সুলতানের সংসার চলবে কীভাবে?

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক রাজশাহী
প্রকাশিত: ০৯:২৮ পিএম, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯

বেপরোয়া বাসের ধাক্কায় বাম পা হারালেন রাজশাহীর ভ্যানচালক সুলতান আলী (৪৫)। গতকাল বুধবার ভোরে নগরীর বিনোদনপুর এলাকায় নাটোরগামী একটি যাত্রীবাহী বাস তাকে ধাক্কা দেয়।

থেঁতলে যাওয়া পা নিয়ে তখনই সুলতানকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালে নেয়া হয়। রাতে তার থেঁতলে যাওয়া পা হাঁটু থেকে কেটে বাদ দেন চিকিৎসক। কাটা পা নিয়েই হাসপাতালে ৩১ নম্বর ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন এ ভ্যানচালক।

জানতে চাইলে নাম প্রকাশ না করে ওই ওয়ার্ডের দায়িত্বরত এক চিকিৎসক বলেন, তার পা মারাত্মকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছিল। পা কেটে ফেলা ছাড়া কোনো উপায় ছিল না।

আহত সুলতান রাজশাহীর দুর্গাপুর উপজেলার পালি এলাকার বাসিন্দা। এক ছেলে ও এক মেয়ের বাবা সুলতান ছিলেন সংসারের একমাত্র উপার্জনক্ষম ব্যক্তি। ভ্যান চালিয়ে সংসার চালাতেন তিনি। দুর্ঘটনায় পা হারিয়ে ফেলায় সংসার নিয়ে চরম অনিশ্চতায় পড়েছেন এ ভ্যানচালক।

আহত সুলতান বলেন, ভোরে এলাকার একটি খামার থেকে মুরগির ডিম সংগ্রহ করে রাজশাহী নগরীর সাহেববাজারে পৌঁছে দিতে যাচ্ছিলেন তিনি। পথে বিনোদনপুর এলাকায় বেপরোয়া একটি বাস তাকে ধাক্কা দেয়। এতে তার পা থেঁতলে যায়। এসময় বিশ্ববিদ্যালয় দমকল কর্মীরা তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নেন।

আহত সুলতানের স্ত্রী রিনা খাতুন বলেন, তার স্বামীর আয়ে সংসার চলছিল। দুর্ঘটনায় প্রাণে বাঁচলেও তিনি পুরোপুরি পঙ্গু হয়ে গেছেন। এ অবস্থায় সংসার চলবে কীভাবে?

তিনি আরও বলেন, ১১ বছর বয়সী ছেলে এবং চার বছরের মেয়ের ভবিষ্যৎ নিয়ে চরম দুশ্চিন্তায় পড়েছেন তিনি। তাদের মানুষ করবেন কীভাবে?

জানতে চাইলে নগরীর মতিহার থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) হাফিজুর রহমান বলেন, দুর্ঘটনার পর ওই ভ্যানচালককে ধাক্কা দেয়া ‘উর্মি পরিবহন’ নামের বাসটি জব্দ করেছে পুলিশ। তবে চালক পালিয়ে গেছেন। এ নিয়ে আইনি ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে বলে জানান ওসি।

ফেরদৌস/এমএএস/জেআইএম