পাগলা কুকুর ও বানরের কামড়ে আহত অর্ধশতাধিক

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি ময়মনসিংহ
প্রকাশিত: ০৬:১৬ পিএম, ২২ আগস্ট ২০১৯

ময়মনসিংহের নান্দাইল পৌরসভার সদর বাজারে ইদানীং বেওয়ারিশ কুকুরের উপদ্রব বেড়ে গেছে। গত ২৪ ঘণ্টায় পৌর সদরে বেওয়ারিশ কুকুর ও বন্য বানরের কামড়ে শিশু ও নারীসহ অর্ধশত মানুষ আহত হয়েছে।

শুধু বৃহস্পতিবার দুপুরেই উপজেলা সদর বাজার থেকে হাসপাতাল মোড় পর্যন্ত রাস্তায় কমপক্ষে বিশ পথচারীকে কামড়িয়ে আহত করে পাগলা কুকুর।

আহতদের মধ্যে পৌর শহরের ভূইয়াপাড়া গ্রামের রিপন মিয়ার ছেলে মোবারক হোসেন (৭), আমোদাবাদ গ্রামের শহীদুল্লাহ খানের স্ত্রী নার্গিস (৩৫), খারুয়া গ্রামের ফজলুর রহমানের ছেলে মুজিবুর রহমান (৬) এবং চারিআনিপাড়া গ্রামের বাবুল মিয়ার স্ত্রী রেখার (১৮) নাম জানা গেছে।

নান্দাইল পৌর শহরের বাসিন্দা আব্দুল হান্নান বলেন, অধিকাংশ কুকুর শরীরে দগদগে ঘা ও র‌্যাবিসবাহিত রোগ নিয়ে প্রকাশ্যে বিচরণ করছে। এসব কুকুরের কামড়ে জলাতঙ্ক রোগে আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কা নিয়ে চলাফেরা করছে সাধারণ মানুষ।

অপরদিকে পৌরসভার চন্ডীপাশা মহল্লায় দলছুট একটি বন্য বানর কমপক্ষে দশজনকে কামড়িয়ে আহত করেছে। আহতদের মধ্যে ওই মহল্লার খোকনের ছেলে শাওন (৬), অরুন চন্দ্র দের মেয়ে জবা (৭), সংগ্রামের ছেলে আনন্দ (৮) জিতেন্দ্র দের ছেলে আকাশ (১৪), শহীদুল ইসলামে মেয়ে হাবিবা খাতুন (৯), আ. কদ্দুসের মেয়ে শামীমা আক্তার শান্তা (১০) এবং অরুন চন্দ্র ভদ্রের মেয়ে পূজাকে (৮) হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়েছে।

নান্দাইল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের কর্মকর্তা কাজী এনামুল হক জানান, বৃহস্পতিবার দুপুর পর্যন্ত ৩০ জনেরও বেশি কুকুরের কামড়ে আহত হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়েছে। তাদের ময়মনসিংহ এস কে হাসপাতাল (সূর্যকান্ত হাসপাতাল) থেকে টিকা নিতে পরামর্শ দেয়া হয়েছে।

রকিবুল হাসান রুবেল/এমবিআর/এমকেএইচ

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]