এক সাঁকো তিন গ্রামের ভরসা

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি সাতক্ষীরা
প্রকাশিত: ০৯:৪২ এএম, ১৯ জানুয়ারি ২০১৯

সাতক্ষীরার আশাশুনি উপজেলার কাদাকাটি ইউনিয়নে ঝুঁকিপূর্ণ একটি সাঁকো দিয়ে তিন গ্রামের মানুষের যাতায়াত। শিশু শিক্ষার্থী থেকে শুরু করে বয়স্করাও প্রতিদিন চরম ভোগান্তির স্বীকার হচ্ছেন এ সাঁকো পার হতে গিয়ে।

কাদাকাটির খেজুরযাঙ্গা নদীর উপর নির্মিত ঝুঁকিপূর্ণ সাঁকোটিই বছরের পর বছর তিন গ্রামের মানুষের যাতায়াতের অবলম্বন হিসেবে ব্যবহৃত হচ্ছে।

স্থানীয়রা জানান, নদীটির এক পাড়ে খেজুরডাঙ্গা, অপর পাড়ে পার খেজুরডাঙ্গা ও বাঁশতলা গ্রাম। এখানে প্রায় ১৪ থেকে ১৫ হাজার মানুষের বাসবাস। খেজুরডাঙ্গা নদীটির উপর ব্রিজ না থাকায় পারাপারে ভোগান্তির শেষ থাকে না। স্কুলে যাতায়াতের অনেক সময় সাঁকো থেকে পা পিছলে নদীতে পড়ে যায় শিশুরা।

এছাড়া নদীর অপর পাড়ে চাষাবাদের কাজ করতে যেতে এবং ফসল বাড়ি আনতে খুব সমস্যা হয় কৃষকদের। নদীর উপর ব্রিজ নির্মাণ করলে ভোগান্তি কমবে বলে আশা স্থানীয় বাসিন্দাদের।

সংগীতা রানী নামে এক অভিভাবক জানান, তাদের সন্তানদের স্কুলে পাঠাতে সাঁকো পার করে দিতে হয়। আবার স্কুল ছুটির পর তাদেরকে পার করে নিয়ে আসতে হয়। এতে অনেক ভোগান্তি হয়।

শিশু শিক্ষার্থী অঞ্জনা দাশ জানায়, ভয়ে ভয়ে তাদের সাঁকো পার হতে হয়।

দুর্ভোগের চিত্র তুলে ধরে খেজুরডাঙ্গা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক বিপ্লব কুমার গাইন জানান, নদীর অপর পাড়ের শিক্ষার্থীরা প্রতিনিয়ত দীর্ঘ ও ঝুঁকিপূর্ণ সাঁকোটি দিয়ে স্কুলে যাতায়াত করে। অনেক জানিয়েছেন কিন্তু কোনো ফল হয়নি।

আশাশুনি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মীর আলিফ রেজা জানান, ওখানে ব্রিজ নির্মাণের কথা থাকলেও প্রশাসনিক জটিলতার কারণে নির্মাণ করা সম্ভব হচ্ছে না বলে জেনেছি। সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে আলোচনা করে পদক্ষেপ নেয়া হবে।

আকরামুল ইসলাম/এফএ/এমএস

আপনার মতামত লিখুন :