শিশুটি নিয়ে বিপাকে বাবা-মা

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি নেত্রকোনা
প্রকাশিত: ০৯:৫৬ পিএম, ১৫ নভেম্বর ২০১৮

নেত্রকোনার দুর্গাপুর উপজেলায় অস্বাভাবিক এক শিশুর জন্ম দিয়েছেন মা। বুধবার রাত দেড়টার দিকে উপজেলার একটি বেসরকারি হাসপাতালে এ শিশুর জন্ম দেন মা শিখা রানী দাস। কিন্তু শিশুটি নিয়ে বিপাকে পড়েছেন বাবা-মা।

ত্রুটিপূর্ণভাবে জন্ম নেয়া শিশুটির উন্নত চিকিৎসার জন্য চিকিৎসকরা জরুরি ভিত্তিতে বড় কোনো হাসপাতালে স্থানান্তর করার পরামর্শ দিলেও অর্থাভাবে তা করতে পারছেন না শিশুর বাবা-মা। নিরুপায় হয়ে গণমাধ্যমের সহায়তায় সরকারের সহযোগিতা চেয়েছেন তারা।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, বুধবার রাত দেড়টার দিকে দুর্গাপুর উপজেলা সদরের ২নং ওয়ার্ডের সাধুপাড়া এলাকার অজিত চন্দ্র দাসের স্ত্রী শিখা রানী দাস স্থানীয় মাতৃসদন ও ল্যাবরেটরি হাসপাতালে অস্বাভাবিক ছেলে শিশুটির জন্ম দেন।

সদ্য জন্ম নেয়া প্রায় আড়াই কেজি ওজনের শিশুটির পেটের অভ্যন্তরীণ হজমের নাড়ি বা অন্ত্র পেটের বাইরে বেরিয়ে আছে। অন্যদিকে শিশুটির ডান চোখ বন্ধ। মুখ-ঠোঁট ও তালুকাটা রয়েছে শিশুটির।

হাসপাতালের চিকিৎসক কাজী এএইচ মোস্তফা কামাল বলেন, নির্ধারিত তারিখের দুই সপ্তাহ আগে জন্ম নেয়া শিশুটির মারাত্মক জন্মগত ত্রুটি রয়েছে। তবে জরুরি ভিত্তিতে বড় কোনো হাসপাতালে নিয়ে সার্জারি করলে শিশুটি সুস্থ হয়ে যেতে পারে। সার্জারির মাধ্যমে তার বাইরে থাকা নাড়ি পেটের মধ্যে নিয়ে প্রতিস্থাপন করতে হবে। বর্তমানে শিশুটিকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়েছে।

শিশুটি বাবা অজিত চন্দ্র দাস ঢাকায় একটি সেলুনে কাজ করেন। উন্নত চিকিৎসা করানোর মতো তার সামর্থ্য নেই। তাই স্থানীয় গণমাধ্যম কর্মীদের শরণাপন্ন হয়ে সরকার বা বিশেষায়িত হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের সহযোগিতা চেয়েছেন তিনি।

কামাল হোসাইন/এএম/পিআর

আপনার মতামত লিখুন :