ঝালকাঠিতে ৩ দিন ধরে বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি ঝালকাঠি
প্রকাশিত: ০৯:২৫ এএম, ১১ নভেম্বর ২০১৯

ঘূর্ণিঝড় বুলবুলের প্রভাবে ঝালকাঠি জেলায় প্রায় চারশ বসতঘর ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। ঝড়ে বিভিন্ন এলাকায় বৈদ্যুতিক তার ছিঁড়ে যাওয়ায় তিনদিন ধরে বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন রয়েছে। এছাড়া ঝড়ের কবলে পড়ে কয়েক হাজার গাছ বসতবাড়ি ও রাস্তার ওপর হেলে পড়েছে। বেশকিছু গবাদি পশুর মৃত্যুর খবরও পাওয়া গেছে।

শুক্রবার রাতে দমকা হাওয়া ও বৃষ্টির সময় দুর্ঘটনা এড়াতে বৈদ্যুতিক সুইচ বন্ধ করে রাখে বিদ্যুৎ কর্তৃপক্ষ। সোমবার সকাল পর্যন্ত বৈদ্যুৎ সংযোগ চালু হয়নি। ফলে তিন দিন ধরে বিদ্যুৎ না থাকায় সীমাহীন ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে জেলাবাসীকে।

সোমবার সকালে সরেজমিনে দেখা গেছে, জেলা শহরের অনেক গুরুত্বপূর্ণ সড়কসহ নিম্নঞ্চাল প্লাবিত হয়েছে। এছাড়া বৃষ্টির পানি জমে জেলার অনেক স্থানে জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হয়েছে। জেলা শহরের রাস্তাঘাট, ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ও অনেক বাসাবাড়িতেও পানি ঢুকেছে। এছাড়াও উপজেলা পরিষদ চত্বর, জেলা সরকারি কর্মকর্তাদের বাসভবনসহ, অনেক গুরুত্বপূর্ণ স্থানে বৃষ্টির পানি জমে জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হয়েছে। পানি অপসারণে সেচ্ছাসেবী সংগঠনসহ সংশ্লিষ্টরা কাজ করছে।

জেলার চার উপজেলায় রবিশস্য ও বীজতলা তলিয়ে ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। বিষখালী ও সুগন্ধা নদীর পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় ভবানীপুর, রানাপাশা, নাচনমহল, তেতুলবাড়িয়া, হদুয়া জেলা শহরের কলাবাগান, কিস্তাকাঠি, সাচিলাপুরসহ বিভিন্ন গ্রাম পানিতে তলিয়ে গেছে।

jhalokhati-1

জেলা প্রশাসন সূত্র জানায়, বসতবাড়ির বাইরে কিছু প্রাথমিক ও মাধ্যমিক বিদ্যালয় ভবন আংশিক বিধ্বস্ত হয়েছে। অনেক সড়কে গাছ উপড়ে পড়ে প্রতিবন্ধকতার সৃষ্টি হয়েছে। সড়ক থেকে গাছগুলো সরানোর কাজ চলছে।

উপজেলা বন কর্মকর্তা জিয়াউল ইসলাম বাকলাই জানান, কয়েক হাজার গাছ ঝড়ের কবলে পড়ে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। বন বিভাগের আওতায় থাকা গাছগুলো সরানোর ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে।

এদিকে দুর্যোগের কারণে শুক্রবার রাত ১০টা থেকে ঝালকাঠি জেলা শহরসহ বিভিন্ন স্থানে বিদ্যুৎ নেই। ঝোড়ো হাওয়া ও বৃষ্টির কারণে বিভিন্ন স্থানে বৈদ্যুতিক তারের ওপর গাছ পড়ায় এ সমস্যা দেখা দিয়েছে। একই কারণে মোবাইল নেটওয়ার্কেও সমস্যা দেখা দিয়েছে। ইন্টারনেটেও রয়েছে ধীরগতি রয়েছে।

ঝালকাঠি ওয়েস্ট জোন পাওয়ার ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানির (ওজোপাডিকো) নির্বাহী প্রকৌশলী আ. রহিম জানান, বৈদ্যুতিক খুঁটির ওপরে গাছ পড়ার কারণে সংযোগ দেয়া সম্ভব হচ্ছে না। সংস্কারের কাজ সম্পন্ন হলেই সংযোগ দেয়া হবে।

আতিক রহমান/এমবিআর/পিআর

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]