নুসরাত হত্যা : আসামিদের ডেথ রেফারেন্স যাচ্ছে উচ্চ আদালতে

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি ফেনী
প্রকাশিত: ১১:২১ পিএম, ২৮ অক্টোবর ২০১৯

ফেনীর আলোচিত নুসরাত হত্যা মামলায় দণ্ডিত ১৬ আসামির ডেথ রেফারেন্স মঙ্গলবার উচ্চ আদালতে যাচ্ছে। এদিকে ফেনী জেলা কারাগারে প্রয়োজনীয় কনডেম সেল না থাকায় দণ্ডিত ১৬ আসামিকে অন্যত্র স্থানান্তরের আবেদন করেছে কারা কর্তৃপক্ষ।

গতকাল রাতে ফেনী জেলা জজ আদালতের পাবলিক প্রসিকিউটর (পিপি) হাফেজ আহাম্মদ জানান, নুসরাত হত্যা মামলায় ফেনীর নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক মামনুর রশিদ নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনের ৪(১)/৩০ ধারায় ১৬ আসামির মৃত্যুদণ্ড রায় দেন। ওই রায় অনুমোদনের জন্য মামলার নথি ফৌজদারি কার্যবিধির ৩৭৪ ধারা মোতাবেক ডেথ রেফারেন্স আকারে মঙ্গলবার হাইকোর্টে পাঠানো হবে।

দণ্ডবিধির ৩৭৪ ধারা মোতাবেক দায়রা জজ আদালতের মৃত্যুদণ্ডের রায় হাইকোর্ট বিভাগে অনুমোদিত না হওয়া পর্যন্ত দণ্ড কার্যকর করা যাবে না।
মামলার বাদী পক্ষের আইনজীবী শাহ জাহান সাজু বলেন, নুসরাত হত্যা মামলার ডেথ রেফারেন্স অগ্রাধিকার ভিত্তিতে উচ্চ আদালতে শুনানির জন্য আইন মন্ত্রণালয় থেকে অ্যাটর্নি জেনারেল কার্যালয়কে নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

তিনি বলেন, মামলা নিষ্পত্তিতে যাতে কম সময় লাগে, সে বিষয়ে অ্যাটর্নি জেনারেলের সঙ্গে আমি কথা বলবো। তার এমন ভূমিকায় মামলার বাদী পক্ষের আইনজীবীরা আশাবাদী হয়েছে বলে তিনি জানান।

এদিকে ফেনী জেলা কারাগারের সিনিয়র জেল সুপার মো. রফিকুল কাদির জানান, ফেনী জেলা কারাগারে ৮টি কনডেম সেল রয়েছে। কারাবিধি মোতাবেক ফাঁসির দণ্ডপ্রাপ্ত আসামিদের পৃথক সেলে রাখতে হয়। কিন্তু ফেনী জেলা কারাগারে ফাঁসির মঞ্চ না থাকায় এখানে প্রয়োজনীয় সংখ্যক কনডেম তৈরি করা হয়নি।

তিনি জানান, ১৬ জন আসামিকে আমরা অন্য আসামিদের সাথে রেখেছি। যার কারণে কারা এলাকায় নিরাপত্তা জোরদার করা হয়েছে। আলোচিত এ মামলার রায়ের কপি হাতে পেলে এসব ফাঁসির দন্ডপ্রাপ্ত আসামিদের কনডেম সেল যুক্ত কারাগারে স্থানান্তর করার জন্য কারা মহাপরিদর্শকের কাছে আবেদন করা হবে।

এর আগে ২৪ অক্টোবর আলোচিত নুসরাত হত্যা মামলায় ১৬ আসামির ফাঁসি ও ১ লাখ টাকা অর্থদণ্ড ঘোষণা করে ফেনীর নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনের বিচারক মো. মামুনুর রশিদ। মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত আসামিরা হলেন- সোনাগাজী ইসলামিয়া সিনিয়র ফাজিল মাদরাসার সাবেক অধ্যক্ষ এস.এম সিরাজ উদ দৌলা (৫৭), নুর উদ্দিন (২০), শাহাদাত হোসেন শামীম (২০), কাউন্সিলর ও সোনাগাজী পৌর আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক মাকসুদ আলম (৫০)।

এ ছাড়া সাইফুর রহমান মোহাম্মদ জোবায়ের (২১), জাবেদ হোসেন ওরফে সাখাওয়াত হোসেন (১৯), হাফেজ আব্দুল কাদের (২৫), আবছার উদ্দিন (৩৩), কামরুন নাহার মনি (১৯), উম্মে সুলতানা ওরফে পপি (১৯), আব্দুর রহিম শরীফ (২০), ইফতেখার উদ্দিন রানা (২২), ইমরান হোসেন ওরফে মামুন (২২), সোনাগাজী উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও মাদরাসার সাবেক সহ-সভাপতি রুহুল আমিন (৫৫), মহিউদ্দিন শাকিল (২০) ও মোহাম্মদ শামীম (২০)।

রাশেদুল হাসান/এমআরএম