ইঞ্জিনিয়ার কী ঘোড়ার ঘাস কাটে, বাধা দেয় না কেন?

সঞ্জিত সাহা
সঞ্জিত সাহা সঞ্জিত সাহা নরসিংদী
প্রকাশিত: ০৯:১৭ পিএম, ২৩ জানুয়ারি ২০১৯

নরসিংদীর মনোহরদী বাসস্ট্যান্ডে পৌরসভার অনুমোদন না নিয়েই অবৈধভাবে বহুতল বাণিজ্যিক ভবন নির্মাণ করা হচ্ছে। একই সঙ্গে ভবন নির্মাণে দখল করা হয়েছে সরকারি জমি। এক্ষেত্রে মানা হচ্ছে না ইমারত নির্মাণের কোনো বিধি। বিষয়টি নিশ্চিত করেছে পৌর কর্তৃপক্ষ।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে অবৈধভাবে বহুতল বাণিজ্যিক ভবন নির্মাণকারী আজম সরকার তার ভবন নির্মাণের অনুমোদনের বিষয়ে সুনির্দিষ্ট কোনো তথ্য জানাতে পারেনি। উল্টো দম্ভোক্তি করে বলেছেন, ইঞ্জিনিয়ার কী ঘোড়ার ঘাস কাটে, বাধা দেয় না কেন আমাদের?

এর আগে আজম সরকারের বিরুদ্ধে ঐতিহ্যবাহী মনোহরদী পরিবহনের অফিস লুটপাট ও কাউন্টার ভাঙচুরের অভিযোগ ওঠেছিল। গাজীপুরের কাপাশিয়ার মরিয়ম গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক আলম সরকারের নিকট আত্মীয়ের পরিচয় দিয়ে মনোহরদীতে তিনি এ অরাজকতা করছেন বলে জানিয়েছেন স্থানীয়রা।

Narsingdi-Illegal-Commercial

স্থানীয়দের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, মনোহরদী বাসস্ট্যান্ডের মিলন মিয়া নামে এক ব্যক্তির কাছ থেকে বায়নাপত্রে ৫ শতাংশ জমির মালিকানা নিয়েছেন আজম সরকার। ওই জমিতে তিনি গত দুই মাস ধরে ভবন নির্মাণের কাজ করছেন। ইতোমধ্যে ভবনের বেসমেন্টের কাজ শেষ হয়েছে। কিন্তু পৌর এলাকায় ভবন নির্মাণের ক্ষেত্রে ইমারত নির্মাণের আইন অনুযায়ী ভবনের সামনে ৫ ফুট ও বাকি সব দিকে ৩ ফুট জায়গা খালি রাখার বিধান থাকলেও তা মানা হয়নি। উল্টো ভবনের সামনে সড়ক ও জনপথ বিভাগের জায়গা দখল করে ভবনের সিড়ি নির্মাণ করেছেন তিনি।

সরেজমিনে দেখা যায়, বাসস্ট্যান্ডের মূল সড়কে রাখা হয়েছে ভবনের নির্মাণ সামগ্রী বালু, ইট ও বাঁশসহ নির্মাণ সামগ্রী। ফলে সড়কে জনসাধারণের চলাচল বিঘ্ন হচ্ছে। কিন্তু এ নিয়ে প্রতিবাদ করার সাহস পাচ্ছেন না স্থানীয়রা।

ভবন নির্মাণকারী শ্রমিক লাবলু মিয়া বলেন, ১০ তলা ফাউন্ডেশন দিয়ে ভবনটি নির্মাণ করা হচ্ছে। মালিক যেভাবে বলছেন, সেভাবেই ভবনের কাজ করা হচ্ছে। ভবনের সামনে সড়কের ওপর যে সিড়ি নির্মাণ করা হয়েছে তা টেম্পোরারি ব্যবহারের জন্য করা হয়েছে।

Narsingdi-Illegal-Commercial

এ বিষয়ে স্থানীয় কাউন্সিলর মাসুদ রানা বলেন, আজম সরকারের ভাব দেখে মনে হয়, তিনি মগের মুল্লুক পেয়েছেন। টাকার জোরে নিয়মনীতি উপেক্ষা করে ভবন নির্মাণ করছেন। এ বিষয়ে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা জরুরি।

জানতে চাইলে মনোহরদী পৌরসভার সহকারী প্রকৌশলী (ভারপ্রাপ্ত) মাহবুব আলম বলেন, শুনেছি আজম সরকার নামে এক ব্যক্তি বাসস্ট্যান্ডে বহুতল বাণিজ্যিক ভবন নির্মাণ করছেন। কিন্তু ভবন নির্মাণে তারা পৌরসভায় নকশা অনুমোদনের কোনো আবেদন করেননি। কিভাবে করছেন তা আমাদের জানা নেই। বিষয়টি আমরা ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানিয়েছি।

এ ব্যাপারে মনোহরদী পৌরসভার মেয়র আমিনুর রশিদ সুজন বলেন, আইনের বাইরে যদি কেউ ভবন নির্মাণ করে থাকে তাহলে তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

সঞ্জিত সাহা/এএম/জেআইএম

আপনার মতামত লিখুন :