বরের আগেই কনের বাড়িতে হাজির এসিল্যান্ড

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি ফরিদপুর
প্রকাশিত: ০৩:১০ পিএম, ০৭ আগস্ট ২০১৯

বর আসার আগেই কনের বাড়িতে উপস্থিত হয়ে বাল্যবিয়ে বন্ধ করে দিয়েছেন ফরিদপুর সদর উপজেলার সহকারি কমিশনার (ভূমি) মো. পারভেজ মল্লিক। তার হস্তক্ষেপে বাল্যবিয়ের হাত থেকে রক্ষা পেয়েছে মিথিলা আক্তার (১৪) নামে এক স্কুলছাত্রী।

বুধবার দুপুরে শহরের আদেল মাতুব্বরের ডাঙ্গি গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। মিথিলা ফরিদপুর বর্ধিত পৌরসভার উত্তর বিল মাহমুদপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের ৮ম শ্রেণির ছাত্রী।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, ফরিদপুর বর্ধিত পৌরসভার আদেল মাতুব্বরের ডাঙ্গি গ্রামের কাঠমিস্ত্রী হাসেম মল্লিকের মেয়ে মিথিলা আক্তারের সঙ্গে জেলার সালথা উপজেলার টুটুলদিয়া গ্রামের আলী মল্লিকের ছেলে রহিম মল্লিকের (২১) বুধবার বিকেলে বিয়ের দিন ধার্য ছিল।

গোপন সংবাদের ভিত্তিতে বরপক্ষ আসার আগেই দুপুর ১টার দিকে কনের বাড়িতে উপস্থিত হন এসিল্যান্ড মো. পারভেজ মল্লিক। পরে কনে মিথিলা আক্তারের জন্ম সনদ দেখে বয়স কম হওয়ায় তাৎক্ষণিক বিয়ে বন্ধের নির্দেশ দেন তিনি।

এদিকে এসিল্যান্ড বাড়িতে ঢুকতেই কনের বাবা-মা পালিয়ে যান। পরে কনের নানী এসিল্যান্ডের সঙ্গে কথা বলেন। এ সময় তিনি স্থানীয় লোকজনদের দিয়ে বর পক্ষকে মোবাইল ফোনের মাধ্যমে কনের বাড়িতে আসতে নিষেধ করে দেন।

Faridpur-2

পরে কনের বাবা-মা পালিয়ে থাকায় স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতা আবুল কালাম আজাদ ও সেলিম মিয়া প্রাপ্তবয়স্ক না হওয়া পর্যন্ত মিথিলাকে বিয়ে দেয়া হবে না- মর্মে এসিল্যান্ডের কাছে মুচলেকা দেন।

এ সময় ব্লাস্টের সমন্বয়কারী অ্যাডভোকেট শিপ্রা গোস্বামী, রাসিনের নির্বাহী পরিচালক ও নারী নেত্রী আসমা আক্তার মুক্তা, লাভলী আক্তারসহ পুলিশ কর্মকর্তা ও বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।

ফরিদপুর সদর উপজেলা সহকারি কমিশনার (ভূমি) মো. পারভেজ মল্লিক বলেন, বাল্যবিয়ের খবর পেয়ে পৌরসভার আদেল মাতুব্বরের ডাঙ্গি গ্রামে গিয়ে উপস্থিত হই। বিয়ের বয়স না হওয়ায় মিথিলার বিয়ে বন্ধ করে দেয়া হয়েছে।

বি কে সিকদার সজল/এমএমজেড/জেআইএম