কোরবানির পশুর বর্জ্য পরিষ্কার করে প্রশংসায় ভাসছে ছাত্রলীগ

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি কক্সবাজার
প্রকাশিত: ১১:৪৯ এএম, ১৫ আগস্ট ২০১৯

দেশের ক্রান্তিকাল কিংবা যেকোনো প্রয়োজনে মাঠে থেকেছে ছাত্রলীগ। ইতিহাসই এর সাক্ষ্য বহন করে। সেই ধারাই কক্সবাজার শহরের অলিগলিতে খুঁজে খুঁজে কোরবানির পশুর বর্জ্য অপসারণের উদ্যোগ নিয়ে প্রশংসায় ভাসছে জেলা ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা। সংগঠনটির কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক ও ডাকসুর জিএস গোলাম রাব্বানীর পরামর্শে এ পরিচ্ছন্নতা অভিযানে নামার কথা প্রচার পাওয়ায় তার (গোলাম রাব্বানী) তীক্ষ্ণ দৃষ্টিভঙ্গির প্রশংসায় পঞ্চমুখ উপকারভোগীরা।

স্থানীয় ব্যবসায়ী নেতা আজিজ মওলা চৌধুরী বলেন, বায়ান্নর ভাষা আন্দোলন থেকে স্বাধীনতা সংগ্রাম এবং পরবর্তী সকল ক্রান্তিকালে রাজপথে নামা সংগঠন ছাত্রলীগ। মাঝখানে কিছু নেতাকর্মীর কারণে সংগঠনটির বদনাম ছড়িয়েছিল। কিন্তু চলমান সময়ে পুরোনো ঐতিহ্যের পথেই হাঁটছে তারা। সময়ের যেকোনো প্রয়োজনে এখন প্রগতিশীল ছাত্রলীগকে সামাজিক সমস্যা সমাধানেও আত্মনিয়োগ করতে দেখা যায়। কোরবানির বর্জ্য পরিষ্কারে ভূমিকা রেখে তারই প্রমাণ দিয়েছে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা। কয়েকজন ছাত্রলীগ নেতা উদ্যোগী হয়ে খুঁজে খুঁজে বর্জ্য পৌরসভার গাড়িতে তুলে দেয়ায় পরেরদিন থেকেই এলাকায় কোনো দুর্গন্ধ নেই। সবাই স্বাচ্ছন্দ্যে ব্যবসা করতে পারছে। বসবাসেও ভোগান্তি হচ্ছে না।

বড় বাজার এলাকার বাসিন্দা ফয়সাল খান বলেন, অতীতে কোরবানি ঈদের কয়েকদিন পরও বর্জ্যের দুর্গন্ধে এলাকায় টেকা দায় হয়ে পড়ত। ছাত্রলীগের বর্জ্য অপসারণ কর্মসূচিতে শহরটি দ্রুত বর্জ্যমুক্ত হয়েছে। শুনেছি কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদকের পরামর্শে কক্সবাজার শহরে ছাত্রলীগের একটি গ্রুপ বর্জ্য অপসারণে মাঠে সার্বক্ষণিক কাজ করেছে। সাধারণ মানুষের ভোগান্তির কথা যে নেতার মাথায় থাকে তিনি সত্যিকার অর্থেই বঙ্গবন্ধুর আদর্শের সৈনিক।

BCL-cox-

কক্সবাজার কেন্দ্রীয় জামে মসজিদের সহকারি ইমাম হেলাল উদ্দিন বলেন, পবিত্রতা ও পরিচ্ছন্নতা ঈমানের অঙ্গ। ছাত্রলীগ নেতাকর্মীদের পরিচ্ছন্নতার এই উদ্যোগ সবার মাঝে সচেতনতা বাড়াবে বলে আমার বিশ্বাস।

জানা গেছে, কক্সবাজার জেলা ছাত্রলীগের শিক্ষা ও পাঠচক্র বিষয়ক উপ-সম্পাদক মারুফ আদনানের নেতৃত্বে কক্সবাজার শহরের নুরপাড়া, পেশকারপাড়া, বাজারঘাটাসহ বিভিন্ন স্থানে কোরবানির পশুর বর্জ্য অপসারণ অভিযান চালায় সংগঠনটির স্থানীয় নেতাকর্মীরা। ছাত্রলীগের এ উদ্যোগকে স্বাগত জানিয়ে স্থানীয় সাধারণ মানুষও তাদের সঙ্গে যোগ দেয়।

BCL-cox-

জেলা ছাত্রলীগ নেতা মারুফ আদনান বলেন, ‘কেন্দ্রীয় সংসদের সাধারণ সম্পাদক ও ডাকসুর জিএস মানবিক ছাত্রনেতা গোলাম রাব্বানীর নির্দেশে ছাত্রলীগ বরাবরই দেশ ও জনগণের স্বার্থে কাজ করে আসছে। আমাদের কাজটি এরই ধারাবাহিকতা। মানুষ নিজ নিজ অবস্থান থেকে সচেতন হলে সমাজ আপনা আপনি সুন্দর হয়ে উঠবে।’

পরিচ্ছন্নতা কাজে অংশ নেন কক্সবাজার জেলা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি ইসমাইল সাজ্জাদ, হারুনর রশিদ মিথুন, যুগ্ন-সাধারণ সম্পাদক রুবাইছুর রহমান, উপ-আইন সম্পাদক আবুল কাশেম আবু, শহর ছাত্রলীগের উপ-আইন সম্পাদক ওয়াসিম সিকদার, ফয়সাল, জিয়া উদ্দান, আরিফ, মারুফ, সাফসান সাজ্জাদ, নহিদ, ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি শাখা ছাত্রলীগের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক মনিরুন হক মনির, কক্সবাজার মেডিকেল কলেজ ছাত্রলীগ নেতা নাহিদ, ৩ ও ৪ নং ওয়ার্ড ছাত্রলীগ নেতা মো. সাকিল, সম্রাট, আবু নাসির, সাকিল, শাহেদ হক, জাহেদ, আবুল কালাম, রহিম, ইমরান, সোহান, রাহাত, অয়ন প্রমুখ।

সায়ীদ আলমগীর/এমবিআর/জেআইএম

আপনার মতামত লিখুন :