প্রকাশ করা হয় সিলেটে আওয়ামী লীগের গ্রুপিং নিয়ে। সে সময় আওয়ামী লীগের অনেকেই গ্রুপিংয়ের কারণে দলের বিপক্ষে ভোট দিয়েছেন বলে অভিযোগ আছে। জাতীয় নির্বাচনের আগে সে গ্রুপিং না মিটলে তাদের ভোটও জমা হবে সুলতান মনসুরের বাক্সে। আর এসব মিলিয়েই সুলতান মনসুরকে ঘিরে হিসাব মেলাচ্ছে ভোটের মাঠের বিভিন্ন দল ও জোট।

এফএ/পিআর

আপনার মতামত লিখুন :