মেঘালয়ে ১৪৪ ধারা, সিলেট সীমান্তে সতর্কতা

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক সিলেট
প্রকাশিত: ০১:৩০ এএম, ২০ জুলাই ২০১৯

ভারতের মেঘালয় রাজ্যের পূর্ব খাসিয়া হিলস সীমান্তে ১৪৪ ধারা জারি করায় সিলেটের সীমান্তবর্তী এলাকাগুলোতে রাতে চলাচলে সতর্কতা জারি করেছে জেলা প্রশাসন।

শুক্রবার (১৯ জুলাই) থেকে সিলেটের কোম্পানীগঞ্জ ও গোয়ানঘাটসহ সকল সীমান্তে প্রতিদিন সন্ধ্যা ৬টা থেকে ভোর ৬টা পর্যন্ত জনসাধারণকে সতর্কতা অবলম্বন করে চলাচল করতে বলা হয়েছে। এজন্য সীমান্তবর্তী সকল উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাদের জেলা প্রশাসন থেকে নির্দেশনা দেয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন সিলেটের অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট (এডিএম) মোহাম্মদ আবুল কালাম।

তিনি বলেন, ‘ভারতের মেঘালয় রাজ্যের পূর্ব খাসিয়া হিলস সীমান্তে ১৪৪ ধারা জারি করা হয়েছে। বিষয়টি অবগত করে ভারতের পূর্ব খাসিয়া হিলস জেলা প্রশাসন বাংলাদেশের প্রশাসনকে একটি চিঠি দিয়েছে। গত ১৪ জুলাই এটি আমাদের হাতে এসেছে। এর পরিপ্রেক্ষিতে সীমান্ত এলাকায় রাতে চলাচলে সতর্কতা জারি করতে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাদের অবগত করা হয়েছে। তারা নিজ নিজ এলাকায় ব্যবস্থা নিয়েছেন।’

এ ব্যাপারে কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বিজেন ব্যানার্জি জানান, গত ৫ জুলাই মেঘালয় রাজ্যের প্রশাসন একটি চিঠি প্রেরণ করে। চিঠিটি আমাদের হাতে আসতে অনেক দেরি হয়েছে। চিঠি পাওয়ার পর শুক্রবার থেকে কোম্পানীগঞ্জ সীমান্তের ৫০০ মিটার এলাকার মধ্যে প্রতিদিন সন্ধ্যা ৬টা থেকে পরদিন ভোর ৬টা পর্যন্ত চলাফেরায় সতর্কতা জারি করা হয়েছে। পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত এই নিষেধাজ্ঞা বলবৎ থাকবে।

তিনি আরও বলেন, ‘এর আগে মৌখিকভাবে ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনী (বিএসএফ) বিষয়টি আমাদের বর্ডার গার্ডকে (বিজিবি) অবগত করেছে। মৌখিকভাবে অবগত করায় আমরাও আনুষ্ঠানিকভাবে সতর্কতা দেখিয়ে যেতে বলিনি। চিঠি পাওয়ার পর শুক্রবার থেকে সতর্কতা জারি করা হয়েছে। বিজিবির পক্ষ থেকেও সীমান্তবর্তী এলাকাগুলোতে সতর্ক থাকতে মাইকিং করা হয়েছে।’

‘এই সতর্কতা শুধু কোম্পানীগঞ্জের জন্য নয়, মেঘালয় রাজ্যের পূর্ব খাসিয়া হিলস সীমান্তে বাংলাদেশের যতটা সীমান্ত রয়েছে সব এলাকাতে সতর্কতা জারি করা হয়েছে’-যোগ করেন বিজেন ব্যানার্জি।

এর আগে শুক্রবার দুপুরে স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ও সাংবাদিকদের নিয়ে বৈঠক করে উপজেলা প্রশাসন। এরপর জনসাধারণকে সতর্ক করতে সীমান্ত এলাকায় মাইকিং করা হয়। মাইকিংয়ের মাধ্যমে সন্ধ্যা ৬টা থেকে ভোর ৬টা পর্যন্ত সীমান্তের ৫০০ মিটারের মধ্যে কাউকে না যাওয়ার নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

ছামির মাহমুদ/এসআর

আপনার মতামত লিখুন :