চাটমোহরে জমি নিয়ে সংঘর্ষ : পুলিশসহ আহত ১০

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি পাবনা
প্রকাশিত: ১২:৪৮ এএম, ০৫ ডিসেম্বর ২০১৯

পাবনার চাটমোহর উপজেলার গুনাইগাছা ইউনিয়নের বড়শালিখা গ্রামে বিরোধপূর্ণ জমি নিয়ে হামলা ও ভাঙচুরের ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় পুলিশ ও নারীসহ অন্তত ১৫ জন আহত হয়েছেন। গুরুতর আহত ১০ জনকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

বুধবার সন্ধ্যা সাড়ে ৫টার দিকে এমন ঘটনা ঘটেছে। আহতরা হলেন- চাটমোহর থানার এএসআই ওয়াসিম (৩২), কনস্টেবল আলমগীর কবির (৩২), কনস্টেবল বাবু মিয়া (২৯), আ. বাতেনের স্ত্রী মর্জিনা খাতুন (৪৬), ছেলে সাদ্দাম হোসেন (২৬), হাবিবুর রহমানের মেয়ে কনা খাতুন (২৬), হেলাল উদ্দিনের স্ত্রী সোহানী খাতুন (২১), মোসলেম উদ্দিনের মেয়ে উম্মে সওদা মুর্শিদা (২০), মিকার প্রাং এর ছেলে রফিক (৪০) ও আবুল কাশেমের ছেলে হোসেন আলী (৩৫)।

এ ঘটনায় পুলিশ ২ জনকে আটক করেছে। তারা হলেন- সাদ্দাম হোসেন ও হাবিবুর রহমানের ছেলে মেহের আলী। জানা গেছে, বড় শালিখা গ্রামের হাবিবুর রহমানের স্ত্রী মদিনা খাতুনের সাথে জমি ক্রয় করা নিয়ে রেজাউল-কাইয়ুম আলীর বিরোধ দেখা দেয়। রেজাউল তার জমি মদিনার কাছে বিক্রি করেন। পরে কাইয়ুমের কাছেও বিক্রি করেন।

এই জমি দখল নিয়ে উভয়ের মধ্যে বিরোধ শুরু হয়। মদিনা খাতুন আদালতে মামলাও দায়ের করেন। আদালত অস্থায়ী নিষেধাজ্ঞাসহ কার্যবিধির ১৪৪ ধারা জারি করেন। কিন্তু রেজাউল-কাইয়ুম গং তা অমান্য করে গত ১ ডিসেম্বর মদিনা খাতুনের বাড়ি-ঘর ভাংচুর করে। এরই জের ধরে বুধবার সন্ধ্যায় রেজাউল-কাইয়ুম গং লোকজন নিয়ে হামলা চালিয়ে ব্যাপক ভাংচুর করাসহ মারপিট করে।

খবর পেয়ে পুলিশও ঘটনাস্থলে গিয়ে লাঠিচার্জ করতে বাধ্য হয়। রাত ৯টায় এ সংবাদ লেখা পর্যন্ত এলাকায় থমথমে ভাব বিরাজ করছিল। চাটমোহর থানার ওসি সেখ নাসীর উদ্দিন জানান, মারামারির খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গেলে তারাও হামলার শিকার হয়। এ ব্যাপারে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণের প্রক্রিয়া চলছে।

একে জামান/এমআরএম